• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    খাবার পরিবেশনে শিল্পী মনের প্রকাশ

    অনলাইন ডেস্ক | ০৩ মে ২০১৭ | ৬:৪১ অপরাহ্ণ

    খাবার পরিবেশনে শিল্পী মনের প্রকাশ

    খাবারে শুধু পেট ভরলে চলে না, কখনো কখনো মনও ভরতে হয়। খাবার পরিবেশনে তাই থাকা চাই নান্দনিকতা। যেনতেনভাবে পরিবেশিত খাবার কারও কাঙ্ক্ষিত নয়। এতে ভোক্তার রুচির ঘাটতি দেখা দিতে পারে। খাবারের টেবিল সাজাতে সর্বাধুনিক ও কার্যকর পদ্ধতি হলো ‘ফুড কার্ভিং’। ভিন্ন ভিন্ন সবজি ও ফলের কার্ভিং করে খাবারের প্লেট সাজিয়ে প্রকাশ করতে পারা যায় শিল্পী মনের প্রকাশটাও। এখন জেনে নেয়া যাক কার্ভিং কী? কার্ভিং হচ্ছে মূলত খোদাই করা। আর ফুড কার্ভিং হচ্ছে সবজি ও ফলের ওপর শিল্পের অাঁচড় কেটে খাবারের প্রতি অতিথিকে আকৃষ্ট করার একটি কার্যকর কৌশল। কেননা, অতিথিকে খাবারে আকৃষ্ট করে রাখতে খাবার পরিবেশনে গুরুত্ব দিতেই হবে। ফুড কার্ভিং খাবার পরিবেশনে সৌন্দর্য বাড়ায়। রান্না মজাদার করার পাশাপাশি ফুড ফ্যাক্টরি এমনকি গৃহিণীদের কাছেও কার্ভিং এখন বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।


    রান্নার পাশপাশি পরিবেশনাও গুরুত্বপূর্ণ । হাতের কাছের শাক-সবজি দিয়েই সাজাতে পারেন খাবার টেবিল। মজাদার রান্নার পাশে একটা আস্ত তরমুজের ফুল বা মুলার হাঁস অনায়াসেই সাঁতরে বেড়াবে টেবিলজুড়ে! শাক-সবজির কয়েক রকম সাজগোজ দেখিয়েছেন কাতার এয়ারওয়েজের শেফ মো. বিল্লাল হোসেন

    ajkerograbani.com


    তরমুজ কার্ভিং

    তরমুজ কার্ভিং

    উপকরণ
    ১টি তরতাজা তরমুজ,
    লেটুসপাতা,
    পার্সেলি,
    শেফ ছুরি,
    কার্ভিং ছুরি ও
    কাটিং বোর্ড।

    প্রণালি
    প্রথমে তরমুজ এক পাশ সমান করে কেটে নিন, যাতে বসানো যায়। ওপরের খোসা ছিলে ফেলুন। পাশে একটি বৃত্ত এঁকে কেটে নিন। এখন বৃত্তের মাঝে গোল করে ছোট একটি গর্ত কেটে নিন। বৃত্তের বর্ডারের এক পাশে একটি দাগ কাটুন। দাগের এক পাশ থেকে একটু কেটে ফেলুন। এভাবে পুরো বৃত্তটি কাটুন। এখন চারপাশে পাপড়ি কাটুন, পাপড়ির মাথাগুলো জিগজ্যাগ করে কেটে নিন। দুই পাপড়ির মাঝখানের পেছনের অংশ কেটে ফেলুন। দুই পাপড়ির মাঝে মাঝে পাপড়ি কাটুন। এভাবে দুই লেয়ার কাটার পর আরেকটি ছোট বৃত্ত কেটে নিন। তারপর নিচ থেকে জিগজ্যাগ করে কেটে লেটুসপাতা, পার্সলি ও ফুল দিয়ে সাজিয়ে ফেলুন।


    মুলার ডালিয়া ফুল

    মুলার ডালিয়া ফুল

    উপকরণ
    মোটা মুলা ১ টুকরা,
    গাজর ১টা,
    লেটুসপাতা,
    শেফ ছুরি,
    কার্ভিং ছুরি ও
    কাটিং বোর্ড।

