• শিরোনাম



    শহীদ জিয়া যখন স্বাধীনতার ঘোষণা দেন তখন আমি তার পাশে উপবিষ্ট ছিলাম: কর্নেল অলি

    বিশেষ প্রতিবেদক | রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯

    ১৯৩৯ সালের ১৩ মার্চ ডক্টর কর্নেল (অব:) অলি আহমদ বীর বিক্রম চট্টগ্রাম জেলার চন্দনাইশ উপজেলার বিখ্যাত কুতুব পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫৭ সালে নিজ উপজেলার গাছবাড়িয়া এন জি উচ্চবিদ্যালয় থেকে মেট্রিকুলেশন পাস করেন। করাচির ন্যাশনাল কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। আইনশাস্ত্র অধ্যয়নরত অবস্থায় মিলিটারি একাডেমিতে যোগদান করেন। ১৯৬৫ সালে কমিশন প্রাপ্ত হন এবং চতুর্থ ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টে যোগদান করেন। ১৯৭০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বদলী হয়ে চট্টগ্রামের ষোলশহর সিডিএ মার্কেটে অবস্থিত নবগঠিত ...বিস্তারিত

    ১৯৩৯ সালের ১৩ মার্চ ডক্টর কর্নেল (অব:) অলি আহমদ বীর বিক্রম চট্টগ্রাম জেলার চন্দনাইশ উপজেলার বিখ্যাত কুতুব পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫৭ সালে নিজ উপজেলার গাছবাড়িয়া এন জি উচ্চবিদ্যালয় থেকে মেট্রিকুলেশন পাস করেন। করাচির ন্যাশনাল কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। আইনশাস্ত্র অধ্যয়নরত অবস্থায় মিলিটারি একাডেমিতে যোগদান করেন। ১৯৬৫ সালে কমিশন ...বিস্তারিত

    ১৯৩৯ সালের ১৩ মার্চ ডক্টর কর্নেল (অব:) অলি আহমদ বীর বিক্রম চট্টগ্রাম জেলার চন্দনাইশ উপজেলার বিখ্যাত কুতুব পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ...বিস্তারিত

    মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান নিশ্চিত করার দায়িত্ব রাষ্ট্রের

    আর কে চৌধুরী | শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯

    মুক্তিযুদ্ধ বাঙালি জাতিসত্ত্বার সবচেয়ে গৌরবজনক অধ্যায়। ১৯৭১ সালে ৭ই মার্চ রেসকোর্স ময়দানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণের পর বাঙালি জাতি পাকিস্তানী শাসন ও শোষক গোষ্ঠির বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের প্রস্ত্ততি গ্রহণ করা শুরু করে। ১৯৭১ সালে ২৫ শে মার্চ রাতে শুরু হয় পাক- হানাদার বাহিনী কর্তৃক নিষ্ঠুর গণহত্যা। ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চের সূচনালগ্নে পাক-বাহিনী কর্তৃক গ্রেফতার হওয়ার আগে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষনা করেন। শুরু হয় অবরুদ্ধ স্বদেশ থেকে ...বিস্তারিত

    মুক্তিযুদ্ধ বাঙালি জাতিসত্ত্বার সবচেয়ে গৌরবজনক অধ্যায়। ১৯৭১ সালে ৭ই মার্চ রেসকোর্স ময়দানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণের পর বাঙালি জাতি পাকিস্তানী শাসন ও শোষক গোষ্ঠির বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের প্রস্ত্ততি গ্রহণ করা শুরু করে। ১৯৭১ সালে ২৫ শে মার্চ রাতে শুরু হয় পাক- হানাদার বাহিনী কর্তৃক নিষ্ঠুর গণহত্যা। ...বিস্তারিত

    মুক্তিযুদ্ধ বাঙালি জাতিসত্ত্বার সবচেয়ে গৌরবজনক অধ্যায়। ১৯৭১ সালে ৭ই মার্চ রেসকোর্স ময়দানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণের ...বিস্তারিত

