• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    কোটা: অসুস্থ থাকা সত্ত্বেও রিলিজ করে দিলো তারিককে!

    রাবি প্রতিনিধি: | ০৫ জুলাই ২০১৮ | ৯:২১ অপরাহ্ণ

    কোটা: অসুস্থ থাকা সত্ত্বেও রিলিজ করে দিলো তারিককে!

    পতাকা মিছিল গিয়ে ছাত্রলীগের হামলায় আহত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শিক্ষার্থী তরিকুল ইসলাম তারিককে অসুস্থ অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (রামেক) থেকে রিলিজ দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৫ জুলাই) বিকেল চারটায় তারিককে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেওয়া হয় বলে নিশ্চিত করেন তার সহপাঠী মতিউর রহমান। বর্তমানে তাকে রয়েল হসপিটালে ভর্তি করানো হয়েছে।


    মতিউর রহমান বলেন, ‘তরিকুলের অবস্থা ভালো হয়নি। বরং অবনতি হয়েছে। তার পায়ে শুধু ব্যান্ডেজ করা হয়েছে, এখনো প্ল্যাস্টারও হয়নি। সারারাত ব্যথায় কেঁদেছে। পা নড়াতেই পারছে না। এ অবস্থায় তাকে রিলিজ দেওয়া হলো।’


    তিনি আরো বলেন, ‘বিকেল চারটার দিকে রামেক থেকে পুলিশের কাছে তারেকের রিলিজপত্র দেওয়া হয়। পুলিশই তাকে ভর্তি করেছিল তাই। খুব সম্ভবত পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতো। পরে গ্রেপ্তার না করে আমাদের হাতে তুলে দেয়। বিকেল পাঁচটার দিকে আমরা বন্ধুরা মিলে তাকে রয়েল হসপিটালে ভর্তি করেছি। এখনো তার চিকিৎসা শুরু হয়নি’।

    হাসপাতালে দেখা করতে গেলে আহত তারিক কাতরাতে কাতরাতে বলেন, ‘আমি একা উঠে বসতে পর্যন্ত পারি না। বেশিক্ষণ বসে থাকতেও পারি না আবার শুয়ে থাকতেও পারি না। সারা শরীরে এমন ব্যাথা যে, একটু পরপরই মনে হচ্ছে মরে যাব। এই অবস্থায় আমাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ করে দেয়া হচ্ছে কেন বুঝতে পারছি না।’

    তারিকের বড় ভাই তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ‘প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করানোর সামর্থ্য আমাদের পরিবারের নেই। এখন পর্যন্ত ওর (তারিকের) বন্ধুরা বিভিন্ন জায়গা থেকে অর্থ সংগ্রহ করে চিকিৎসা চালিয়েছে। ’

    তারিকের এক্স-রে রিপোর্টে দেখা যায়, তারিকের ডান পা পুরোপুরি ভেঙে গেছে। এছাড়া মাথায় নয়টি সেলাই দেওয়া হয়েছে।

    এর আগে অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের প্রধান এমএকে শামসুদ্দিন জানিয়েছিলেন, ‘তার ভাঙা হাড় জোড়া লাগতে অন্তত তিন মাস সময় লাগবে। চার সপ্তাহ পায়ের প্লাস্টার রাখা হবে। তার সারা শরীরে যন্ত্রণা হচ্ছে। এখন সম্পূর্ণ বিশ্রাম দরকার।’

    তরিকুল বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম-আহ্বায়ক। তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তার তত্ত্বাবধায়নে ছিলেন ডা. সুব্রত কুমার প্রামাণিক।

    ২ জুলাই বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কে পতাকা মিছিল বের করলে রামদা, লোহার রড, হাতুড়ি ও বাঁশের লাঠি দিয়ে হামলা করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী।

    হামলার ছবি ও ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান মিশু, লতিফুল কবির মানিক, সহ-সভাপতি গোফরান গাজী, মিজানুর রহমান সিনহা, রমিজুল ইসলাম রিমু, সাদ্দাম হোসেন, আহমেদ সজীব, ছানোয়ার হোসেন সারোয়ার, আরিফ বিন জহির, সাংগঠনিক সম্পাদক সাবরুল জামিল সুস্ময়, হাসান লাবন, ইমতিয়াজ আহমেদ, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক আসাদুল্লাহ হিল গালিব, কর্মী জন স্মিথ ও রাশেদ খান একযোগে আক্রমণ চালায়।

    তবে এ বিষয়ে ডা. সুব্রত কুমার প্রামাণিক এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এ অবস্থায় রিলিজ দেওয়ায় সন্দেহ ও আশঙ্কা প্রকাশ করে তরিকুলের একাধিক সহপাঠী। অন্যদিকে এখন অবধি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এবং বিভাগের কেউই তরিকুলকে দেখতে যাননি বলেও জানান মতিউর। বন্ধুদের টাকায় তরিকুলকে রয়েল হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছে।

    এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘আমরা চিকিৎসকের ওপর দিয়ে কোনো কথা বলতে পারবো না। তারা যদি তরিকুলকে রিলিজ দেয়, তাহলে দিবে। এটা তো ডাক্তারেরই কাজ। তারা যা ভাল মনে করেন তাই করবেন।’

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4673