    প্রণালি
    ১টি মোটা মুলা থেকে ৩ ইঞ্চি লম্বা করে ১ টুকরা কেটে নিন। ওপরের চামড়া তুলে ফেলুন। এখন এক পাশ একটু চিকন করে কেটে নিন, যাতে ওপরের অংশ একটু মোটা ও নিচের অংশ চিকন থাকে। ওপর থেকে নিচের দিকে চিকন লম্বা করে পাপড়ি কাটুন। প্রথম রাউন্ড (চারপাশ) কাটা হলে কার্ভিং ছুরি দিয়ে সমান করে আবার চারপাশ কাটুন। আবার দুটি পাপড়ির ফাঁকে ফাঁকে একইভাবে কাটুন। এভাবে ধীরে ধীরে পুরোটা কেটে ফেলুন। গাজরের মোটা অংশ দিয়ে একটি গোল ফুল কেটে ফেলুন। বাকি অংশটুকু দিয়ে লম্বা করে তিন পিস কেটে নিন, তার পাতা কেটে নিন। সবগুলো কিছুক্ষণ ঠান্ডা বরফ পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এবার লেটুসপাতা দিয়ে সাজিয়ে টেবিলে রেখে দিন।


    মিষ্টিকুমড়ার ফুলের ঝুড়ি

    মিষ্টিকুমড়ার ফুলের ঝুড়ি

    উপকরণ
    ১টি ছোট মিষ্টিকুমড়া,
    ১টি মুলা,
    ৩টি গাজর,
    লেটুসপাতা,
    পার্সলি,
    টুথপিক ৪টি,
    শেফ ছুরি,
    কার্ভিং ছুরি,
    কাটিং বোর্ড ও
    পিলার।

    প্রণালি
    প্রথমে মিষ্টিকুমড়ার চামড়া পিলার বা ছুরি দিয়ে ছিলে ফেলুন। ওপরের মাথাটুকু কেটে নিন। তারপর চিহ্নিত করে ধীরে ধীরে কাটুন। ভেতরের বিচি চামচ দিয়ে তুলে ফেলুন। এখন ২টি গাজর ছিলে ধীরে ধীরে নিচ থেকে ওপরের দিকে ছোট ছোট পাপড়ি কাটুন, যাতে খেজুরগাছের মতো হয়। আরেকটি গাজর দিয়ে পাতা ও ফুল কাটুন। মুলা দিয়ে ৫টি পাপড়ির ফুল কাটুন এবং মোটা অংশ দিয়ে আরেকটি সূর্যমুখী ফুল কেটে হলুদ রং করে নিন। এখানে খাবার রং ব্যবহার করা ভালো। মুলার পাঁচ পাপড়ির ফুলের জন্য গাজর দিয়ে চোখা লম্বা করে কেটে ফুলের মাঝে গেঁথে দিন। এখন লেটুসপাতা, পার্সলি ও টুথপিক দিয়ে ফুল গেঁথে সাজিয়ে ফেলুন।


    মুলার হাঁস

    মুলার হাঁস

    উপকরণ
    ১টি মোট সাদা মুলা,
    ১টি গাজর,
    কার্ভিং ছুরি,
    কাটিং বোর্ড,
    লেটুসপাতা,
    কালো গোলমরিচ ও
    ১টি টুথপিক।

    প্রণালি
    মুলার মোট অংশ পাঁচ ইঞ্চি লম্বা করে কেটে নিন। এখন পেনসিল দিয়ে মার্ক করে নিন। প্রথমে গলা কেটে নিন। তারপর পাখা কেটে নিন, পাখার দুই পাশে পাপড়ি কাটুন, যাতে দেখতে হাঁসের পালকের মতো হয়। এখন মুলার বাকি অংশ থেকে ছোট দুটি বর্গাকার টুকরা নিয়ে গোল করে ডিম কেটে নিন। গাজরের চিকন অংশ দিয়ে চার পাপড়ির দুটি ফুল কেটে নিন। গাজর দিয়ে ঠোঁট কেটে নিন, টুথপিক দিয়ে লাগিয়ে ফেলুন। এখন দুই পাশ ছিদ্র করে গোলমরিচ দিয়ে চোখ লাগিয়ে ফেলুন। কিছুক্ষণ ঠান্ডা বরফ পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এখন লেটুসপাতা দিয়ে সাজিয়ে ফেলুন।