    আদর্শ শিক্ষক ও সৎ রাজনীতিবিদ হিসেবে সর্বমহলে সমাদৃত অধ্যক্ষ শাহজাহান সাজু

    অধ্যক্ষ সুমনা ইয়াসমিন | বৃহস্পতিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯

    বাংলাদেশের শিক্ষক রাজনীতিতে সৎ, ত্যাগী এবং অনুকরণীয় ব্যক্তি হচ্ছেন অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু। তিনি কিংবদন্তী ছাত্র নেতা। নীতির প্রশ্নে যিনি ছিলেন সর্বদা আপোষহীন। ছাত্র রাজনীতিতে তার অপরিমেয় আত্মত্যাগ, নীতিনিষ্ঠ রাজনীতি, স্পষ্ট বক্তব্য অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজুকে এদেশের রাজনীতিতে সম্মানের চিরস্থায়ী আসনে অধিষ্ঠিত করেছে। অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মেঘনা বিধৌত আশুগঞ্জ উপজেলার বৈকণ্ঠপুর (বড়তল্লা) গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে ১৯৬৭ সালের ৩০ জুন জন্মগ্রহণ করেন। শাহজাহান আলম ...বিস্তারিত

    বাংলাদেশের শিক্ষক রাজনীতিতে সৎ, ত্যাগী এবং অনুকরণীয় ব্যক্তি হচ্ছেন অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু। তিনি কিংবদন্তী ছাত্র নেতা। নীতির প্রশ্নে যিনি ছিলেন সর্বদা আপোষহীন। ছাত্র রাজনীতিতে তার অপরিমেয় আত্মত্যাগ, নীতিনিষ্ঠ রাজনীতি, স্পষ্ট বক্তব্য অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজুকে এদেশের রাজনীতিতে সম্মানের চিরস্থায়ী আসনে অধিষ্ঠিত করেছে। অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু ...বিস্তারিত

    বাংলাদেশের শিক্ষক রাজনীতিতে সৎ, ত্যাগী এবং অনুকরণীয় ব্যক্তি হচ্ছেন অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু। তিনি কিংবদন্তী ছাত্র নেতা। নীতির প্রশ্নে ...বিস্তারিত

    সাংবাদিকতায় নিজের সর্বোচ্চ দেবো, দিতে হবে

    আরিফুর রহমান দোলন | বৃহস্পতিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯

    সাংবাদিকতা আমার পেশা। সাংবাদিকতাই আমার নেশা। বহুমুখী কাজে যুক্ত থাকতে গিয়ে গত কয়েকবছর সাংবাদিকতা পেশায় পর্যাপ্ত সময়, মনোযোগ দেইনি, দিতে পারিনি। এ নিয়ে নিজের ওপরই এক ধরনের বিরক্তিবোধ রয়েছে আমার। পরিচিত, ঘনিষ্ঠজন এবং সংবাদকর্মীদের অনেকেই যখন বলেন, পেশাগত সাংবাদিকতায় শতভাগ উজাড় করে দিলে আমার অনেক ভালো করার সুযোগ আছে, তখন ভালোলাগা, খারাপ লাগা দুটোই কাজ করে। নিজের মধ্যে ক্রমশই এই তাগিদ প্রবল হচ্ছে যে পেশাগত সাংবাদিকতায় নিজের সর্বোচ্চ দেবো, দিতে ...বিস্তারিত

    সাংবাদিকতা আমার পেশা। সাংবাদিকতাই আমার নেশা। বহুমুখী কাজে যুক্ত থাকতে গিয়ে গত কয়েকবছর সাংবাদিকতা পেশায় পর্যাপ্ত সময়, মনোযোগ দেইনি, দিতে পারিনি। এ নিয়ে নিজের ওপরই এক ধরনের বিরক্তিবোধ রয়েছে আমার। পরিচিত, ঘনিষ্ঠজন এবং সংবাদকর্মীদের অনেকেই যখন বলেন, পেশাগত সাংবাদিকতায় শতভাগ উজাড় করে দিলে আমার অনেক ভালো করার সুযোগ আছে, তখন ...বিস্তারিত

