• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    অদূর ভবিষ্যতে মানব মস্তিষ্ক হ্যাকিং হতে পারে

    অনলাইন ডেস্ক | ২৭ এপ্রিল ২০১৭ | ১১:০০ পূর্বাহ্ণ

    অদূর ভবিষ্যতে মানব মস্তিষ্ক হ্যাকিং হতে পারে

    কিছুদিন আগে ফেসবুক জানিয়েছিল, তারা কম্পিউটার প্রোগ্রাম দিয়ে মানুষের চিন্তা লিখে ফেলার প্রযুক্তি উদ্ভাবন করছে। তাই মানুষের ভাবনা যন্ত্রের আয়ত্তে চলে যাওয়ার বাস্তবতায় নতুন করে মানবাধিকার নির্ধারণ করার আহ্বান জানিয়েছেন দুই বিশেষজ্ঞ।


    এই দুই বিশেষজ্ঞ হলেন মার্সেলো ইয়েনকা ও রবার্তো আন্দরনো। ইয়েনকা সুইজারল্যান্ডের বাসিল বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিকেল এথিকস ও আন্দরনো জুরিখ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের অধ্যাপক।


    সম্প্রতি লাইফ সায়েন্স নামের একটি জার্নালে এই দুজন নতুন মানবাধিকার নিয়ে একটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করেন। তাতে বলা হয়েছে, বর্তমানে মানুষের মস্তিষ্কের সঙ্গে যুক্ত হতে পারছে যন্ত্র বা কম্পিউটার। মানুষের চিন্তাভাবনাও জেনে ফেলছে। এতে অদূর ভবিষ্যতে মানব মস্তিষ্ক হ্যাকও করে ফেলতে পারে যন্ত্র। সেদিক থেকে মানুষের ভাবনাজগৎকে নিরাপদ করতে নতুন মানবাধিকারের প্রয়োজন। এর মধ্যে মানুষের ‘বোধশক্তিজনিত স্বাধীনতার অধিকার’ ও ‘মানসিক সততার অধিকার’ অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশ করেছেন এ দুই বিশেষজ্ঞ। এ ছাড়া আরও দুটি অধিকার প্রয়োজন।

    এগুলো হলো ‘ব্যক্তিগত মানসিক গোপনীয়তা রক্ষা’ ও ‘মানসিক ধারাবাহিকতা রক্ষার অধিকার’।

    একজন মানুষ রাজনৈতিকভাবে ডানপন্থী নাকি বামপন্থী—কম্পিউটারের সাহায্যে তা নির্ধারণ করতে এরই মধ্যে বিজ্ঞানীরা সফল হয়েছেন। এমনকি দুটি নির্দিষ্ট সংখ্যা যোগ না বিয়োগ করবেন, এ ব্যাপারে একজনের ভাবনাও স্বয়ংক্রিয়ভাবে জেনে ফেলছে যন্ত্র। বিজ্ঞানীরা বলছেন, গবেষণায় দেখা গেছে, এ ব্যাপারে যন্ত্র ৭০ শতাংশ নির্ভুল উত্তর দিয়েছে।

    অন্যদিকে চিকিৎসাবিজ্ঞান-বিষয়ক বিশেষজ্ঞরা পক্ষাঘাতগ্রস্ত ব্যক্তির মস্তিষ্ক কম্পিউটারের সঙ্গে জুড়ে দিতে সফল হয়েছেন। এর ফলে অচল হাত-পা নাড়াতে পারছে মানুষ। এ ক্ষেত্রে মানুষের মস্তিষ্ক নির্দেশনা দিচ্ছে না, দিচ্ছে কম্পিউটার।

    মার্সেলো ইয়েনকা ও রবার্তো আন্দরনো বলেন, বর্তমানে মানুষের প্রতিদিনের জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে গেছে নানা যন্ত্র, কম্পিউটার ও সফটওয়্যার। এখন স্নায়বিক প্রযুক্তিগত যন্ত্রের ব্যবহার ক্রমেই বাড়ছে। এতে যেকোনো সময় ‘মস্তিষ্ক হ্যাক’ করার মতো ‘ক্ষতিকর’ ঘটনা ঘটতে পারে। এসব নতুন যন্ত্র, প্রোগ্রাম বা কম্পিউটার মানুষের মানসিক জগতে ঢুকে তাঁর অজান্তেই চিন্তাভাবনা সম্পর্কে জেনে যেতে পারে। এমনকি বিভিন্ন ভাবনা মুছেও দিতে পারে। তাই মানুষের ব্যক্তিগত মানসিক গোপনীয়তা রক্ষায় নির্দিষ্ট অধিকার থাকা প্রয়োজন।

    রবার্তো আন্দরনো বলেন, ‘অবস্থা এমন পর্যায়ে গেছে যে কোম্পানিগুলো ভোক্তাদের মনোভাব জানতে মস্তিষ্কের ছবি ও মানচিত্র বিশ্লেষণ করছে। তারা একে বলছে নিউরোমার্কেটিং। এসব বিষয় সামগ্রিকভাবে ব্যক্তিস্বাধীনতার প্রতি হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই আমরা চারটি নতুন মানবাধিকারের কথা বলেছি।’

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4673