রবিবার ১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

চিত্রনায়ক জাভেদ’র অসুস্থতায় জিসাসের দোয়া কামনা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০ | প্রিন্ট  

চিত্রনায়ক জাভেদ’র অসুস্থতায় জিসাসের দোয়া কামনা

বাংলা চলচ্চিত্রের চির সবুজ নায়ক জাভেদ দীর্ঘদিন যাবৎ প্রস্রাবের সমস্যায় ভুগছেন। আজ বাংলাদেশ মেডিকেলে তাঁর অস্ত্রোপচার করা হবে। পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁর জন্য দোয়া চেয়েছেন। দোয়া চেয়েছেন জিয়া সাংস্কৃতিক সংগঠন- জিসাস এর সকল সদস্য। চিত্রনায়ক জাবেদ জিসাস সঙ্গীত একাডেমীর চেয়ারম্যান।
উল্লেখ্য, ১৯৭০ থেকে ১৯৮৯ পর্যন্ত নায়কদের মধ্যে তিনি ছিলেন অধিক জনপ্রিয়। নিজে নাচতেন ও নায়িকাদের নাচিয়ে পর্দা কাঁপিয়ে তুলতেন।
জন্ম ১৯৪৪ সালে আফগানিস্তানে। পরে তাঁরা পেশোয়ার হয়ে পাঞ্জাবে আসেন। শৈশবে তাঁর প্রিয় নায়ক ছিলেন দিলীপ কুমার। বাবা ছিলেন ধর্মপরায়ণ। তিনি চাইতেন ছেলেরা ব্যবসায়ী হবে, নয়তো চাকরি করবে। কিন্তু জাভেদের ওসব দিকে আদৌ মন ছিল না। কীভাবে অভিনেতা হওয়া যাবে এ নিয়েই তিনি ভাবতেন। সিনেমা দেখা, গান শোনা নিয়েই মগ্ন থাকতেন। এ নিয়ে পরিবারের সঙ্গে তাঁর দ্বন্দ্ব হয়। সবশেষে বাবা-মায়ের কাছে না বলেই জাভেদ পাঞ্জাব ছেড়ে চলে আসেন তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের (বর্তমানে বাংলাদেশ) ঢাকায়।
নায়ক হিসেবে জাভেদ অভিনয় করেছেন মালকা বানু, অনেক দিন আগে, শাহাজাদা, রাজকুমারী চন্দ্রবান, সুলতানা ডাকু, আজো ভুলিনি, কাজল রেখা, সাহেব বিবি গোলাম, নিশান, বিজয়িনী সোনাভান, রূপের রানী, চোরের রাজা, তাজ ও তলোয়ার, নরমগরম, তিন বাহাদুর, জালিম, চন্দন দ্বীপের রাজকন্যা, রাজিয়া সুলতানা, সতী কমলা, বাহারাম বাদশা, আলাদিন আলী বাবা, সিন্দাবাদ প্রভৃতি সিনেমায়। শুধু নায়ক হিসেবেই নয়, নৃত্য পরিচালক হিসেবেও একসময় ছিল তাঁর দারুণ ব্যস্ততা ছিল।
জিসাস চেয়ারম্যান আবুল হাশেম রানা বলেন, জাবেদ আমার আপন ভাইয়ের মত। তিনি অত্যন্ত গুনী অভিনেতা ও হাসিখুশি মানুষ। তার অসুস্থতায় আল্লাহর দরবারে বিশেষ দোয়া করি।

Facebook Comments Box


Posted ১০:০৭ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১