রবিবার ১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ঘরের যেসব জিনিসে রয়েছে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি

ডেস্ক   |   শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০২০ | প্রিন্ট  

ঘরের যেসব জিনিসে রয়েছে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়ে চলেছে। কোভিড-১৯ নামের নতুন এই ভাইরাসে ইতোমধ্যে ৯০ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন প্রায় ৩ হাজার ১০০ জন।
গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে চীনের বাইরেও বিভিন্ন দেশে এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। ফলে সতর্ক হওয়ার এখনই সময়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিয়মিত হাত ধোয়া বা টিস্যুতে হাঁচি দেওয়া ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমাতে পারে। এর বাইরেও আপনি কিছু প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিতে পারেন।
গবেষণায় দেখা গেছে ভাইরাসটি বেশ কয়েক ঘণ্টা শক্ত কোনো কিছুর উপরে বেঁচে থাকতে পারে। অর্থাৎ প্রতিদিনের ব্যবহার্য জিনিসপত্র, ঘরের মেঝে এবং আসবাবপত্রের উপরিতলে এটি অবস্থান করতে পারে। আপনার বাসস্থান যতটা সম্ভব কম ঝুঁকিপূর্ণ নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি) ঘরের ‘উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ’ স্থানের তালিকা তৈরি করেছে। সেসব স্থান জীবাণুমুক্ত রাখার পরামর্শ দিয়েছে তারা।
স্থানগুলো হলো- কিচেন কাউন্টার টপস, টেবিল, দরজার হাতল, বাথরুমের ফিক্সচার, টয়লেট, ফোন, কি-বোর্ড, ট্যাবলেট পিসি, টেবিলের আশপাশে, যেকোনো উপরিতল যেখানে রক্ত, মল বা ঘাম লেগে থাকতে পারে।
সুরক্ষিত থাকবেন যেভাবে:
সিডিসির পক্ষ থেকে, ঘরের জিনিসপত্র নিয়মিত জীবাণুনাশক স্প্রে দিয়ে পরিষ্কার করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এছাড়া স্প্রে ব্যবহারের সময় গ্লাভস পরার পাশাপাশি ঘরে বায়ু চলাচল নিশ্চিত করার কথাও বলা হয়েছে।
সিডিসি’র মতে, নিজের জিনিসপত্র পরিবারের অন্যদের সঙ্গে শেয়ার না করাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। তারা বলছে, আপনার বাড়ির অন্যান্য লোক বা পোষা প্রাণীর সাথে আপনার বাসন, চশমা, কাপ, খাবারের পাত্র, তোয়ালে বা বিছানা ভাগ করা উচিত নয়।’এগুলো ব্যবহার করার পর সাবান এবং পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলার পরামর্শ দিয়েছে সিডিসি।

Facebook Comments Box


Posted ৯:১৭ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০২০

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১