• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    এই সেই সেন্টু, যে নেত্রীকে বাঁচাতে হাসি মুখে জীবন দেন

    সংগৃহীত | ২০ আগস্ট ২০১৮ | ৫:১২ অপরাহ্ণ

    এই সেই সেন্টু, যে নেত্রীকে বাঁচাতে হাসি মুখে জীবন দেন

    নেত্রীর জীবন বাঁচাতে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট নিজের জীবন উৎসর্গ করে ছিলেন এই সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, তৎকালীন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ সম্পাদক “মোস্তাক আহম্মেদ সেন্টু”।


    বরিশালের মুলাদী উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের রামারপোল গ্রামের মৃত: আফছার উদ্দিন হাওলাদারের সাত পুত্র ও তিন কন্যার মধ্যে গ্রেনেড হামলায় নিহত “মোস্তাক আহম্মেদ সেন্টু” ছিলেন ষষ্ট।

    ajkerograbani.com

    ছোটবেলা থেকেই অসংখ্য সাহসী ভূমিকায় অবতীর্ন হতে দেখেছি তাকে। একই বিদ্যালয়ের ছাত্র না হলেও আমরা সহপাঠীই ছিলাম, চুরাশির ব্যাচ। কয়েক বছর ইংরেজী প্রাইভেট পড়েছি একই স্যারের কাছে।
    বাসাও একদম কাছাকাছি ছিল। ওরা থাকতো ভাটার খাল সংলগ্ন সিএন্ডবি ষ্টাফ কোয়ার্টারে, ওদের সেই বাসা সম্ভবত এখনও আছে কারন ওর বড় ভাই (বুলবুল ভাই) এখনও ঐ ডিপার্টমেন্টে কর্মরত।
    সহপাঠী এবং একই এলাকার, সেই সুবাদে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিলো পরিবারের প্রায় সকলের সাথেই। একদম ছোট ভাই পিন্টুও ছিল খুব ঘনিষ্ঠ বন্ধু। এত কিছুর অবতারনা তার সাহসী ভূমিকা অবলোকনের প্রেক্ষাপট বোঝাতে।

    এই সাহসী যোদ্ধা জীবনের শুরু থেকেই মুজিবাদর্শের অনুসারী। ছাত্রজীবনে ছন্দপতনের কারনে অল্প কিছুদিন প্রবাস জীবন কাটিয়ে ফেরত এসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান নিয়ে পুরোদমে রাজনীতি শুরু করেন। সাহস, যোগ্যতা ও কর্মদক্ষতায় নিজেকে যোগ্যস্থানে অধিষ্ঠিত করতে বেশী সময় লাগেনি। ঢাকা গেলে, যে সন্ধ্যায়ই দলীয় কার্যালয়ে যেতাম, ওর সাথে দেখা এবং দীর্ঘ আড্ডা ছিলো অবধারিত।

    হে সহযোদ্ধা, জীবন দিয়ে প্রমান করে গেলে নেত্রীর প্রতি, দলের প্রতি তোমার ভালবাসা, দায়িত্ব এবং কর্তব্যবোধ।
    যেখানেই থাকো, ভালো থেকো, এই কামনা।

    পরিশেষে একটাই দাবী সেন্টুর পরিবারের (স্ত্রী ও সন্তান) প্রতি যেন শীর্ষনেতৃবৃন্দ দৃষ্টি রাখেন। তাদের কাছে ওর অভাব কোন কিছুতেই পূর্ন হবেনা, তদুপরি আমাদের করনীয়টুকু যেন আমরা ভুলে না যাই। এটাই প্রত্যাশা।

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757