• শিরোনাম

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    সবচেয়ে বেশি এমপি নির্বাচিত হয়েছেন যারা

    ডেস্ক | ০৬ জানুয়ারি ২০১৯ | ৯:৫৭ পূর্বাহ্ণ

    সবচেয়ে বেশি এমপি নির্বাচিত হয়েছেন যারা

    শেখ ফজলুল করিম সেলিম। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য। বর্তমান সংসদের তিনিই একমাত্র ব্যক্তি যিনি ৮ বার এমপি হয়েছেন। ১৯৭৯ সালের ২ এপ্রিল অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সর্বপ্রথম এমপি নির্বাচিত হন তিনি। এরপর ৮৬ সালের ১০ জুলাই তৃতীয়, ১৯৯১ সালের ৫ এপ্রিল অনুষ্ঠিত ৫ম, ৯৬ এর ১২ জুলাই অনুষ্ঠিত ৭ম, ২০০১ সালের ১ অক্টোবর অনুষ্ঠিত ৮ম, ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ৯ম, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত ১০ম এবং সর্বশেষ ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গোপালগঞ্জ থেকে এমপি নির্বাচিত হন সেলিম। ১৯৯৬ সালের ৭ম নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন শেখ সেলিম।
    এরপরই রয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ কন্যা তিনি। শেখ হাসিনা এমপি নির্বাচিত হয়েছেন ৭ বার। ১৯৮৬, ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০১, ২০০৮, ২০১৪ ও সর্বশেষ ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় নির্বাচনে এমপি নির্বাচিত হন তিনি। এর মধ্যে ৩ বার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। আগামীকাল সোমবার চতুর্থ মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছেন তিনি। এর আগে গত বৃহস্পতিবার সংসদীয় দলের নেতা নির্বাচিত হন শেখ হাসিনা। ৫ম ও ৮ম সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সংখ্যকবার নির্বাচিত হওয়া এই প্রধানমন্ত্রী।
    এ ছাড়া, সাতবার নির্বাচিত হয়েছেন এরকম আরো ৫ জন এমপি রয়েছেন বর্তমান সংসদে। তারা হলেন- গাইবান্ধা থেকে নির্বাচিত এমপি এডভোকেট মো. ফজলে রাব্বী মিয়া। ১৯৮৬, ১৯৮৮, ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালে এমপি নির্বাচন হন। এক সময় জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচন করলেও সর্বশেষ তিন মেয়াদে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত হয়ে আসছেন তিনি। ১০ম জাতীয় সংসদে ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হয়ে এখন পর্যন্ত এ দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি। জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ পটুয়াখালী থেকে আ স ম ফিরোজ ১৯৭৯, ১৯৮৬, ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০৮, ২০১৪ ও সর্বশেষ ২০১৮ সালে নির্বাচিত হন। মাদারীপুর থেকে সাতবার নির্বাচিত হয়েছেন শাজাহান খান। পরিবহন শ্রমিকদের এই নেতা পরপর দুই মেয়াদে নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ২০১৪ সালে নির্বাচনকালীন সরকারে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়েরও দায়িত্ব পালন করেন তিনি। মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। দিনাজপুর থেকে সাতবার নির্বাচিত এই সংসদ সদস্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। নবম সংসদে ভূমি প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী এই মুক্তিযোদ্ধা দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগেরও সভাপতি। এক সময়ের কমিউনিস্ট পার্টির নেতা পরবর্তীতে আওয়ামী লীগে যোগদানকারী দবিরুল ইসলাম ঠাকুরগাঁও থেকে সাতবার এমপি নির্বাচিত হয়ে আসলেও মন্ত্রী হতে পারেননি কখনো। তবে এবার মন্ত্রী হিসেবে তাকে দেখা যেতে পারে বলে গুঞ্জন রয়েছে।
    ৬ বার এমপি হয়েছেন ১০ জন : বর্তমান এমপিদের মধ্যে ৬ বার নির্বাচিত হয়েেেছন এমন সংখ্যা ১০ জন। তোফায়েল আহমেদ ভোলা থেকে নির্বাচিত হয়ে আসছেন বারবার। এ পর্যন্ত ৬ বার এমপি হয়েছেন তিনি। ৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানের মহানায়ক হিসেবে পরিচিত তোফায়েল আহমেদ ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৮৬, ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০৮, ১৪ ও ১৮ সালে এমপি হন তোফায়েল। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সাবেক এই সদস্য বর্তমানে দলটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। মাদারীপুরের সংসদ সদস্য নূর-ই আলম চৌধুরী লিটন ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০১, ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালে এমপি নির্বাচিত হন। কখনো মন্ত্রী না হলেও আওয়ামী লীগ সংসদীয় দলের সদস্য সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন একাধিকবার। এবার কোনো গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয় অথবা সরকারি দলের চিফ হুইপের দায়িত্ব পেতে পারেন লিটন চৌধুরী।
    উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ। মৌলভীবাজার থেকে নির্বাচিত এই নেতা ১৯৯১ সাল থেকে টানা ২০১৮ সাল পর্যন্ত এমপি হয়ে আসছেন। কখনো কোনো মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব না পেলেও বিরোধী ও সরকারি দলের চিফ হুইপ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এবার তাকেও মন্ত্রী হিসেবে দেখা যেতে পারে বলে আলোচনা রয়েছে।
