শনিবার ৩১শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

গর্ভেই ২ সন্তানের মৃত্যু হয় কাজলের

ডেস্ক   |   বৃহস্পতিবার, ০৯ জানুয়ারি ২০২০ | প্রিন্ট  

গর্ভেই ২ সন্তানের মৃত্যু হয় কাজলের

বলিউডের অন্যতম রিয়েল লাইফ জুটি কাজল ও অজয় দেবগণ। ২০ বছর ধরে একসঙ্গে পথ চলছেন দেবগণ দম্পতি। এত বছরেও এতটুকু ফিকে হয়নি তাদের সম্পর্কের রসায়ন। নিজেদের ইমেজেও কোনও রকম আঁচ লাগতে দেননি তারা।
খবর জি নিউজ এর।
বহু বছর পর ফের জুটি বেঁধে ফিরছেন বড় পর্দাতেও। রিয়েল লাইফের জুটির ব্যকরণ এবার রিল লাইফে দেখার অপেক্ষায় মুখিয়ে রয়েছেন দর্শকরা।
আগামী শুক্রবার, ১০ জানুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে ‘তানাজি: দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’। ছবির নাম ভূমিকায় রয়েছেন অজয়। আর তানাজির স্ত্রীর চরিত্রে দেখা যাবে কাজলকে।
জীবনের এমন একটা গুরুত্বপূর্ণ ছবি রিলিজের আগে অজয়ের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ খুললেন কাজল। দীর্ঘ একটি পোস্টে কাজল লিখেছেন, ২৫ বছর আগে তাদের দেখা হয়েছিল ‘হলচাল’-এর সেটে।
তারপর কীভাবে অজয়ের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব হয়… কীভাবে সম্পর্ক গড়ে ওঠে সবটাই খোলসা করেছেন তিনি।
অজয়ের বাড়ি ছিল জুহুতে, আর কাজল থাকলেন দক্ষিণ বম্বেতে। ফলে দু’জনের সম্পর্ক বেশিরভাগটাই গড়ে উঠেছিল গাড়িতে। কখনও কেউ কাউকে প্রপোজ করেননি। নিজেরা বুঝেই গিয়েছিলেন যে এবার সম্পর্কটায় পরিণতি দেওয়ার সময় এসেছে। বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন নয়ের দশকের হিট নায়ক-নায়িকা। কিন্তু বেঁকে বসেছিলেন কাজলের বাবা। মেয়ের সঙ্গে ৪ দিন কথা বলেননি তিনি। কিন্তু মেয়েও নাছোড়বান্দা। অবশেষে বিয়ে হল। সংবাদমাধ্যমের চোখে ধূলো দিয়েছিলেন অন্য জায়গার ঠিকানা দিয়ে। প্রথমে পাঞ্জাবী, পরে মারাঠি মতে বিয়ে হয় অজয়-কাজলের। এত লম্বা বিয়ে চলছে দেখে অজয় পুরোহিতকে বারবার বলেছিলেন তাড়াতাড়ি সাত পাক শেষ করতে। এমনকি এর জন্য পণ্ডিতকে ঘুষও দিতে চান অজয়।
কাজলের বরাবরের ইচ্ছে ছিল লম্বা হনিমুনের। প্রথমে সিডনি তারপর হাওয়াই, লস অ্যাঞ্জেলস…ততদিনে ৫ সপ্তাহ কেটে গেছে। ফেরার নামই করছেন না কাজল। শেষে উপায় না দেখে নববধূকে অজয় বলেন, ‘বেবি, বুক মি অন দ্য নেক্সট ফ্লাইট হোম। ’ অজয়ের শরীর খারাপ হওয়ায় শেষ পর্যন্ত মিশরের পরিকল্পনা বাতিল করেই ফিরে আসেন তারা।
এরপরেই বাচ্চা নেওয়ার কথা ভাবতে শুরু করেন অজয়-কাজল। ‘কাভি খুশি কাভি গাম’-এর সময় প্রেগন্যান্ট হয়ে পড়েন কাজল। কিন্তু যেদিন ‘কাভি খুশি কাভি গাম’ মুক্তি পেল। সেদিন হাসপাতালের বেডে নায়িকা। মিসক্যারেজ হয় গিয়েছে। ছবি খুব ভাল ব্যবসা করলেও দিনটা ছিল খুব কঠিন। এরপর ফের একবার মিসক্যারেজ হয়ে গিয়েছিল কাজলের। শেষ পর্যন্ত নাইশা আর যুগ আসে তাদের জীবনে। এখন দেবগণ দম্পতি নিজেদের কোম্পানি শুরু করেছেন। অজয় নিজের ১০০তম ছবি করছেন। একে অপরের খেয়াল রাখেন । কিন্তু এখনও মিশর ট্যুরটা বাকি আছে।

Facebook Comments Box


Posted ২:০৬ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৯ জানুয়ারি ২০২০

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