• শিরোনাম

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    চুল পরিচর্যায় কিছু সময়

    ঘন কালো লম্বা চুলের জন্য

    অনলাইন ডেস্ক | ২৫ মার্চ ২০১৭ | ৫:৫৭ অপরাহ্ণ

    ঘন কালো লম্বা চুলের জন্য

    ত্বকের যত্ন, মুখের পরিচর্যা, রূপ লাবণ্য,সুস্থ সুন্দর শরীর যেমন দারকার তেমন মাথার ত্বক ও চুলকে সুন্দর রাখা দরকার। প্রকৃত পক্ষে মাথার চুল ঝরে পরাতে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। যেসব কারণে চুলের সমস্যা বা ক্ষতি হয় তার মধ্যে মানসিক চাপ, ঔষধের প্রভাব, দূষণ এবং অনিয়মিত খাদ্যতালিকা ইত্যাদি প্রধান । স্বাস্থ্যোজ্জ্বল সুন্দর চুল সবারই কাম্য। সঠিকভাবে চুল যত্ন নিতে পারলে আপনার ঝরে যাওয়া চুল গজানো সম্ভব।

    ● ● চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ করার উপায়


    প্রতিদিন চুল পরিস্কার করা ভাল নয়। দুই বা তিন দিন পর পর একবার চুল পরিস্কার ভালো। কারণ প্রতিদিন চুল পরিস্কার করলে আপনার মাথার খুলি বেশি শুকনো হয়ে যায়, যা চুলকে ক্ষতি করে। তাই প্রতি দুই বা তিন দিন পর একবার চুল পরিস্কার করলে ভালো হয়। প্রথমে শ্যাম্পু বাবল করে নিন বা ফেনা তৈরী করে নিন, তারপর চুলে মাখান। কিছু সময় এভাবে রাখুন এবং এরপর পরিস্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। যদি আপনার চুলে তৈলাক্ততার পরিমান বেশি হয়, তাহলে একদিন বা দু’দিন পর পর চুল পরিস্কার করতে পারেন।

    চুলে শ্যাম্পু বা অন্যকোনো উপাদান মাখার পর পরিস্কার ঠান্ডা পানি দিয়ে তা ধুয়ে ফেলুন।মাথায় ঢালা পানির তাপমাত্রা বেশি হলে চুল ও মাথার খুলি বেশি শুকনো হয়ে যাবে, যা চুল পড়তে সহায়তা করে। সেজন্য গরম পানি দিয়ে চুল পরিস্কার করা যাবে না।এভাবে আপনি কিছুটা হলেও চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন।

    ঘণ চিরুনি দিয়ে ভিজা চুল মসৃণ করা বা আচঁড়ানো উচিত নয়। এ সময় চুলের গোড়া খুব দুর্বল থাকে। তাই এ সময়ে চুলে বেশি বেশি চিড়ুনির ব্যবহার কারা বা কাপড় দিয়ে চুল ঝাকানো বা ঘর্ষণ করা হলে চুলের মারাত্মক ক্ষতির সৃষ্টি হবে। সেজন্য চুল পরিস্কারের পর ভাল ভাবে না শুকানো পর্যন্ত চুল আচঁড়ানো বা চুল শুকাতে কাপড় দিয়ে দ্রুত ও জোরে জোরে ঘর্ষণ করবেন না, এটা আপনার চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করবে। পরিস্কার শুকনো কাপড় বা তোয়ালে দিয়ে আলতো করে চুল বেঁধে রাখুন, কিছুক্ষণ পর খোলা বাতাসে চুল শুকিয়ে নিতে পারেন। এটা আপনার চুল পড়ার পরিমানা কমিয়ে আনতে সহায়তা করবে।

    ভিজা চুল শুকানোর তুলার বা কটন জাতীয় তোয়াল বা টি শার্ট দিয়ে চুল বেঁধে রাখুন। শক্ত তোয়ালে দিয়ে চুলে ঘর্ষণ করা হলে চুলের মারাত্মক ক্ষতি হবে। সেজন্য চুল ধোয়ার পর নরম ও তুলাজাতীয় তোয়ালে দিয়ে চুলের পানি শুকানো চুলের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল।

    অনেকেই হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করতে অভ্যস্ত। কিন্তু হেয়ার ড্রায়ার চুলের ভীষণ ক্ষতি করে। তা অনেকে হয়ত জানেন না। হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহারে বিশেষ নিয়ম মেনে তা ব্যবহার করুন যেমন, কিছুটা উষ্ণ বাতাস দিয়ে খুলি ড্রায়ার করতে পারেন কিন্তু কম উষ্ণ বাতাস দিয়ে চুল ড্রায়ার করুন।

    চুল বাঁধার অভ্যাস কমিয়ে আনুন। কেননা বেঁধে রাখা চুলের পড়ের যাবার সম্ভাবনা বেশি। মনে রাখবেন চুলে বেড়া ওঠা বা এ সুস্বাস্থ্যের জন্য খোলামেলা রাখাটাই উত্তম কেননা এটাই চুলের অবাধ আর স্বাভাবিকভাবে বেড়ে ওঠার একমাত্র পথ। একটি চাড়া গাছকে সব সময়ে শক্ত কিছুদিয়ে ঢেকে রাখলে গাছটির যে ক্ষতি হবে চুলের ক্ষেত্রেও তাই হয়।