    ইমাজউদ্দিন আহমেদ প্রামানিক। নওগাঁ থেকে নির্বাচিত বর্ষীয়ান এই নেতা ১৯৭৩, ১৯৭৯, ১৯৮৬, ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালে এমপি নির্বাচিত হন। বর্তমানে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। টানা ৬ষ্ঠ বার নির্বাচিত হয়েছেন মির্জা আজম। জামালপুর থেকে নির্বাচিত এই নেতাও ১৯৯১ সাল থেকে একাদশ জাতীয় নির্বাচন পর্যন্ত টানা ৬ বার এমপি নির্বাচিত হয়ে আসছেন। যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী মির্জা আজম বর্তমানে পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এবার তাকে পূর্ণমন্ত্রী করা হতে পারে বলে জানা গেছে। বীর বাহাদুর উসৈ শিং। পার্বত্য জেলা বান্দরবান থেকে ১৯৯১ থেকে টানা ২০১৮ পর্যন্ত তিনিও এমপি হয়ে আসছেন। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী এই নেতা বর্তমানে পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন।
    ইমরান আহমেদ সিলেট থেকে এমপি হয়ে আসছেন। সরকারি দল আওয়ামী লীগের হয়ে ১৯৮৬, ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০৮, ২০১৪ ও সর্বশেষ ২০১৮ সালে এমপি নির্বাচিত হন। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করলেও মন্ত্রী হননি কখনো। এবার সিলেট থেকে মন্ত্রী হিসেবে তার নাম জোরালো আলোচনায় আছে।
    গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জনিয়ার মোশাররফ হোসেন। চট্টগ্রাম থেকে নির্বাচিত এই এমপি বর্তমানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য। ১৯৭৩, ১৯৮৬, ৯৬, ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালে নির্বাচিত হন তিনি।
    আনিসুল ইসলাম মাহমুদ। জাতীয় পার্টির প্রেসিডয়াম সদস্য তিনি। ১৯৭৯, ৮৬, ৮৮, ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালে এমপি হন তিনি। বর্তমানে বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করছেন। আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। জাতীয় পার্টির (এরশাদ) প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব তিনি। বর্তমানে জাতীয় পার্টির (জেপি) চেয়ারম্যান হিসেবে মহাজোটের শরিক হয়ে সাইকেল প্রতীকে নিজ জেলা পিরোজপুর থেকে নির্বাচিত এমপি তিনি। একাধিকবার বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালনকারী মঞ্জু শেখ হাসিনার আস্থাভাজন হিসেবে ৯৬ সালে যোগাযোগ ও ২০১৪ থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত প্রথমে বন ও পরিবেশ এবং পরবর্তীতে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান। এখন পর্যন্ত এ দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।
    পাঁচবার এমপি হয়েছেন ১৬ জন : কর্নেল (অব.) ফারুক খান। সাবেক এই সামরিক কর্মকর্তা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত। সেনাবাহিনী থেকে অবসর নিয়ে ১৯৯৬ সালে গোপালগঞ্জ থেকে প্রথমবার এমপি নির্বাচিত হন তিনি। এরপর ২০০১, ২০০৮, ২০১৪ ও সর্বশেষ ২০১৮ সালের একাদশ নির্বাচনে এমপি নির্বাচিত হন ফারুক খান। ২০০৮ সালে দল ক্ষমতাসীন হওয়ার পর প্রথমে বাণিজ্য ও পরে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান তিনি। আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক সম্পাদক ও বর্তমানে দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সাংগঠনিকভাবে দক্ষ এই নেতাকে সর্বশেষ আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য করেন শেখ হাসিনা। নবগঠিত মন্ত্রিসভায় তাকে গুরুত্বপূর্ণ কোনো মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেয়া হতে পারে বলে আলোচনা রয়েছে।
    ৫ বার এমপি হয়েছেন এমন তালিকায় আছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। জাতীয় চার নেতার অন্যতম ক্যাপ্টেন মনসুর আলীর পুত্র তিনি। ১৯৮৬ সালে সর্বপ্রথম সিরাজগঞ্জ থেকে এমপি হন তিনি। এরপর ১৯৯৬, ২০০১, ২০১৪ ও ২০১৮ সালে এমপি হন তিনি।
    মতিয়া চৌধুরী। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এই সদস্য পরপর তিনবার কৃষিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। আগামীতেও এই মন্ত্রণালয়েই দেখা যেতে পারে অগ্নিকন্যা হিসেবে খ্যাত একসময়ের তুখোড় এই বামনেত্রীকে।
    পাঁচবার এমপি হওয়ার তালিকায় আছেন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সদ্যপ্রয়াত সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। দলটির সভাপতিমণ্ডলী ও জনপ্রশাসনমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন তিনি। ১/১১ তে দল ও নেত্রীর প্রতি অবিচল আস্থা রাখা সৈয়দ নজরুল ইসলামের পুত্র সৈয়দ আশরাফ তৃণমূল নেতাকর্মীদের খুবই পছন্দের। বৃহস্পতিবার সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। আজ রবিবার তার দাফন সম্পন্ন হবে।
    এ ছাড়া, ৫ বার এমপি নির্বাচিত হয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ ও তার স্ত্রী রওশন এরশাদ। এ তালিকায় আরো আছেন- বাগেরহাট থেকে নির্বাচিত ডা. মোজাম্মেল হোসেন, শেখ হেলাল উদ্দিন, ভূমিমন্ত্রী পাবনার সামসুর রহমান শরীফ ডিলু, আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ রংপুরের এইচ এন আশিকুর রহমান, দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাবেক আইনমন্ত্রী এডভোকেট আবদুল মতিন খসরু, বরগুনার ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, সাবেক মন্ত্রী নরসিংদীর রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম রহমত উল্লাহ, ঢাকা-৬ থেকে নির্বাচিত জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদ ও শেরপুরের আতিউর রহমান আতিক।

    Comments

    comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী