• শিরোনাম

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    শুভ জন্মদিন প্রিয় নেতা শাবান মাহমুদ

    শেখ সোহেল রানা | ০৪ নভেম্বর ২০১৮ | ৬:২৯ অপরাহ্ণ

    শুভ জন্মদিন প্রিয় নেতা শাবান মাহমুদ

    আজ ৪ নভেম্বর বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) এর মহাসচিব শাবান মাহমুদের জন্মদিন। শুভ জন্মদিন প্রিয় নেতা। জন্মদিনে আপনার জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা।
    শাবান মাহমুদ একজন খ্যাতিমান সাংবাদিক। বাংলাদেশের প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক সাংবাদিকতায় তিনি রেখে চলেছেন অগ্রণী ভূমিকা। শাবান মাহমুদের জন্ম ১৯৬৭ সালের ৪ নভেম্বর গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার গোহালা গ্রামে। তার বাবা মরহুম আব্দুস সালাম বিশ্বাস গোহালা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। মা বেগম মমতাজ সালাম একজন গৃহিণী। ৯ ভাই বোনের মধ্যে শাবান মাহমুদ চতুর্থ।
    স্থানীয় গোহালা টি সি এ এল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৫ বিষয়ে লেটার মার্কসহ ১৯৮৫ সালে প্রথম শ্রেণিতে এসএসসি পাস করেন শাবান মাহমুদ। এরপর ১৯৮৮ সালে ফরিদপুর রাজেন্দ্র কলেজ থেকে এইচএসসি পাশের পর ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। কিন্তু রাজনৈতিক কারণে সেখানে আর লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি তার। পরবর্তীতে জগন্নাথ কলেজ (বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়) থেকে স্নাতক পাস করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাষাতত্ত্বে (দ্বিতীয় ব্যাচ) এমএ পাস করেন।
    শাবান মাহমুদের স্ত্রীর নাম হুসনে আরা মুন। এ দম্পতির দুই সন্তান। মেয়ে নাবিলা রাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। আর ছেলে রোদ্দুর মাহমুদ বিয়াম স্কুলের পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ছে।
    শাবান মাহমুদের সাংবাদিকতা শুরু ১৯৮৮ সালে বাংলার বাণী পত্রিকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি হিসেবে। পরবর্তীতে দৈনিক লাল সবুজ, রূপালী, বাংলাবাজার, আমাদের সময় পত্রিকায় কাজ করেছেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনের বিশেষ প্রতিনিধি ও ডেপুটি চিফ রিপোর্টারের দায়িত্ব পালন করছেন। মাঝে ১৯৯৭ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত বিটিভিতে প্রযোজক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন এ সাংবাদিক।
    পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সাংবাদিকদের রুটি রুজির আন্দোলনেও সামনে থেকে ভূমিকা পালন করছেন শাবান মাহমুদ। ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) বর্তমানে সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে তিনি ২০১২ সালে ডিইউজের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তারও আগে ২০০৬ ও ২০০৮ সালে পরপর দুই বার সংগঠনটির যুগ্ম-সম্পাদক ছিলেন। পেশাদার সাংবাদিকদের সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাংস্কৃতিক সম্পাদক ছিলেন ২০০১ সালে। জাতীয় প্রেস ক্লাবে পেশাদার সাংবাদিকদের সদস্যপদ দেওয়ার আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন শাবান মাহমুদ। সর্বশেষ গত ০২ নভেম্বর ৪২৭ জন সাংবাদিককে জাতীয় প্রেস ক্লাব কর্তৃপক্ষ স্থায়ীভাবে সদস্যপদ দিয়েছেন। পেশাদার সাংবাদিকদের প্রেস ক্লাবের সদস্যপদ দেওয়ার ক্ষেত্রে যে কয়জন প্রতিশ্রুতিশীল সাংবাদিক নেতার মুখ্য ভূমিকা ছিল শাবান মাহমুদ তাদের অন্যতম।
    বর্তমানে শাবান মাহমুদ টেলিভিশনের টকশোতে একজন সুপরিচিত মুখ। বিভিন্ন টিভিতে নিয়মিতভাবে টকশোতে আলোচক হিসেবে অংশ নিচ্ছেন। টকশোতে তার গঠনমূলক আলোচনা ইতোমধ্যে দর্শকনন্দিত হয়েছে।
    প্রিয় নেতা আমরা আশা করি আপনি যতদিন বেঁচে থাকবেন, মানুষের ভালবাসা ও সাংবাদিকদের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে সামনের সারিতে থাকবেন। বিএফইউজে’র মহাসচিব হিসেবে সাংবাদিকদের যেকোনো অধিকার আদায়ে আগের মতোই সোচ্চার থাকবেন।

    Comments

    comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী