• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    আঙ্গুল ভেঙেছে প্রিয়তির

    অগ্রবাণী ডেস্ক | ১০ মে ২০১৭ | ১:২৪ পূর্বাহ্ণ

    আঙ্গুল ভেঙেছে প্রিয়তির

    শ্যুটিং করতে গিয়ে আঙ্গুল ভেঙে গেছে বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত মিজ আর্থ ইন্টারন্যাশনাল মাকসুদা আক্তার প্রিয়তির। এ কথা তিনি ফেসবুকে জানিয়েছেন। তবে এই কষ্ট তাকে যতটা না ভোগাচ্ছে তার চেয়ে বেশি ভাবনায় ফেলেছে বাংলাদেশের রুপালি পর্দার অভিনেতা-অভিনেত্রীদের অসহায়ত্ব, অবহেলা। কী সেই অবহেলা? প্রিয়তির ফেসবুক পোস্টটি অগ্রগামী পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-


    ”আমি ডান হাতি । যখন এই লেখাটি লিখছি তখন শুধুমাত্র একটি হাত ব্যবহার করে , তাও আবার বামহাত। ছোট এতো টুকুন বাংলা লিখা লিখতে গিয়ে কতো বার মুছতে হয়েছে আর কতো বার ভুল করেছি তা না হয় নাই বগ বগ করলাম। কিন্তু প্রতিবারই তিলে তিলে উপলব্ধি করাচ্ছে আমরা আমাদের শরীরের শুধুমাত্র একটি ছোট্ট অঙ্গহীন কতোটা অসহায় , একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা বা দুর্ঘটনা কিভাবে এক মুহূর্তেই আমাদের সাজালো- গুছানো পরিকল্পিত জীবনকে উলটপালট করে দিতে পারে। এই ভাবনা গুলো যদি আমার মতো সিকিউর জায়গায় বসা একজন মানুষ বলতে পারে , আমি ভেবে কুল পাই না , নিম্নশ্রেণীর বা অল্প আয়ের গরীব মানুষ গুলোর কি অবস্থা হতে পারে ।
    ছবির শুটিং এ ডান হাতে প্রচণ্ড ব্যথা পেয়েছি , বৃদ্ধাঙ্গুলিটা ভেঙ্গেছি। প্রোডাকশন থেকে টিমের প্রতিটা কর্মীর জন্য বীমা করা থাকে তাই কোন ঝামেলা হয়নি , ফ্রি তে যথাযথ ট্রিটমেন্ট হচ্ছে , চলছে। (যা বিরক্ত লাগে তা হলো ঘণ্টার পর ঘণ্টা হাসপাতালে বসে থাকা, নিজ বাচ্চা ও পরিবার থেকে দূরে থাকা। যা আবার এক অর্থে সময় কেটে যাচ্ছে , এই যে বসে বসে লিখছি , জীবনের উলটপালট সময় গুলো কাছ থেকে উপলব্ধি করছি আর দেখছি হাসপাতালে আসা প্রতিটা মানুষ, সবার তো একই কাহিনী, তাই না? কে জানতো কি কারনে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে তাকে আসতে হবে ? )
    উপরের এতো গুলো কথা লিখতে বসলাম হাসপাতালে বসে বসে ইউটিউবে বাংলাদেশী ‘’ যমুনা টিভি চ্যানেল’’ এর একটা রিপোর্ট দেখে। তাদেরকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি এমন একটা বিষয় তুলে ধরার জন্য। রিপোর্টটির মাধ্যমে জানতে পারলাম, বাংলাদেশের সিনেমা শুটিং এর সময় ফাইটারদের জন্য নাকি কোন জীবনবীমা করা থাকে না। তাদের ইন্টার্ভিউ দেখে আমি সত্যি মর্মাহত এবং সাথে হতবাকও যে, তাদের জীবনকে কতোটা অবমুল্লায়্যন ও কতোটা তাচ্ছিল্য করা হয়। একটি ফটোশুট এ পর্যন্ত আমাদের বীমা করা থাকে, আর সেইখানে বড়পর্দার ঐ ফাইটাররা জীবনের এতো ঝুকি নিয়ে কাজ করছে, যেখানে তাদের একজনের শারীরিক ভাবে কিছু হলে পুরো পরিবার অচল, পথে বসার মতো অবস্থা । এমন বেহাল অবস্থা এবং বৈষম্যতা মানতে আসলেই কষ্ট হচ্ছে যেখানে লক্ষ লক্ষ টাকা একটা মুভিতে বিনিয়োগ করা হয় এবং আয় করছেন।
    আমার জানিনা, ফেসবুক এ দেয়া আমার দুইটা কথা কোন কিছুর পরিবর্তন আনতে পারবে কিনা যেহেতু আমি বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের পরিবারের কেও নই। কিন্তু আমি বাংলাদেশ সরকার হস্তক্ষেপ আসা করছি ও চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করবো, যাদের ছাড়া একটি মুভির এক্সস্যান দৃশ্য হতে পারেনা, তাদের জন্য কিছু করতে। যাতে করে ওদের বা ওদের পরিবারের কাউকে পথে বসতে না হয়। আঘাত পেলে যেন তাদের পূর্ণ চিকিৎসা ও পরবর্তী চিকিৎসার ব্যবস্থা থাকে , এই আহবান করছি। ধন্যবাদ ।”[LS]

    ajkerograbani.com

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757