• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    কেন এতো ডিভোর্স?

    অনলাইন ডেস্ক | ২৪ আগস্ট ২০১৭ | ১২:০৪ অপরাহ্ণ

    কেন এতো ডিভোর্স?

    একজন পুরুষ ও একজন নারী মৃত্যুর আগ পর্যন্ত একসাথে থাকার প্রতিজ্ঞা থেকেই বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এই প্রতিজ্ঞা রক্ষা করাই অনেক সময় অনেকের জন্য কঠিন হযে দাঁড়ায়। তখন ডিভোর্সের মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়।


    বর্তমান সময়গুলোতে এ ডিভোর্সের পরিমান বেড়ে যাওয়ায় অনেক প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। অনেকেই মনে করছেন এখনকার সম্পর্কগুলো কি এতোটাই ঠুনকো! যার কারণে অনেক অবিবাহিতরা এখন বিয়েই করতে চান না।

    ajkerograbani.com

    তবে কেউ ডিভোর্স ইচ্ছাকৃত ভাবে নেয় না। পরিস্থিতি বাধ্য করে ডিভোর্স নিতে। জেনে নেওয়া যাক ডিভোর্সের পিছনের কারণগুলো।

    ১. যোগাযোগ
    যে কোনো সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার মূলমন্ত্র যোগাযোগ। এটাই একে অপরের অনুভূতির যোগসূত্র। যোগাযোগে দূরত্ব তৈরি হলে সেই সম্পর্ক ভিতরে ভিতরে মরে যেতে থাকে। যে সমস্যা আলোচনা, খুলে বললে হয়তো মিটে যেতে পারে, সেই সব ছোটখাট সমস্যাই পাহাড় প্রমাণ হয়ে দাঁড়ায়। পরিণতি হয় ডিভোর্স।

    ২. নেশা
    ধূমপান, অ্যালকোহলের প্রতি অতিরিক্ত আসক্তি, নেশা অবসাদ ডেকে আনে। যার প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় পরিবার। নেশাগ্রস্ত স্বামী বা স্ত্রীর সাথে কেউই সংসার করতে চান না। পরিণতি ডেকে আনে ডিভোর্স।

    ৩. অমিল
    অপোজিটস অ্যাট্রাক্ট। প্রেমে পড়ার জন্য এই কথাটা যতটা সত্যি, প্রেম টিকিয়ে রাখার জন্য ততটা কিন্তু নয়। সম্পর্কের শুরুর দিকে নিজের সঙ্গে না মিললেও অপরের পছন্দ আমাদের আকর্ষণ করে। কিন্তু দীর্ঘ সময় তাল রাখা যায় না। তখনই বাড়তে থাকে অশান্তি। যা ডিভোর্সের কারণ হতে পারে।

    ৪. নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা
    অনেকেই মনে করেন স্বামী বা স্ত্রী তার অধিকারের জায়গা। তাদের জীবনের নিয়ন্ত্রণ নিজের হাতে রাখা উচিত। এই মনোভাবের জেরে অন্য জন ক্রমশ দূরে সরে যেতে থাকে। বিরক্তি থেকে বাড়তে থাকে অস্বচ্ছতাও। বেশিরভাগ ডিভোর্সের অন্যতম বড় কারণ এই ব্যবহার।

    ৫. সেন্স অব সেপারেশন
    বিবাহিত জীবনে অনেক রকম অনুভূতি কাজ করে। কখনও আমরা একাত্ম অনুভব করি, কখনও দূরত্ব। এই সব পোলারাইজিং ইমোশন ঘুরে ফিরে আসে। ক্রমাগত দূরে সরে যাওয়ার অনুভূতি সেন্স অব সেপারেশন তৈরি করে। এই সব অনুভূতি ডিভোর্সের কারণ হয়ে উঠতে পারে।

    ৬. আর্থিক সমস্যা
    সারা জীবন আর্থিক অবস্থা এক থাকে না। বিবাহিত জীবনে উত্থান-পতনের সাথে মানিয়ে নিতেই হয়। আগেই আর্থিক বিষয় আলোচনা করে নেয়া উচিত। না হলে অনেক সময়ই আর্থিক অনটন, অস্বচ্ছতা বিচ্ছেদ ডেকে আনতে পারে।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    বিয়ে করাই তার নেশা!

    ২১ জুলাই ২০১৭

    কে এই নারী, তার বাবা কে?

    ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4755