• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    গাছে পাওয়া গেল লাশ, হত্যা না আত্নহত্যা?

    আসিফ হাসান কাজল : | ৩০ আগস্ট ২০১৭ | ১০:৪৪ অপরাহ্ণ

    গাছে পাওয়া গেল লাশ, হত্যা না আত্নহত্যা?

    গত ২৮ আগস্ট সোমবার মাগুরা মোহাম্মদপুর উপজেলার বাসো গ্রামের মৃত মোঃ আনোয়ার হোসেন(৪৪) এর লাশ মৃত্যুর ৩৬ দিন পর পূন:ময়না তদন্তের জন্য কবর থেকে উত্তলন করা হয়েছে। দুপুরে মহম্মদপুরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট চৌধুরী রওশন ইসলাম এর উপস্থিতিতে এ লাশ উত্তোলন করে পুনঃ ময়না তদন্তের জন্যে মাগুরা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ সময় মাগুরা মোহাম্মদপুর থানার ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম সহ একাধিক পুলিশ গোয়েন্দা সদস্য উপস্থিত ছিলেন।
    লাশ উত্তলনের সময় মৃত আনোয়ার এর নিজ গ্রাম পরিদর্শন, স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে ও পুলিশ সূত্রে ক্রাইম সিনের তথ্য ও ছবি দেখে জানা যায়, গত ২৩ জুলাই আনোয়ার হোসেন কে গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় মৃত শরীরে একটি গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।
    ময়না তদন্ত রিপোর্ট এ আত্নহত্যা করেই আনোয়ার হোসেন মারা গিয়েছেন এই ফলাফল আসায় তার পরিবার ও বিস্মিত হন! পূনঃময়না তদন্তের পূর্বে তার পরিবার আমার সাথে যোগাযোগ করে ঘটনা খুলে বলেন।
    এই মৃত্যুর ব্যাপারে অনুসন্ধান করে জানা যায় ঐ দিন রাতে মৃত আনোয়ার হোসেন ও তার স্ত্রী রাতে বারান্দায় ঘুমিয়ে ছিলেন। তার পাশের কক্ষে তার মেয়ে গভীর রাতে ধস্তাধস্তির শব্দ শুনতে পেলেও ভয়ে বের হন নাই। পরে সকাল বেলায় আনোয়ারকে গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় যদিও বা তার পা মাটির সাথেই লেগে ছিল। স্থানীয় একাধিক ব্যাক্তির সাথে কথা বলে জানা যায় আনোয়ার হোসেন এর চাচার সাথে জমি নিয়ে বিরোধ ছিল। এবং তার পোস্ট- মর্টেম এ তার পায়ে গভীর ক্ষত চিহ্ন ও পুরুষাঙ্গ তে আঘাত দেখতে পাওয়া যায়।
    ময়না তদন্ত মাগুরা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মোক্তাদুর রহমান সহ আরো ২ জন ডাক্তার মমতাজ মজিদ ও ডাঃ দেবাশিস বিশ্বাস এর সমন্বয়ে রিপোর্ট করা হয় বলে হাসপাতাল রেকর্ড থেকে জানা যায়। এই ব্যাপারে মৃত ব্যাক্তির পরিবার আরও দাবী করে বলেন, পুরুষাঙ্গ তে আঘাত এর যে চিহ্ন দেখা যায় ডাক্তার প্রথমে তা লিখেন নাই,পরে আত্নীয় স্বজন এর আকুতিতে পোস্ট- মর্টেম রিপোর্ট এ এই তথ্য সংযুক্ত করা হয়।
    এই ব্যাপারে গত রাতে ডাঃ মোক্তাদুর রহমান এর সাথে যোগাযোগ করা হয়। উক্ত ময়না তদন্তে তার সহকারী হিসাবে আরও যে দুই জন চিকিৎসক উপস্থিত ছিলেন তাদের নাম জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন- তাদের নাম মনে পড়ছে না। অতঃপর চিকিৎসক মমতাজ মজিদ ছিলেন কিনা এই প্রশ্ন করতেই তিনি বলেন,বেশ কিছু দিন আগের কথা তাই সে ছিল কিনা বলতে পারবো না। এই ব্যাপারে মমতাজ মজিদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল বন্ধ থাকায় যোগাযোগ সম্ভব হয়নাই।
    ঘুমন্ত ব্যাক্তি হঠ্যাৎ ঘুম থেকে উঠেই কিভাবে আত্নহত্যা করে! তার পায়ে আঘাত এর লম্বা দাগ থাকা কি তার,সারভাইভ এর প্রমান করে না এই প্রশ্নের উত্তরে ডাঃ মোক্তাদুর রহমান বলেন, অনেক সময় গলায় ফাঁস নিলে বাচাঁর জন্য মানুষ চেষ্টা করে,তাই হইত হয়েছে এমন ভাবে পায়ে ক্ষত সৃষ্টি হয়েছিল।
    পুরুষাঙ্গ এর গভীর আঘাত কি যথেষ্ট প্রমান করে না এটি হত্যা আত্নহত্যা নয় এই প্রশ্নের উত্তরে – “আঘাতটি এতটা গভীর ছিল না, আমার মনে হয়েছে আত্নহত্যা তাই রিপোর্ট এ আত্নহত্যা লেখা হয়েছে “বলে জানিয়ে দেন।
    এ এছাড়াও তার গলায় পেচানো গামছাটি তার নিজের নয় বলে তার স্ত্রী, মেয়ে ও পরিবার নিশ্চিত করে বলেন, তার নিজের গামছা টি নিজ বাড়িতেই ছিল বলে জানা যায়।
    নাম প্রকাশ না করার শর্তে, মাগুরা জেলা পুলিশের এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, সব আলামত দেখে এই মৃত্যু কে কোন ভাবেই আত্নহত্যা বলা যায় না।
    এই কেসের ব্যাপারে অভিযুক্ত মৃত ব্যাক্তির চাচা আউয়াল মোল্লা (৫৫) তার বড় ছেলে আতিতার মোল্লা (৩৭) ও ছোট ছেলে আজিজার মোল্লা (৩০)এর প্রত্যেকের মোবাইল বন্ধ থাকায় মাগুরা গোয়েন্দা শাখা অফিস ইনচার্জ নাসির উদ্দিন কে জানানো হলে তিনি বলেন, তাদের নম্বর বন্ধ কিনা তা আমরা এখনো ক্ষতিয়ে দেখিনাই, আমরা ২য় ময়না তদন্তের রিপোর্ট এর জন্য অপেক্ষা করছি, এর ফলাফল এর পরিপেক্ষিতে আমাদের তদন্ত শুরু হবে।
    গতকাল মাগুরা সদর হাসপাতালের ৪ জন চিকিৎসক -ডাঃ শফিউর রহমান, ডাঃ অমর প্রসাদ, ডাঃপরিক্ষীত পাল ও ডাঃ মাসুর কবিরের সমন্বয়ে দ্বিতীয় ময়না তদন্ত সম্পূর্ণ হয়েছে।


    Facebook Comments


    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4755