শনিবার ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কাতারকে প্রথম অলিম্পিক স্বর্ণ এনে দিলেন ইব্রাহিম

ডেস্ক রিপোর্ট   |   রবিবার, ০১ আগস্ট ২০২১ | প্রিন্ট  

কাতারকে প্রথম অলিম্পিক স্বর্ণ এনে দিলেন ইব্রাহিম

কাতারের ইতিহাসের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে গেলেন ফারেস ইব্রাহিম। দেশটির ইতিহাসে প্রথম অলিম্পিক সোনা এনে দিয়েছেন এই ভারোত্তলক। টোকিও ইন্টারন্যাশনাল ফোরামে শনিবার ছেলেদের ৯৬ কেজি ওজন শ্রেণিতে দাপট দেখিয়ে সেরা হয়েছেন তিনি।

মিসরীয় বাবার ছেলে ইব্রাহিম স্ন্যাকে ১৭৭ কেজি এবং ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ২২৫ কেজিসহ মোট ৪০২ কেজি ভার উত্তোলন করেন। তারপর ক্লিন অ্যান্ড জার্কের বিশ্বরেকর্ড ২৩২ কেজি তুলতেও চেষ্টা করেছিলেন তিনি। তবে কোমড় উচ্চতার বেশি উঠাতে পারেননি।


মোট ৩৮৭ কেজি তুলে দ্বিতীয় হয়েছেন ভেনেজুয়েলার কেদোমার ভেলেনিয়া। সিগন্যাল দেয়ার আগেই বার ফেলে দেওয়ায় তার শেষ উত্তোলনটি বাতিল করা হয়। তৃতীয় অবস্থানে থাকা জর্জিয়ার অ্যান্টন প্লিসনই ভেলেনিয়ার সমানই তুলেছেন। কিন্তু ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ভেলেনিয়া এগিয়ে থাকায় তিনিই রৌপ্য জিতেছেন।

এর আগে ২০১৬ সালে রিও ডি জেনেইরো অলিম্পিকে সপ্তম হয়েছিলেন ফারেস। তখন তার বয়স ছিল ১৮। পাঁচ বছর পর অনেকটাই পরিণত হয়ে এসে সোনার দেখা পেলেন তিনি।


এমনিতেও এবারের অলিম্পিকে ফেবারিট ছিলেন ফারেস। কারণ অন্যতম সেরা খেলোয়াড় তিয়ান তাওকে নির্বাচিত করেনি তার দেশ চীন। অন্যদিকে ইরানের সোহরাব মোরাদা চোটের কারণে কোয়ালিফাই করতে পারেননি।

মোরাদা আর তিয়ান মিলেই এই ইভেন্টে তিনটি বিশ্বরেকর্ড দখলে রেখেছেন। তারা না থাকায় এটাই ছিল টোকিও অলিম্পিকের একমাত্র ইভেন্ট যেখানে বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়নকে দেখা যায়নি।

সোনা জেতা ফারেসের বাবা ইব্রাহিম হাসোনা একজন মিসরীয়। তিনি মিসরের হয়ে ১৯৮৪, ১৯৮৮ এবং ১৯৯২ সালে টানা তিন অলিম্পিকে ভারোত্তোলক হিসেবে অংশ নিয়েছেন।

Facebook Comments Box

Posted ২:৫৪ অপরাহ্ণ | রবিবার, ০১ আগস্ট ২০২১

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০