    সাংবাদিকতা আমার পেশা। সাংবাদিকতাই আমার নেশা। বহুমুখী কাজে যুক্ত থাকতে গিয়ে গত কয়েকবছর সাংবাদিকতা পেশায় পর্যাপ্ত সময়, মনোযোগ দেইনি, দিতে ...বিস্তারিত

    বাংলাদেশের সম্ভাবনার দিগন্তে উড়ছে সাফল্যের পতাকা

    অধ্যক্ষ সুমনা ইয়াসমিন | বুধবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৯

    পাল্টে যাচ্ছে বাংলাদেশ। দেশের পরিশ্রমী মানুষ পাল্টে দিচ্ছে বাংলাদেশকে। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের গ্রাম মানেই ছিল জরাজীর্ণ ঘর-দুয়ার আর দারিদ্র্যের আঘাতে জর্জরিত জীবনের প্রতিচ্ছবি। দেশের জনসংখ্যার শতকরা ৮০ জনই ছিল দরিদ্র শ্রেণির। ‘নুন আনতে পান্তা ফুরায়’ তাদের নিয়তির লিখন বলে বিবেচিত হতো। সময়ের বিবর্তনে সেই ছবি বদলে যাচ্ছে। ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলজুড়ে লেগেছে দিন বদলের ছোঁয়া। এখন গ্রামে কুঁড়েঘর খুঁজে পাওয়া কঠিন। তার বদলে গড়ে উঠেছে টিনের ঘর ও পাকা বাড়ি। হাড্ডিসার মুখগুলোও ...বিস্তারিত

    পাল্টে যাচ্ছে বাংলাদেশ। দেশের পরিশ্রমী মানুষ পাল্টে দিচ্ছে বাংলাদেশকে। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের গ্রাম মানেই ছিল জরাজীর্ণ ঘর-দুয়ার আর দারিদ্র্যের আঘাতে জর্জরিত জীবনের প্রতিচ্ছবি। দেশের জনসংখ্যার শতকরা ৮০ জনই ছিল দরিদ্র শ্রেণির। ‘নুন আনতে পান্তা ফুরায়’ তাদের নিয়তির লিখন বলে বিবেচিত হতো। সময়ের বিবর্তনে সেই ছবি বদলে যাচ্ছে। ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলজুড়ে লেগেছে ...বিস্তারিত

    পাল্টে যাচ্ছে বাংলাদেশ। দেশের পরিশ্রমী মানুষ পাল্টে দিচ্ছে বাংলাদেশকে। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের গ্রাম মানেই ছিল জরাজীর্ণ ঘর-দুয়ার আর দারিদ্র্যের আঘাতে ...বিস্তারিত

    মুক্তিযুদ্ধে সাহস ও আত্মত্যাগের নিদর্শক কমান্ডার শহীদ আব্দুল্লাহিল বাকি

    ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল | বুধবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৯

    মুক্তিযুদ্ধে বাঙালি জাতির সবচেয়ে গৌরবময় ঘটনা। এই যুদ্ধের মধ্য দিয়েই আমরা লাভ করেছি স্বাধীন দেশ, নিজস্ব পতাকা। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ বাংলার ছাত্র-যুবক, কৃষক-শ্রমিকসহ সর্বস্তরের মেহানতি জনগণ বর্বর হানাদার পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে সশস্ত্র যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়। তারই পরিণতিতে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর অর্জিত হয় চূড়ান্ত বিজয়। বিশ্বের মানচিত্রে খোদিত হয় একটা নাম- ‘স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ’। ১৯৭১ সালের ৪ ডিসেম্বর। স্বাধীনতা যুদ্ধের শেষ মুহুর্তে এক এক করে সারাদেশ থেকে পাক হানাদার বাহিনীর পরাজয়ের ...বিস্তারিত

    মুক্তিযুদ্ধে বাঙালি জাতির সবচেয়ে গৌরবময় ঘটনা। এই যুদ্ধের মধ্য দিয়েই আমরা লাভ করেছি স্বাধীন দেশ, নিজস্ব পতাকা। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ বাংলার ছাত্র-যুবক, কৃষক-শ্রমিকসহ সর্বস্তরের মেহানতি জনগণ বর্বর হানাদার পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে সশস্ত্র যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়। তারই পরিণতিতে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর অর্জিত হয় চূড়ান্ত বিজয়। বিশ্বের মানচিত্রে খোদিত হয় একটা ...বিস্তারিত