    ● ● মাথার চুল ঘন করার একটি কার্যকরী উপায়

    মাথায় যাদের চুল কম (কিন্তু বংশগত টাক নন) , চুল ঘন করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন ক্যাস্টর ওয়েল। ক্যাস্টর ওয়েল নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। এর মধ্যে রিসিনোলেইক এসিড নামে একটি উপাদান থাকে যা …শুধু ক্যাস্টর অয়েল এবং এক জাতের ফাংগি তে পাওয়া যায়। নতুন চুল গজানোর ক্ষেত্রে এর কার্যকারীতা বহু পরীক্ষিত। পাশাপাশি ক্যাস্টর অয়েল শুস্ক চুলের রুক্ষতাও দূর করে।

    ফল পাবার জন্য সপ্তাহে একবার করে কমপক্ষে দুইমাস ব্যবহার করতে হবে। রাতে ঘুমাবার আগে লাগিয়ে সকালে ধুয়ে ফেলুন। সম্ভব না হলে, মাথায় লাগিয়ে ১০ মিনিত ম্যাসাজ করে কমপক্ষে দুই ঘন্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন। আরো ভালো ফল পাবার জন্য, একটা ভিটামিন ই ক্যাপসুল ভেঙ্গে ভিতরের তরল টা মিশিয়ে নিন।

    বাজারে দেশী ও বিদেশী দুই ধরণের ক্যাস্টর অয়েল ই পাওয়া যায়। দেশী গুলো পাবেন ফার্মেসী গুলো তে। ৭০ টাকা মূল্যের বোতল গুলো বড় চুলে ৪ বার ব্যবহার করতে পারবেন। বিদেশী গুলো পাবেন যে কোন সুপার শপ (আগোরা, মিনা বাজার, আলমাস) অথবা বিউটি পার্লার সামগ্রীর দোকানে (যেমন গাউসিয়ার ফেন্সী, ইস্টার্ন প্লাজার রিমস ইত্যাদি)। দাম আনুমানিক ২৫০ টাকা। দেশে প্রস্তুতকৃত ক্যাস্টর অয়েল ও যথেষ্ট কার্যকরী।

    শুধু মাথার চুল নয়, যারা চোখের পাপড়ি ঘন করতে চান তারা প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর সময় দুই-তিন ফোটা চোখের পাপড়িতে ব্যবহার করুন।

    সতর্কতাঃ ক্যাস্টর অয়েল, মধুর মত ঘন। তাই চটচটে ভাবের কারণে কারো কারো অস্বস্তি হতে পারে। ক্যস্টর অয়েল এর মধ্যে রিসিন নামে একটি পদার্থ থাকে যা পেটে গেলে ক্ষতি হয়। বোতলে ভরার আগেই পরিশোধনের মাধ্যমে রিসিন নির্মুল করে ফেলা হয়। তারপর ও অতিরিক্ত সতর্কতার কারণ, চুলে ব্যবহারের জন্য তৈরী বোতলের ক্যাস্টর অয়েল মুখ থেকে দূরে রাখুন।

    ● ● সহজে চুল লম্বা করার উপায়

    চুল বাড়ছে না? রোজই পিঠের ওপর চুল রেখে টেনে টেনে দেখছেন কতটা বাড়লো চুল? কিন্তু চুল বাড়ছে না। এই বিষয়টা আপনার মন খারাপ করে দিচ্ছে। সমস্যা খুবই গুরুতর৷ তবে আপনার সমস্যার সমাধানের উপায় আছে আপনার হাতেই৷ শুধু মেনে চলতে হবে কয়েকটি নিয়ম৷

    ১. নিয়ম করে চুলকে ট্রিম করান৷ চুলের নিচের অংশ অল্প করে কেটে নিলে ভালো থাকে আপনার চুলের ডগা৷ প্রতি মাসে একবার করে চুল কাটতে বলছেন বিউটিশিয়ানরা৷ তাদের মতে আপলার চুল গোড়া থেকে বাড়তে শুরু করে৷ ফলে চুলের ডগায় তৈরী হয় স্প্লিট এন্ডস অর্থাৎ চুলের ডগা ফেটে যায় ফলে চুল রুক্ষ হয় এবং চুল বাড়তে পারে না৷ ফলে চুলের ওই অংশ কেটে বাদ দিয়ে দিতে হয় প্রতি মাসে৷ তাতে ভাল থাকে চুল৷ চুলের বৃদ্ধিতেও বাধা থকে না কোন৷

    ২. এক সপ্তাহ অন্তর এক বার করে গরম তেল দিয়ে চুলের ভিতর ও মাথার তালু ম্যাসেজ করা অত্যন্ত জরুরি৷ তেল হ চুলের পুষ্টি৷ তাই চুল শুধু বাড়তেই নয় চুল পড়া বন্ধ করতে, চুলকে ভালো রাখতেও সাহায্য করে এই হট অয়েল ম্যাসেজ৷

    ৩. ডিমের কুসুমও আপনার চুলকে বাড়তে সাহায্য করে৷ শুধু তাই নয় চুলের গোছকেও বাড়ায়৷ ডিমের কুসুমে থাকে ভিটামিন E৷ ফলে চুলকে গোড়া থেকে শক্ত করে ডিমের কুসুম৷ আর সুস্থ রাখে আপনার চুলকে৷

    ৪. সব শেষে রাত্রে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ভালো করে অন্তত ৫০বার চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ে শোওয়া দরকার৷ এতে মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল ভালো হয়৷ চুল পড়া কমে এবং চুলের গোড়া মজবুত হয়৷

    Comments

    comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    শোক সংবাদ

    ০৯ জুন ২০১৮

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী