• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    গোপালগঞ্জ-১ আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী অ্যাডভোকেট মেজবাহ

    নিজস্ব প্রতিবেদক: | ০৫ আগস্ট ২০১৭ | ১০:৩১ পূর্বাহ্ণ

    গোপালগঞ্জ-১ আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী অ্যাডভোকেট মেজবাহ

    দশম জাতীয় সংসদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ২০১৯ সালে। সংবিধান অনুয়ায়ী বর্তমান সংসদের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই আরেকটি নির্বাচনের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ হিসাবে ২০১৮ সালের শেষের দিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।
    ইতোমধ্যে দায়িত্ব নিয়েছেন নতুন নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে আপত্তি জানালেও কমিশনকে সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেনি দীর্ঘ সময় ক্ষমতার বাইরে থাকা দেশের অন্যতম বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল- বিএনপি। বাইরে অন্য কথা বললেও ধারণা করা হচ্ছে ভেতরে ভেতরে এ কমিশনের অধীনেই নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটি।
    এছাড়া পরপর দু’বার জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে বিরত থাকলে আইন অনুযায়ী রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন থাকে না। গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের ৯০ –এইচ এর ১ দফায় রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন বাতিলের এ নির্দেশনা রয়েছে। সুতরাং নিবন্ধন বাতিল ঠেকাতে বিএনপিকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতেই হবে।

    বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, ইসি নিয়ে প্রত্যাশার গুঁড়েবালি হলেও এবার নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার নিয়ে রাজনীতির মাঠে সরব থাকার চিন্তা দলটির। একই সঙ্গে সংসদীয় আসনগুলোতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের খসড়া তালিকা চূড়ান্ত করার প্রতিও মনোযোগী হচ্ছেন দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।
    তারই ধারাবাহিকতায় আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গোপালগঞ্জ-১ আসনে দলীয় প্রতীক নিয়ে অংশগ্রহণ করতে চান বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন মেজবাহ। তিনি দীর্ঘ ১৯৯১ সালের পর থেকে এ আসনের রাজনীতি ও সমাজ সেবামূলক কাজে নিজেকে জড়িয়ে রেখেছেন।


    অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন মেজবাহ ছাত্রদলের মাধ্যমে ১৯৮৭ সালে বিএনপির রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। ফরিদপুরের রাজেন্দ্র কলেজ ও পরবর্তীতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালিন সময়ে ছাত্রদলের প্রতিটি কর্মকাণ্ডে সক্রিয় ভাবে অংশগ্রহণ করেন। ছাত্রত্ব শেষ করে আইন পেশায় জড়িয়ে পড়েন। নির্বাচিত হন জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ফোরামের ঢাকা ইউনিটের যুগ্ম সম্পাদক ও জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক সংস্থা জাসাসের কেন্দ্রীয় সদস্য।

    বিএনপি চেয়ারপার্সন, মহাসচিব থেকে শুরু করে দলের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে যেখানেই মামলা হোক কেন আইনজীবী হিসেবে সব সময় আদালত অঙ্গনে অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন মেজবাহ এর উপস্থিতি থাকে সবার আগে। জয়নাল আবেদিন মেজবাহ বয়সে তরুণ হলেও খালেদা জিয়ার আইনজীবী হিসেবে সারা দেশে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছেন। মামলায় জর্জরিত বিএনপি নেতাদের কাছে জয়নাল আবেদিন মেজবাহ একটি আস্থার নাম। দলের অসহায় অনেক কর্মীকে ফ্রি আইনী সেবা দিয়ে তিনি যে খ্যাতি অর্জন করেছেন তা তাকে বিএনপির রাজনীতিতে অনেক দূর এগিয়ে নিতে সহায়ক হবে।
    একান্ত আলাপচারিতায় বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন মেজবাহ জানান, আমার নিজের জন্য চাওয়া পাওয়ার কিছু নাই। মানুষের কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করতে চাই। এলাকার উন্নয়ন করতে চাই। এজন্য গোপালগঞ্জ-১ আসনের নেতা কর্মী ও সাধরণ জনগণের সহযোগিতা নিয়ে আগামী নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করতে চাই।

    ajkerograbani.com

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4755