    মিষ্টিকুমড়ার পেঙ্গুইন

    মিষ্টিকুমড়ার পেঙ্গুইন

    উপকরণ
    মিষ্টিকুমড়া ছোট বাঁকা ২টি,
    মুলা ১টি,
    গাজর ১টি,
    লেটুস
    পার্সলি,
    কার্ভিং ছুরি,
    শেফ ছুরি,
    পিলার,
    কাটিং বোর্ড ও
    কালো গোলমরিচ।

    প্রণালি

    প্রথমে কুমড়ার নিচের অংশ একটু সমান করে কেটে নিন, তারপর খোসা ছিলে ফেলুন। এখন নিচ থেকে ওপরের দিকে কার্ভিং ছুরি দিয়ে ছোট ছোট পাপড়ির মতো করে পশম কাটুন। তারপর বরফ পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এখন গাজর দিয়ে ঠোঁট কেটে টুথপিক দিয়ে মাথায় লাগিয়ে নিন। মুলা ও গাজর দিয়ে ফুল কেটে নিন। পেঙ্গুইনের মাথায় গোলমরিচ দিয়ে চোখ লাগিয়ে নিন। এখন লেটুস ও পার্সলি দিয়ে সাজিয়ে ফেলুন।


    পুষ্পস্তবক

    পুষ্পস্তবক
    উপকরণ: মুলা ২টি, গাজর ২টি, বিট রুট ১টি, পার্সলি, লেটুস, টুথপিক, কাটিং বোর্ড, কার্ভিং ছুরি, শেফ ছুরি ও ফুড কালার।
    প্রণালি: প্রথমে মোটা মুলা থেকে পাঁচ ইঞ্চি লম্বা করে কেটে নিন। প্রথমে মাথা ও গলা, তারপর পাখা কেটে নিন, পাখার মধ্যে পালকের মতো করে কেটে ঠান্ডা বরফ পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এখন মুলা দিয়ে গোলাপ ফুল কেটে নিন, মুলা দিয়ে পাঁচ পাপড়ির সূর্যমুখী ফুল কেটে নিন। গাজর থেকে ১ ইঞ্চি টুকরা নিয়ে গোল করে কেটে নিন। তারপর নিচে পাঁচটি পাপড়ি কাটুন, পাপড়ির পেছনের অংশ কেটে নিন। আবার গোল করে দুটির ফাঁকে ফাঁকে পাপড়ি কাটুন। এভাবে সম্পূর্ণটা কেটে গোলাপ ফুল বানান। একইভাবে মুলার ফুলগুলো কাটুন। তারপর ফুড কালার দিয়ে রং করে নিন। আরেকটি গাজর দিয়ে পাতা কেটে নিন। এখন লেটুস ও পার্সলি প্লেটে সাজিয়ে মাঝে মুলার হাঁস বসিয়ে চারপাশ ফুল দিয়ে সাজিয়ে ফেলুন। এখন খাবার টেবিলের পাশে সাজিয়ে ফেলুন।

    কার্ভিং একটি শৈল্পিক কাজ বলে কার্ভিংম্যানের থাকতে হবে সুন্দর মন। সুন্দর মন মানেই শিল্পী-মন। এ জন্য শুরুর আগেই করে নিতে হবে পরিকল্পনা। এটা বার বার চেষ্টা করতে হবে। নতুন কিছু দেখে সেটা কার্ভিংয়ের চেষ্টা করতে হবে। একটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, কার্ভিংয়ের সময় যেন সব উপকরণ হাতের নাগালে থাকে।
    কার্ভিং করতে চাই নিখুঁত উপকরণ। কিছু কিছু সবজি ও ফল একেবারে নরম থাকে। তাই সেগুলোর জন্যও চাই আলাদা নাইফ। কার্ভিংয়ের সরঞ্জাম সাধারণত এক সঙ্গে কিনতে পাওয়া যায় না। আলাদাভাবে সব উপকরণ সংগ্রহ করতে হবে। বিভিন্ন কুকারিজ স্টল ও চেইন শপে খোঁজ করতে হবে কার্ভিং উপকরণ।

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757