    মুক্তিযুদ্ধে বাঙালি জাতির সবচেয়ে গৌরবময় ঘটনা। এই যুদ্ধের মধ্য দিয়েই আমরা লাভ করেছি স্বাধীন দেশ, নিজস্ব পতাকা। ১৯৭১ সালের ২৬ ...বিস্তারিত

    মুক্তিযুদ্ধে কর্নেল অলির বীরত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি মিলেছে জিয়া ও শওকত আলীর গোপনীয় প্রতিবেদনে

    বিশেষ প্রতিবেদক | সোমবার, ০২ ডিসেম্বর ২০১৯

    ডক্টর কর্নেল (অবঃ) অলি আহমেদ বীর বিক্রম বাংলাদেশের একজন প্রথম সারির মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক মন্ত্রী। ১৯৭১ সালে তিনি জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে চট্টগ্রামে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহে অংশ নেন। চট্টগ্রাম কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে জিয়াউর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণার তিনি অন্যতম স্বাক্ষী। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। স্বাধীনতা যুদ্ধে তার সাহসিকতার জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে বীর বিক্রম খেতাব প্রদান করে। অলি আহমেদের পৈতৃক বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার চন্দনাইশ উপজেলার চন্দনাইশে। তাঁর বাবার নাম ...বিস্তারিত

    ডক্টর কর্নেল (অবঃ) অলি আহমেদ বীর বিক্রম বাংলাদেশের একজন প্রথম সারির মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক মন্ত্রী। ১৯৭১ সালে তিনি জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে চট্টগ্রামে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহে অংশ নেন। চট্টগ্রাম কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে জিয়াউর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণার তিনি অন্যতম স্বাক্ষী। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। স্বাধীনতা যুদ্ধে তার সাহসিকতার ...বিস্তারিত

    ডক্টর কর্নেল (অবঃ) অলি আহমেদ বীর বিক্রম বাংলাদেশের একজন প্রথম সারির মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক মন্ত্রী। ১৯৭১ সালে তিনি জিয়াউর রহমানের ...বিস্তারিত

    মহান মুক্তিযুদ্ধ ও সন্তান হারানোর স্মৃতি

    আর কে চৌধুরী | রবিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০১৯

    ১৯৭১ সালে দীর্ঘ নয় মাসের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের সমাপ্তি ঘটে ডিসেম্বর মাসের ১৬ তারিখে পাকিস্তানি বাহিনীর প্রায় এক লাখ সদস্যের আত্মসমর্পণের মাধ্যমে। একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের এই বিজয় জাতির শ্রেষ্ঠতম অর্জন। একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ডিসেম্বর মাস আমার জন্য শ্রেষ্ঠতম আনন্দের মাস। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ ক্র্যাক ডাউনের পর ২৭ মার্চ হেঁটে, রিকশা এবং নৌকায় অনেক কষ্টে নরসিংদী পৌঁছেছিলাম। নিয়েছিলেম মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি। যোগাযোগ করেছিলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবস্থানরত মেজর নূরুজ্জামানের সঙ্গে। ২ এপ্রিল ক্যাপ্টেন মতিউরের পরিকল্পনা ...বিস্তারিত

    ১৯৭১ সালে দীর্ঘ নয় মাসের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের সমাপ্তি ঘটে ডিসেম্বর মাসের ১৬ তারিখে পাকিস্তানি বাহিনীর প্রায় এক লাখ সদস্যের আত্মসমর্পণের মাধ্যমে। একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের এই বিজয় জাতির শ্রেষ্ঠতম অর্জন। একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ডিসেম্বর মাস আমার জন্য শ্রেষ্ঠতম আনন্দের মাস। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ ক্র্যাক ডাউনের পর ২৭ মার্চ হেঁটে, রিকশা এবং ...বিস্তারিত

