• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    ইন্দোনেশীয় ইউলিয়ানা আর বাংলাদেশি পলাশের প্রেমের আখ্যান!

    অনলাইন ডেস্ক | ০৬ এপ্রিল ২০১৭ | ১০:৪৫ অপরাহ্ণ

    ইন্দোনেশীয় ইউলিয়ানা আর বাংলাদেশি পলাশের প্রেমের আখ্যান!

    ইউলিয়ানা-পলাশ জুটি, যেন ইন্দোনেশিয়া-বাংলাদেশের প্রেমের এক উপাখ্যান। ভিন্ন দেশ, ভাষা, সংস্কৃতি সব ছাপিয়ে প্রথমে তারা ছিলেন দু’জনের একান্ত প্রাণের মানুষ। এখন সফল দম্পতি।


    ইকে ইউলিয়ানা (৩৬) ইন্দোনেশীয়। ভালোবেসে বিয়ে করেছেন বাংলাদেশের পলাশকে। এই দম্পতির ঘরে তিনটি সন্তান। দু’টি ছেলে একটি মেয়ে।


    এখন পলাশকে দিয়েই বাংলাদেশকে চেনেন ইউলিয়ানা। বলছেন, ‘বাংলাদেশ অসম্ভব ভালো। আরো ভালো বাংলাদেশের মানুষ। আর ভালো না হলে কি পলাশের মত, এমন করে এভাবে কেউ ভালোবাসার ঢেউয়ে আমাকে ভাসিয়ে নিতে পারে!

    আমি বলবো,পলাশের ভালোবাসার শক্তিই টেনে নিয়েছে ওর পানে বাংলাদেশের পানে। বলছিলেন ইউলিয়ানা।’ পুরো নাম ইকে ইউলিয়ানা। বাবা এয়ারফোর্সের বড় অফিসার। দুই বোন এক ভাই নিয়ে সুখের সংসার। ছিলেন একটি স্কুলের প্রিন্সিপাল। বেড়ে উঠেছেন ইন্দোনেশিয়ার একটি প্রদেশ বানডুং’এর কপো মার্ঘায়ু সেলাতানে।

    ২০০৩ সালের ঘটনা। জাকার্তায় গেলেন রোটারি ক্লাবের একটি সম্মেলনে। সেখানে যোগ দিতে ঢাকা থেকে উড়ে এসেছেন সিলেটের আরমানুর রহমান পলাশ। বাবা মৃত লুৎফর রহমান। সিলেটের কাজলশাহ এলাকার পলাশ দেশে পড়েছেন ক্যাডেট কলেজে। শৃঙ্খলায় বাঁধা জীবন।
    পরের বছর ইউলিয়ানার শৃঙ্খলে জড়িয়ে গেলেন তিনি। এক বছরের প্রেমের ইনিংস শেষে বিয়ে করলেন ২০০৪ সালে। বধূ করে ইউলিয়ানাকে নিয়ে গেলেন বাংলাদেশে।

    ২০১০ সাল থেকে ইন্দোনেশিয়ায় বসবাস করছেন এই দম্পতি। সেখানে দু’টি ইংরেজি মাধ্যমের স্কুল পরিচালনা করেন তারা। ইকে ইউলিয়ানা জানান,পলাশের মাঝে আমি প্রকৃত ভালোবাসা খুঁজে পেয়েছি। জানি না, স্থানীয় নাগরিককে বিয়ে করলে এত সুখী হতাম কি’না?
    পলাশের সততা, বিশ্বস্ততা আর ভালোবাসাই চিনিয়েছে নতুন এক বাংলাদেশকে।

    এখন আমার স্বজন ও প্রতিবেশীরা ভালোবাসে পলাশকে। পলাশ মানেই ওদের কাছে ভালোবাসার এক বাংলাদেশ। জানান ইকে ইউলিয়ানা।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    webnewsdesign.com

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4669