• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    ঋতুকালীন ছুটি ১০০ বছর আগেই দেয় যে স্কুল

    অনলাইন ডেস্ক | ২২ আগস্ট ২০১৭ | ৭:৫৭ অপরাহ্ণ

    ঋতুকালীন ছুটি ১০০ বছর আগেই দেয় যে স্কুল

    মেয়েদের ঋতুস্রাব চলাকালে অফিসের নারী কর্মী ও স্কুলছাত্রীদের ছুটি দেওয়া হবে কি না, তা নিয়ে বিশ্বে তর্ক-বিতর্ক চলছে। এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ওই সময়ে নারী কর্মীদের সবেতন ছুটি দেওয়ার ঘোষণাও দিয়েছে। এত গেল সাম্প্রতিক সময়ের কথা। কিন্তু এই বিতর্কেরও প্রায় এক শতাব্দী আগে থেকে স্কুলছাত্রীদের এই সুবিধা দিয়ে আসছে ভারতের কেরালার একটি স্কুল।


    সোমবার টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, কেরালার এরনাকুলাম জেলার ত্রিপুনিথুরার একটি সরকারি বালিকা বিদ্যালয় প্রায় ১০০ বছর আগে থেকে ছাত্রীদের ঋতুকালীন ছুটি দিচ্ছে। শুধু ক্লাস নয়, বার্ষিক পরীক্ষার সময়ও ছাত্রীরা ঋতুকালীন ছুটি নিতে পারে। পরীক্ষার সময় ঋতুস্রাব হলে ওই ছাত্রী পরে সেই পরীক্ষা দিতে পারে।

    ajkerograbani.com

    প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯১২ সাল থেকে কেরালার ওই সরকারি স্কুলে ছাত্রী ও শিক্ষিকাদের ঋতুকালীন ছুটি দেওয়ার নিয়ম চালু হয়। এখনো ওই নিয়ম চালু রয়েছে।

    ঐতিহাসিক পি ভাস্করানুন্নি তাঁর ‘কেরালা ইন দ্য নাইনটিনথ সেঞ্চুরি’ বইয়ে বলেছেন, স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছাত্রী ও শিক্ষিকাদের ঋতুকালীন ছুটি দেওয়ার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছিলেন। তাঁর যুক্তি ছিল, ঋতুর সময়ে ছাত্রী ও শিক্ষিকারা স্কুলে উপস্থিত হতে পারেন না। এ কারণে তাদের ওই সময়ে ছুটি দেওয়া যেতে পারে। ১৯৮৮ সালে কেরালা সাহিত্য একাডেমি কর্তৃক প্রকাশিত এই বইটিকে রাজ্যের ঊনবিংশ ও বিংশ শতকের শুরুর দিকের সবচেয়ে বিশ্বাসযোগ্য বই হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

    ওই বইয়ে বলা হয়েছে, শিক্ষা আইন অনুযায়ী, বার্ষিক পরীক্ষা দেওয়ার যোগ্যতা হিসেবে শিক্ষার্থীদের ৩০০ দিন স্কুলে উপস্থিত থাকতে হতো। কিন্তু ত্রিপুনিথুরা বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী ও শিক্ষিকারা ঋতুকালীন সময়ে স্কুলে হাজির হতে পারতেন না। প্রায় মাসেই তারা স্কুলে অনুপস্থিত থাকতেন। এ কারণে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ভি পি বিশ্বনাথ আইয়ার ত্রিশুরের স্কুল পরিদর্শকের কাছে ১৯১২ সালের ১৯ জানুয়ারি ঋতুকালীন ছুটির আবেদন করেন। এর পাঁচ দিন পর ২৪ জানুয়ারি থেকে ওই স্কুলে ঋতুকালীন ছুটি চালুর নিয়ম জারি হয়।

    ‘কেরালা ইন দ্য নাইনটিনথ সেঞ্চুরি’ বইয়ে আরও বলা হয়, ২৪ জানুয়ারি শিক্ষা বিভাগের পরিচালক নির্দেশ জারি করেন, ঋতুস্রাবের কারণে যেসব ছাত্রী বার্ষিক পরীক্ষা দিতে পারবে না, পরে কোনো সময়ে তাদের ওই পরীক্ষা নিতে হবে।

    সরকারি একটি স্কুলে এই নিয়ম চালু হওয়ার প্রায় ১০০ বছর পর সম্প্রতি রাজ্য বিধানসভার অধিবেশনে কংগ্রেসের বিধায়ক কে এস সবরিনাথন নারী কর্মীদের ঋতুকালীন ছুটি মঞ্জুরের জন্য রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করেছেন। এ ব্যাপারে নানা দিক বিবেচনা করে শিগগিরই সরকারের সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে জানিয়েছেন কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4755