• শিরোনাম

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    ইমদাদ কাকার চলে যাওয়া এবং অব্যক্ত বেদনা

    লিয়াকত হোসেন লিংকন | ০৪ অক্টোবর ২০১৯ | ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ

    ইমদাদ কাকার চলে যাওয়া এবং অব্যক্ত বেদনা

    ‘মৃত্যু’ পৃথিবীর সকল মায়া ত্যাগ করে চলে যাওয়া। মৃত্যু কথাটি উচ্চারণ করতেই মনের ভেতর থেকে একটা অন্য রকম কষ্ট অনুভব হয়। কারও কাছে মৃত্যুর বিষয়টি সহজ, আবার কারও কাছে মৃত্যু অনেক কঠিন। তবে একজন ভাল মানুষ হারানো বেদনা বড় কঠিন। বড় গভীর।-

    তেমনি ফুকরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক কাকার চলে যাওয়ার বিষয়টি কোনভাবে মেনে নিতে পারছিলাম না। তাঁর মৃত্যুর সংবাদ শুনে নিজেকে একজন ‘অস্থিত্বহীন’ মানুষ মনে হচ্ছিল। একজন ভাল মানুষের না ফেরার দেশে চলে যাওয়া মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছিল। বিশ্বাস করতে পারছিলাম না ইমদাদ কাকা আর নেই। মনে হচ্ছে, মৃত্যুটা যেন আমি খুব কাছ থেকে অনুভব করছি। কখনও ভাবিনি ইমদাদ কাকাকে এভাবে অকালে হারাবো।


    তিনি আমার আপন কাকা না। শুধুমাত্র সাংবাদিকতার সুবাদে তাঁর সাথে আমার ভাল সম্পর্ক। তবুও যেন ভালবাসা আর আন্তরিকতার কমতি ছিল না। পেশাগত কাজে ফুকরা ইউনিয়ন পরিষদে গেলে বা পথে কোথাও দেখা হলে হেঁসে দিয়ে খুব আস্তে করে বলতো লিংকন ‘আব্বা’ কেমন আছিস? তাঁর এই আব্বা ডাকের মাঝে খুঁজে পেতাম আমার মরহুম বাবাকে। ইমদাদ কাকার সেই ‘আব্বা’ ডাক বার বার আমার কানে বাজছিল। জানি জানা কোন দিন কেউ এভাবে ‘আব্বা’ বলে ডাকবে কি না। ইমদাদ কাকা ছিলেন অমায়িক ব্যবহারের দৃষ্টান্ত। তিনি অত্যন্ত সদালাপী, সহনশীল ও ধৈর্য্যশীল গুনের অধিকারীর একজন মানুষ ছিলেন। কখনও তাকে উচ্চস্বরে কথা বলতে দেখিনি। দেখিনি কারও প্রতি রাগতে।

    গত ২৪ সেপ্টেম্বর বিকালে চেয়ারম্যান ইমদাদ কাকা বিশেষ প্রয়োজনে আমাকে ফোন করেছিলেন। আমি আমার আরেক সহকর্মীকে নিয়ে ফুকরা বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে গিয়ে দেখা করি। তিনি সঙ্গে সঙ্গে তাঁর এক গ্রাম পুলিশকে ডেকে ডাবল ডিম দিয়ে একটি মুগলাই পরোটা নিয়ে আসতে বলেন। চেয়ারম্যানের কথা মতো ওই গ্রাম পুলিশ ডাবল ডিম দিয়ে একটি মুগলাই পরোটা বানিয়ে আনলেন। আমরা তিনজনে এক সাথে তৃপ্তি সহকারে খেলাম। খাওয়া শেষে বেরিয়ে আসার সময় বললাম- কাকার কাশিয়ানী উপজেলার ১৪ ইউনিয়নের কোন চেয়ারম্যান আমাকে ‘আব্বা’ বলে ডাকে না। আপনি আব্বা বলে ডাকেন কাকা আমার মনটা ভরে যায় বলে চলে আসলাম। তাহলে কি এটাই কি ছিল শেষ আব্বা ডাক শোনা! সেই দিনটার কথা বার বার আমার মনে পড়ছে। তবুও নিয়তির বিধান মানতেই হবে। সকলকে মৃত্যুও স্বাদ গ্রহণ করতে হবে। তবে এই ভেবে শান্ত¡না পাবো আমরা আছি তো একই আকাশের নিচে। পরিশেষে মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করি এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই। দু’হাত তুলে মহান আল্লাহ তা’য়ালার কাছে প্রার্থনা করি, আল্লাহ তায়ালা তাকে যেন জান্নাত নছিব করেন।’

    Comments

    comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী