সোমবার, মার্চ ৩০, ২০২০

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>

ইভটিজার (নারী লোভী) তারেক হোসেন শিপন গ্রেপ্তার ও জেল হাজতে প্রেরণ

বিশেষ প্রতিনিধি   |   সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০ | প্রিন্ট  

ইভটিজার (নারী লোভী) তারেক হোসেন শিপন গ্রেপ্তার ও জেল হাজতে প্রেরণ

চট্টগ্রাম জেলা ফটিকছড়ি উপজেলার ভূজপুর থানার দাঁতমারা ইউনিয়নের হেয়াকো গ্রিন ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজ হতে নারী উত্যক্ত কারী ও নারী লোভী (ইভটিজার) তারেক হোসেন শিপন, বয়স ২৫, পিতা মোশাররফ হোসেন, গ্রাম দক্ষিণ দাঁতমারা, ২নং দাঁতমারা ইউনিয়ন পরিষদ, থানা ভূজপুর, জেলা চট্টগ্রাম।
উপস্হিত জনতা ও স্কুল শিক্ষক এর সহায়তায় গত ১৬/৩/২০২০ দুপুর ১.১০ মিনিট ঘটনাস্থল হতে অাটক করে।
ভূজপুর থানায় খবর দিলে দাঁতমারা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের চৌকস পুলিশ অফিসার ও ইনচার্জ মো. সোহরাওয়ার্দী নেতৃত্বে নারী নির্যাতন কারী নারী লোভী ইভটিজার তারেক হোসেন শিপনকে হাতে নাতে গ্রেপ্তার করে ভূজপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন অাইন ২০০০(সংশোধীত/২০০৩) এর ১০ ধারায়,
মামলা নং ১২, ১৬ /৩/২০ জিঅার ৪৪/২০অাদালতে প্রেরণ করা হয়,
মাননীয় বিজ্ঞ অাদালত জামিন নামঞ্জুর করে নারী লোভী তারেক হোসেন শিপনকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন,
তদন্ত কেন্দ্র ও সামাজিক সূত্র জানা যায় নারী লোভী তারেক হোসেন শিপনের ইভটিজিং ও নারী উত্ত্যক্ত কর্মকান্ডে
গত ০৬/১২/২০১৯ তারিখে জরুরী পুলিশ হট ৯৯৯ লাইনে অভিযোগ করলে দাঁতমারা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সদ্য বিদায়ী পুলিশ অফিসার অাবুল কালাম এর নেতৃত্বে ইভটিজার তারেক হোসেন শিপন ও তার পিতা মোশাররফ হোসেন কে অাটক করে।
উপস্হিত জনতা অভিযোগ করে বলেন, নারী লোভী,নারী নিযার্তন কারী, উশৃংখল তারেক হোসেন শিপন তার সাঙ্গপাংঙ্গরা ইফটিজার তারেক হোসেন শিপনকে অাটক করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করায় দেখে নেওয়া, মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে প্রতিনিয়ত।,
অন্যায়ের প্রতিবাদকারী জনতার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানা ও অাদালতে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করবে বলে অাদালত প্রতিনিধিকে জানায়।
স্হানীয় ইউপি সদস্য ও একাদিক সূত্র জানায়, সামাজিকভাবে শালিস বৈঠকের মাধ্যমে নারী নির্যাতন কারী তারেক হোসেন শিপন ও তার পিতা মোশাররফ হোসেন বয়স ৫৫, পরিবারের সবাই ও সাক্ষীসহ নন জুডেশিয়াল ষ্ট্যাম্পে গত ০৭/১২/২০১৯ (ডিসেম্বরে ২০১৯) অঙ্গীকার নামা প্রদান করে যে।
কখনো কোন মেয়েকে ও যে কোন পরিবারকে কোন ধরণের উত্ত্যক্ত করবেনা। এর পরেও প্রাণহানির হুমকি, এসিড নিক্ষেপ, নারী উত্যক্ত করা, মোটরসাইকেলযোগে পথ রোধ করা, দলবল নিয়ে হাটা, দাঙ্গা করা, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (পেইজ বুকে) মানহানি কর পোস্ট দেয়া চালিয়ে যায়।
পেইজবুকে মানহানি কর পোষ্ট, মেসেঞ্জার ব্ল্যাক মেইল করার কারণে অাইসিটি এক্টে মামলার প্রস্তুতি দিচ্ছে ভিকটিমরা থানা ও সামাজিক সূত্র জানায়।


Posted ১২:১৯ পিএম | সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement