• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি পুরুষের দেহে জরায়ু, ডিম্বাশয়, ডিম্বনালী

    | ২৯ মার্চ ২০১৭ | ৮:৩৯ পূর্বাহ্ণ

    অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি পুরুষের দেহে জরায়ু, ডিম্বাশয়, ডিম্বনালী

    পুরুষের দেহে একাধিক নারীদের অঙ্গ যেমন জরায়ু, ডিম্বাশয় ও ডিম্বনালী রয়েছে। অবিশ্বাস্য হলেও এমনই কাণ্ড ঘটেছে ভারতের মালদহের এক বেসরকারী নার্সিং হোমের রিপোর্টে। এক পুরুষ রোগীর ইউএসজি রিপোর্টে তাকে যে শুধু নারী হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে তাই নয়, নারীদের বিভিন্ন অঙ্গের বর্ণনা দিয়ে বিস্তারিত রিপোর্টও করা হয়েছে।


    অবিশ্বাস্য এই রিপোর্টে স্বাক্ষর করেছেন নার্সিং হোমের কর্মকর্তা চিকিৎসক অজিত মৌলিক। এখানেই শেষ নয়, পুরুষ শরীরে নারী অঙ্গের রিপোর্ট তৈরি করে দুঃস্থ পরিবারের কাছ থেকে নিয়ে নেওয়া হয়েছে দশ হাজারেরও বেশি টাকা। শেষ পর্যন্ত তিনদিন চিকিৎসা করে বিপাকে পড়ে রোগীকে স্থানান্তরিত করে দেওয়া হয় মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। আরও আশ্চর্যের বিষয় হল, ‘ডিসচার্জ’ সার্টিফিকেটও পুরুষ রোগীকে চিহ্নিত করা হয়েছে নারী হিসেবে। তাতেও স্বাক্ষর করেছেন নার্সির হোমের মেডিক্যাল অফিসার।


    ৮৬ বছর বয়সী হাজি মালিমুদ্দিনের বাড়ি চাঁচল থানার বরাম্বলপুরে। পেট ব্যথার সমস্যা নিয়ে গত বুধবার ভর্তি হন মালদহের নারায়ণপুর এলাকার একটি নার্সিং হোমে। এরপর শুক্রবার পর্যন্ত সেখানেই তার চিকিৎসা চলে। ওই বৃদ্ধের ইউএসজি করা হয় মালদহের ওই নার্সিং হোম ও তার ডায়াগনিষ্ট সেন্টারে। ওই রিপোর্টেই পুরুষের দেহে নানা নারী অঙ্গের কথা উল্লেখ করা হয়। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতে চিকিৎসকেরা রোগীর কিছু অস্ত্রোপচার করতে হবে বলেও জানায়। কিন্তু পরিবারের তরফ থেকে যে তাঁদের আর্থিক সমস্যার কথা জানিয়ে দেওয়া হয়।

    এরপর ওই রোগীকে নার্সিং হোমে চিকিৎসা সম্ভব নয় বলে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। কিন্ত মালদহ মেডিক্যাল কলেজে রোগী আসতেই শুরু হয়ে যায় হৈচৈ। পুরুষের দেহে নারীর অঙ্গের রিপোর্ট দেখে রীতিমত অবাক হন হাসপাতালের অন‍্যান‍্য চিকিৎসক ও নার্সিং স্টাফরা।

    নিজের এলাকার অসুস্থ রোগীকে দেখতে এদিন সকালে হাসপাতালে পৌছান চাঁচলের কংগ্রেস বিধায়ক আসিফ মেহেবুব। তিনিও রিপোর্টের কাগজপত্র দেখে হতবাক হয়ে যান। সঙ্গে সঙ্গে তিনি নার্সিং হোমের মালিক তথা ডাক্তার অজিত মৌলিককে ফোন করে কথা বলেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই নার্সিং হোম কর্তৃপক্ষ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এসে হাজির হন। অজিত মৌলিক মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেরও চিকিৎসক। তিনি বিধায়কের কাছে ভুল স্বীকার করে নেন। এ সময় অজিত মৌলিক বলেন, এটা লেখার ভুল মাত্র।

    অপরদিকে চাঁচলের কংগ্রেস বিধায়ক আসিফ মেহেবুব বলেন, একজন পুরুষ রোগীকে মহিলা বানিয়ে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি পুরুষ রোগীর জরায়ু, ডিম্বাশয়, ডিম্বনালী আছে সেটাও দেখানো হয়েছে ওই রিপোর্টে। এটা একটি মারাত্মক বিষয়। তিনি বিধানসভায় এই বিষয়টি তুলবেন বলেও জানিয়ে দেন।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    webnewsdesign.com

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    বিয়ে করাই তার নেশা!

    ২১ জুলাই ২০১৭

    কে এই নারী, তার বাবা কে?

    ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4669