    ১৯৭১ সালে দীর্ঘ নয় মাসের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের সমাপ্তি ঘটে ডিসেম্বর মাসের ১৬ তারিখে পাকিস্তানি বাহিনীর প্রায় এক লাখ সদস্যের আত্মসমর্পণের ...বিস্তারিত

    দুর্নীতি গিলে খাচ্ছে দেশের উন্নয়ন অগ্রগতি

    ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল | বৃহস্পতিবার, ২৮ নভেম্বর ২০১৯

      ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল
    সর্বগ্রাসী দুর্নীতি বাংলাদেশের সব উন্নয়ন প্রচেষ্টাকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। হাওরে বাঁধ নির্মাণের জন্য প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা দেওয়া হয়। বাঁধের নামে যা করা হয়, আগাম বর্ষার এক ধাক্কায় তা উবে যায়। প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা খরচ করে রাস্তা মেরামত, ব্রিজ-কালভার্ট নির্মাণ করা হয়। কয়েক মাস না যেতেই সেগুলো ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। সরকারি ভবন নির্মাণে রডের বদলে বাঁশও ব্যবহৃত হয়। এতে উন্নয়নের পুরো টাকাটাই গচ্চা যায়। সরকারি অফিসগুলোতে ...বিস্তারিত

      ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল
    সর্বগ্রাসী দুর্নীতি বাংলাদেশের সব উন্নয়ন প্রচেষ্টাকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। হাওরে বাঁধ নির্মাণের জন্য প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা দেওয়া হয়। বাঁধের নামে যা করা হয়, আগাম বর্ষার এক ধাক্কায় তা উবে যায়। প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা খরচ করে রাস্তা মেরামত, ব্রিজ-কালভার্ট নির্মাণ করা হয়। কয়েক মাস না যেতেই সেগুলো ...বিস্তারিত

      ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল
    সর্বগ্রাসী দুর্নীতি বাংলাদেশের সব উন্নয়ন প্রচেষ্টাকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। হাওরে বাঁধ নির্মাণের জন্য প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা দেওয়া ...বিস্তারিত

    মানুষ দ্রব্যমূল্যে ঊর্ধ্বগতির অভিশাপ থেকে রেহাই চায়

    ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল | বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯

    দ্রব্যমূল্যের বাজারে হঠাৎ করে শুরু হয়েছে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা। অল্প কয়েক দিনের ব্যবধানে পিয়াজের দাম বেড়েছে দশ তিনগুণ। যে পিয়াজ বিক্রি হতো ২০ টাকা কেজিতে তার দাম বেড়ে দাঁড়ায় ২৫০ টাকা। চালের দাম ক্রমেই বাড়ছে এবং তা সর্বকালের রেকর্ড ভঙ্গ করতে চলেছে। সবজির দাম এখন গড়ে তিন থেকে চারগুণ বেড়েছে, মাছের বাজারেও পড়েছে মূল্যবৃদ্ধির কালো ছায়া। নিত্যপণ্যের সাম্প্রতিক মূল্যবৃদ্ধি সাধারণ মানুষের দুঃখ-কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তাদের আয়ের একটা বড় অংশ চলে ...বিস্তারিত

    দ্রব্যমূল্যের বাজারে হঠাৎ করে শুরু হয়েছে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা। অল্প কয়েক দিনের ব্যবধানে পিয়াজের দাম বেড়েছে দশ তিনগুণ। যে পিয়াজ বিক্রি হতো ২০ টাকা কেজিতে তার দাম বেড়ে দাঁড়ায় ২৫০ টাকা। চালের দাম ক্রমেই বাড়ছে এবং তা সর্বকালের রেকর্ড ভঙ্গ করতে চলেছে। সবজির দাম এখন গড়ে তিন থেকে চারগুণ বেড়েছে, মাছের ...বিস্তারিত

    দ্রব্যমূল্যের বাজারে হঠাৎ করে শুরু হয়েছে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা। অল্প কয়েক দিনের ব্যবধানে পিয়াজের দাম বেড়েছে দশ তিনগুণ। যে পিয়াজ বিক্রি ...বিস্তারিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী