• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    গোপালগঞ্জে প্রবাসী প্রেমিকের ঘরে ঢুকে তরুণীর আত্মহত্যার চেষ্টা

    আজকের অগ্রবাণী ডেস্ক | ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৪:৩৪ অপরাহ্ণ

    গোপালগঞ্জে প্রবাসী প্রেমিকের ঘরে ঢুকে তরুণীর আত্মহত্যার চেষ্টা

    গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বিয়ে না করলে তানিয়া (১৯) নামে এক তরুণী আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছে।


    বিয়ের দাবিতে ওই তরুণী হেলাল শেখের ঘরে ঢুকে আত্মহত্যার চেষ্টা করলে বাড়ির লোকজন চুলের মুঠি ধরে টেনে হিচড়ে তাকে ঘর থেকে বের করে দেয়। পরে মারপিট করে বাড়ির উঠানের একটি গাছের সাথে তাকে বেঁধে রাখা হয়। পুলিশে খবর দিলে টুঙ্গিপাড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই তরুণীর হাতের বাঁধন খুলে দেয়।


    বোরবার পুরো দিন ও রাত তানিয়া ওই বাড়িতে অবস্থান করে। সোমবার সকালে পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়। তানিয়া টুঙ্গিপাড়া উপজেলার দক্ষিণ গিমাডাঙ্গা গ্রামের মোঃ ফরিদ মোল্লার মেয়ে।

    তানিয়া অভিযোগ করে বলেন, টুঙ্গিপাড়া উপজেলার গিমাডাঙ্গা চরপাড়া গ্রামের লুৎফর শেখের ছেলে ওমান প্রবাসী হেলাল শেখের সাথে আমার মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দীর্ঘ দিন আমরা ফোনে প্রেম করে আসছিলাম। গত বছরের মাঝামাঝি হেলাল ওমান থেকে গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসে। দু’ গ্রামের মাতবরদের সমঝোতায় গত বছরের জুলাই মাসের দ্বিতীয় শুক্রবার আমাদের বিয়ের দিন ঠিক হয়। বিয়ের দিন আমাদের বাড়িতে বরযাত্রী আপ্যায়নসহ বিয়ের সব ধরনের আয়োজন সম্পন্ন করা হয়। কিন্তু সে দিন হেলালের পরিবারের সদস্যরা বাড়িঘরে তালা দিয়ে পালিয়ে যায়।

    পরে এ ব্যাপারে আমি পর পর ৩ টি মামলা করেও কোন প্রতিকার পাইনি। এরমধ্যেও হেলালের সাথে আমার সম্পর্ক চলে আসছিলো। রোববার সকালে ফোন করে হেলাল আমাকে তার বাড়িতে আসতে বলে। আমি সকাল ১০ টার দিকে তাদের বাড়িতে গিয়ে ঘরে ঢুকে বিয়ের দাবি জানাই। তার বাবা এর দাবি প্রত্যাক্ষান করলে আমি ওই ঘরের ফ্যানের সাথে রশি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করি। তখন হেলালের বাবা লুৎফর শেখ ও অন্যান্যরা চুলের মুঠি ধরে টানতে টানতে আমাকে ঘরে থেকে বাইরে এনে মারপিট করে। পরে উঠানের গাছের সাথে বেধে রেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে আমার হাতের বাঁধন খুলে দেয়। হেলাল আমাকে বিয়ে না করলে আমি আত্মহত্যা করবো।

    এ ঘটনার পর অভিযুক্ত হেলাল রোববার সকাল থেকেই গা ঢাকা দিয়েছে।

    হেলাল শেখের পিতা লুৎফর শেখ বলেন, আমার ছেলের সাথে তানিয়ার কোন সম্পর্ক নেই। সে জোর করে আমার ছেলের সাথে বিয়ে বসতে পরপর ৩টি মিথ্যা মামলা করে আমাদের হয়রানি করছে। রোববার সে আমাদের ঘরে ঢুকে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে আমরা তাকে ঘর থেকে বের করে দেই। তাকে মারপিট বা বেঁধে রাখা হয়নি। সোমবার সকালে পুলিশ তাকে আমাদের বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। আমার প্রবাসী ছেলের কাছ থেকে টাকা হাতাতেই তানিয়া বিয়ের দাবির নাটক সাজিয়েছে।

    হেলাল শেখের প্রতিবেশী আল আমীন শেখ বলেন, তানিয়া আত্মহত্যা করতে পারে, এ আশংকায় তাকে মারপিট করে ঘর থেকে টেনে হিচড়ে বের করা হয়েছে। পরে তাকে গাছের সাথে বেঁধে রাখা হয়। আত্মহত্যা করে বসলে পরিস্থিতি অন্যদিকে গড়াতে পারে। তাই তাকে মারপিটের পর বেঁধে রাখা হয়।

    টুঙ্গিপাড়া থানার ওসি এ.কে.এম এনামূল কবীর এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4669