• শিরোনাম

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    চলচ্চিত্রের গানে খুরশীদ আলমের ৫০ বছর

    হাবিব মোস্তফা | ৩১ আগস্ট ২০১৯ | ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ

    চলচ্চিত্রের গানে খুরশীদ আলমের ৫০ বছর

    বাংলাদেশের সংগীত জগতের বরেণ্য ব্যক্তিত্ব মো. খুরশীদ আলম। মো. খুরশীদ আলমের জন্ম ১৯৪৬ সালে, জয়পুরহাটে। মাত্র তিন বছর বয়সে পরিবার তাঁকে নিয়ে ঢাকায় আসে। সেই থেকে ঢাকাতেই আছেন। চাচা ডা. আবু হায়দার সাজেদুর রহমানের কাছে তাঁর প্রথম গান শেখা। চলচ্চিত্র ও আধুনিক গানের শিল্পী হলেও মো. খুরশীদ আলমের শুরুটা হয়েছিল রবীন্দ্রসংগীত দিয়ে। ১৯৬৫ সালে শেখ বোরহান উদ্দিন কলেজে প্রথম গেয়েছিলেন রবীন্দ্রসংগীত। ১৯৬৫ সালে তৎকালীন পাকিস্তান সরকার রবীন্দ্রসংগীত গাওয়া বন্ধ করে দেয়। তাই রেডিওতে আধুনিক গানের শিল্পী হওয়ার জন্য অডিশন দেন। রেডিওতে বাণিজ্যিক কার্যক্রমে তাঁর গাওয়া প্রথম দুটি গান হলো ‘তোমার দু হাত ছুঁয়ে শপথ নিলাম’ ও ‘চঞ্চল দু নয়নে বলো না’।

    চলচ্চিত্রে তিনি প্রথম গান গেয়েছেন ১৯৬৯ সালের ১ আগস্ট। বাবুল চৌধুরী পরিচালিত ‘আগন্তুক’ চলচ্চিত্রের সেই গানটি হলো ‘বন্দী পাখির মতো’। গানের কথা লিখেছেন ডা. আবু হায়দার সাজেদুর রহমান, সুর ও সংগীত পরিচালনা করেন আজাদ রহমান। ছবিতে গানটির সঙ্গে অভিনয় করেন রাজ্জাক। গানটি তাঁর জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়। এরপর মো. খুরশীদ আলম কণ্ঠ দিয়েছেন পাঁচ শতাধিক গানে। এর মধ্যে বেশির ভাগ গানই চলচ্চিত্রের। জনপ্রিয় হয়েছে অসংখ্য গান।

    চলচ্চিত্রে মো. খুরশীদ আলমের কিছু কালজয়ী গান: ‘মাগো মা ওগো মা, আমারে বানাইলি তুই দিওয়ানা’, ‘ও দুটি নয়নে’, ‘আলতো পায়ে’, ‘বাপের চোখের মণি নয়’, ‘চুরি করেছ আমার মনটা’, ‘ধীরে ধীরে চল ঘোড়া’, ‘চুমকি চলেছে একা পথে’, ‘বন্ধু তোর বরাত নিয়া আমি যাব’, ‘আজকে না হয় ভালোবাস আর কোনো দিন নয়’, ‘এই আকাশকে সাক্ষী রেখে’, ‘পাখির বাসার মতো দুটি চোখ তোমার’, ‘বন্দী পাখির মতো’, ‘ও চোখে চোখে পড়েছে যখনই’।


    প্লেব্যাকে বরেণ্য শিল্পী মো. খুরশীদ আলমের ৫০ বছর পূর্তিতে আমাদের শ্রদ্ধা।

    Comments

    comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী