• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    খুঁটিতে বেঁধে নির্যাতন, ছনখেত থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধার

    অনলাইন ডেস্ক | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ৭:১৬ অপরাহ্ণ

    খুঁটিতে বেঁধে নির্যাতন, ছনখেত থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধার

    ময়মনসিংহের গৌরীপুরে খুঁটিতে বেঁধে নির্যাতনে নিহত কিশোর সাগর ওরফে টোকাই সাগরের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ মঙ্গলবার গৌরীপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলের পাশেই একটি ছনখেত থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে। হত্যার শিকার ১৬ বছর বয়সী সাগর ময়মনসিংহ শহরের শিববাড়ি রেল লাইন বস্তির বাসিন্দা ছিলো।


    গতকাল তাকে গৌরীপুরে পিটিয়ে হত্যার পর মৃতদেহ গুম করা হয়।খবর পাওয়ার পর মৃত সাগরের বাড়ি শিববাড়ি বস্তিতে চলছে শোকের মাতম। পরিবারের লোকজন বলছেন, খুন হওয়া কিশোর সাগর টোকাই শ্রমিকের কাজ করতো। তার বাবা শিপন নেশাগ্রস্থ। সাগর পাঁচ ভাই ও দুই বোনকে নিয়ে ময়মনসিংহ শহরের শিববাড়ি রেল লাইন বস্তিতে একটি ঝুপড়ি ঘরে বসবাস করতো।


    টোকাই পেশাবৃত্তির আয় দিয়ে মায়ের উপার্জনের সাথে সমন্বয় করে জীবন কাটাতো অতিকষ্টে। গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেলোয়ার আহাম্মদ জানান, মরদেহ উদ্ধারের পর গৌরীপুর থানায় আনা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।ওসি বলেন, পরিবার থেকে মামলা দিলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। সোমবার সকালে গৌরীপুর উপজেলার ডৌহাখলা ইউনিয়নের চর শিরামপুর গ্রামের আক্কাস আলী, তার ছেলে ও ভাইয়েরা মিলে চুরির অপরাধে সাগরকে পিটিয়ে হত্যা করে লাশ ছনখেতে গুম করে রাখে। আজ সকালে পুলিশ সেই লাশ উদ্ধার করেছে। আক্কাস আলী স্থানীয় আওয়ামী লীগের সক্রিয় কর্মী। ঘটনার পর থেকেই আক্কাস আলী ও তার পরিবারের সদস্যরা পালিয়েছে। পুলিশ তাদের ধরার চেষ্টা করছে।

    যে ভাবে হত্যা করা হয় সাগরকে: চোর সন্দেহে সোমবার ভোরে সাগরকে আটক করেন আক্কাস আলি ও তার পরিবারের সদস্যরা। তিনি পরিত্যক্ত গাউসিয়া ফিশারির মালিক। ফিশারির সাইনবোর্ডের খুঁটির সাথে বেঁধে সাগরকে আক্কাস আলি ও তার পরিবারের সদস্যরা লাঠিসোটা ও গাছের ডাল দিয়ে বেধড়ক পিটুনি দেন। এসময় তার শরীর বেয়ে ফোাঁয় ফোঁটায় রক্তের ধারা নেমে এসে ভিজিয়ে দেয় মাটি। পরে মৃত জেনে হাসপাতালের নেওয়ার কথা বলে সাগরের লাশ একটি অটোতে করে তুলে নিয়ে যায় অজানা স্থানে। সুযোগ বুঝে আবার ফিরে এসে ঘটনাস্থলের পাশেই ছনখেতে রাখে। সেখানেই মাটিচাপা দিয়ে লাশ গুম করেন আক্কাস আলী।

    পুলিশ আজ সকালে অভিযান চালিয়ে ছনক্ষেত থেকে সাগরের লাশ উদ্ধার করে।কিন্তু প্রত্যক্ষদর্শীরা এসব কথা জানালেও নিষ্ঠুর ও প্রভাবশালী আক্কাস আলীর ভয়ে তাদের নাম প্রকাশ না করার শর্ত দিয়েছেন সবাই। এ বিষয়ে ডৌহাখলা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও ইউপি মেম্বার আবুল কালাম বলেন, হ্যা, তিনি ঘটনাটি শুনেছেন কিন্তু যাকে মারধরা করে হত্যা করা হয়েছে তাকে এলাকার কেউ চেনে না। সে বহিরাগত। ডৌহাখোলা ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চেয়ারম্যান শহিদুল হক সরকার বলেন, ভোর পাঁচটায় এক যুবক আমাকে ফোন করেছিল। সন্ধ্যায় সে সরাসরি তাকে ঘটনাটি জানিয়েছেন। অনেকের মোবাইল ফোনে খুঁটিতে বাঁধা রক্তাক্ত শরীর মাথা নিচে হেলে পড়া ছবিটি তিনিও দেখেছেন। তাতে মনে হয়েছে সে মৃত, যোগ করেন শহীদুল। ঘটনার পর থেকেই আক্কাস আলী ও তার পরিবারের সদস্যরা পলাতক বলেও জানান ওসি।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4673