• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    গোপালগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপির প্রার্থী যারা

    নিজস্ব প্রতিবেদক: | ১১ জুন ২০১৭ | ১১:২১ অপরাহ্ণ

    গোপালগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপির প্রার্থী যারা

    জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গোপালগঞ্জের ৩টি আসনে স্বাধীনতার পর থেকেই আওয়ামী লীগ নির্বাচিত হয়ে আসছে। তবে ‘৯৬ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে একজন বিএনপি ও একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছিলেন। যার মেয়াদ ছিল মাত্র ২১ দিন।
    গোপালগঞ্জের ৩টি আসনেই বিএপির তেমন কোন সাংগঠনিক কার্যক্রম নেই। দলে কর্মী না থাকলেও গ্রুপ রয়েছে চারটি। অভ্যন্তরীণ কোন্দলে দ্বিধা-বিভক্ত হয়ে পড়েছে গোপালগঞ্জ জেলা বিএনপি। চার দলীয় জোট সরকার ক্ষমতা ছাড়ার পর থেকেই মূলত: বিএনপি’র কোন্দল শুরু হয়। ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে জেলা কমিটির মেয়াদ। দূর্বল নেতৃত্বের কারণে দলে মূল্যায়ন নেই নেতা কর্মীদের। গতিশীল নেতৃত্বের মাধ্যমে দলকে শক্তিশালী করার যোগ্যতা ও স্বদিচ্ছা বিএনপি নেতাদের নেই বলে অভিযোগ তৃণমূল একাধিক নেতাকর্মীর। ফলে পর্যায়ক্রমে বহুধা বিভক্ত হয়ে পড়েছে বিএনপি।
    নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গোপালগঞ্জ-১ আসনে মুহাম্মদ ফারুক খান ১ লাখ ৮৩ হাজার ২৩৭ ভোট পান। তার প্রতিদ্বন্দ্বী সেলিমুজ্জাম সেলিম পান ৯ হাজার ৯৮৬।
    গোপালগঞ্জ-২ আসনে ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ সেলিম ১ লাখ ৮৬ হাজার ৫৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। বিএনপির বর্তমান সভাপতি মোঃ সিরাজুল ইসলাম পান ৭ হাজার ৬৪৩ ভোট।
    নবম সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গোপালগঞ্জ-৩ আসন থেকে ১ লাখ ৫৮ হাজার ৯৫৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার বিপক্ষে বিএনপির প্রার্থী এস এম জিলানী পান ৪ হাজার ৪শ’ ৫১ ভোট।
    আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত গোপালগঞ্জের ভোটার ও মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে এখনো কোনো উৎসাহ-উদ্দীপনা চোখে পড়ছে না। তারপরও প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে কে মনোনয়ন পাবেন, কে পাবেন না এ নিয়ে চায়ের আড্ডা থেকে শুরু করে সব জায়গাতেই চলছে নানান আলোচনা।
    গোপালগঞ্জ-১ (কাশিয়ানী ও মুকসুদপুর) : আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক বাণিজ্য এবং বেসামরিক বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি এবারও দলীয় মনোনয়ন পাবেন এমনটাই মনে করেন স্থানীয় নেতা-কর্মীরা। (তবে বঙ্গবন্ধু পরিবারের কোনো সদস্য গোপালগঞ্জ-১ আসনে নির্বাচন করলে সেক্ষেত্রে তাকে ঢাকা-১৭ (গুলশান-ক্যান্টনমেন্ট) আসনে মনোনয়ন দেয়া হতে পারে)।
    গোপালগঞ্জ-১ (কাশিয়ানী ও মুকসুদপুর) বিএনপির কোনো শক্ত প্রার্থী নেই। এ আসন থেকে নির্বাচিত বিএনপির সাবেক সাবেক সংসদ সদস্য এফ ই শরফুজ্জামান জাহাঙ্গীর, বিএনপির ফরিদপুর বিভাগীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিমুজ্জামান সেলিম, বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও ঢাকা মহানগরের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম (পটু লস্কর) অথবা খালেদা জিয়ার আইনজীবী ও বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন মেসবাহ দলীয় মনোনয়ন পেতে পারেন।
    গোপালগঞ্জ-২ (গোপালগঞ্জ ও কাশিয়ানী) : আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সংসদ সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম দলীয় মনোনয়ন পাবেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় নেতারা। এ ছাড়া বিএনপির জেলার সাবেক সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এম এইচ খান মঞ্জু, জেলা সভাপতি সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, জেলার সাবেক সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এফ ই শরফুজ্জামান জাহাঙ্গীর দলীয় মনোনয়ন পেতে পারেন।
    গোপালগঞ্জ-৩ (টুঙ্গিপাড়া ও কোটালীপাড়া) : আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবারও এ আসনে প্রার্থী হবেন এমনটি প্রত্যাশা তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের। আর বিএনপি থেকে কাজী আসাদুজ্জামান আসাদ, সেচ্ছাসেবক দল নেতা এস এম জিলানী দলীয় মনোনয়ন পেতে পারেন।


    Facebook Comments Box


    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757