• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    ছাত্রীকে বিছানায় চেয়ে চাকরি গেল শিক্ষকের

    অনলাইন ডেস্ক | ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ৫:০১ অপরাহ্ণ

    ছাত্রীকে বিছানায় চেয়ে চাকরি গেল শিক্ষকের

    ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করায় রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের কম্পিউটার প্রশিক্ষক অজিত কুমার সরকারকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় শিক্ষা বোর্ডের গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কলেজের গভর্নিং কমিটির ৩৪তম সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।


    গতকাল বৃহস্পতিবার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে এ-সংক্রান্ত চিঠি কম্পিউটার প্রশিক্ষকের নওগাঁর রানীনগরের গ্রামের স্থায়ী ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মো. তাইফুর রহমান। চিঠিতে কেন তাঁকে স্থায়ীভাবে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হবে না তাও জানতে চাওয়া হয়েছে।

    ajkerograbani.com

    ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সদস্য ওই ছাত্রীর স্বামীর লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের দ্বাদশ শ্রেণির ওই ছাত্রী কলেজ পরিবর্তনের বিষয়ে পরামর্শের জন্য সম্প্রতি কলেজে গিয়ে প্রশিক্ষক অজিত কুমার সরকারের (৩৬) সঙ্গে দেখা করেন। এরপর ওই ছাত্রীকে কলেজের হিসাব বিভাগ থেকে জানানো হয় তাঁর বকেয়া রয়েছে প্রায় ১৫ হাজার টাকা। কলেজ পরিবর্তন করতে গেলে তাঁকে বকেয়া টাকা পরিশোধ করতে হবে।

    বিষয়টি জানতে পেরে অজিত কুমার সরকার গত ২৯ জুলাই বিকেলে ওই ছাত্রীকে কয়েকবার ফোন করে সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাঁকে বাসায় ডেকে পাঠান। সাহায্যের আশায় ওই ছাত্রী অজিত কুমার সরকারের নগরীর শালবাগানের বাসায় যান। সেই সময় অজিত কুমার সরকার ওই ছাত্রীকে কুপ্রস্তাব দেন। এতে ছাত্রীটি রাজি না হলে জবরদস্তি করে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালান। ছাত্রী নিজেকে রক্ষা করে কাঁদতে কাঁদতে বাসা থেকে বেরিয়ে আসেন।

    খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অজিত কুমার সরকার এখনো বিয়ে করেননি। শালবাগানের ভাড়া বাসায় তিনি একা থাকেন।

    পরদিন ৩০ জুলাই ওই ছাত্রীর স্বামী প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডির সভাপতি ও রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদের সঙ্গে দেখা করে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ করেন। চেয়ারম্যান বিষয়টি স্পর্শকাতর বিধায় দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কলেজের অধ্যক্ষকে নির্দেশ দেন। এ ছাড়া চেয়ারম্যান বিষয়টি তদন্তের জন্য শিক্ষা বোর্ডের সচিব অধ্যাপক ড. আনারুল হক প্রামাণিককে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে দেন।

    কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের লিগ্যাল অ্যাডভাইজার অ্যাডভোকেট এজাজুল হক মানু, শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তা শামীম আরা, কলেজের প্রভাষক মিনহাজ ফাতেমা ও জ্যেষ্ঠ শিক্ষক খলিলুর রহমান।

    তদন্ত কমিটি উভয় পক্ষের লিখিত বক্তব্য ও মৌখিক বক্তব্য গ্রহণ এবং পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিশ্লেষণ করে অভিযোগের সত্যতা পায়। পরে কমিটি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের কাছে প্রতিবেদন দাখিল ও আইনগত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের সুপারিশ করে।

    এ বিষয়ে জানতে চাইলে তদন্ত কমিটির কয়েকজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, তদন্ত চলাকালে অভিযুক্ত অজিত কুমার সরকারের বিরুদ্ধে এর আগেও এ ধরনের অভিযোগের কথা জানা গেছে। এ ধরনের একটি ঘটনায় তাঁকে একবার নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার পুলিশ আটকও করেছিল। সার্বিক দিক বিশ্লেষণ করে অজিত কুমার সরকারকে চাকরি থেকে স্থায়ীভাবে বরখাস্তের সুপারিশ করা হয়েছে।

    তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির প্রধান রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের সচিব অধ্যাপক ড. আনারুল হক প্রামাণিক বলেন, তদন্ত প্রতিবেদন এবং কমিটির সুপারিশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন অধ্যক্ষই এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন।

    জানতে চাইলে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ তাইফুর রহমান জানান, গত ৩১ আগস্ট বোর্ড চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত গভর্নিং বডির জরুরি সভায় অজিত কুমার সরকারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে ঈদের ছুটির কারণে প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বৃহস্পতিবার রেজিস্টার্ড ডাকযোগে অজিত কুমার সরকারকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ পাঠানো হয়েছে।

    এ ব্যাপারে জানতে মুঠোফোনে অজিত কুমার সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি দাবি করে বলেন, ‘ওই ছাত্রী তাঁর কাছে আইসিটি বিষয়ে প্রাইভেট পড়ার জন্য বাসায় গিয়ে জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহের শনিবার কথা বলে এসেছে। পরদিন রোববার থেকে চলমান ব্যাচের সঙ্গে তাঁর প্রাইভেটে যোগ দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সে তা না করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনেছে।’

    অজিত কুমার আরো বলেন, ‘ওই ছাত্রীর পক্ষ থেকে আমাকে ফোন করে বিষয়টি মীমাংসার জন্য টাকার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। তা না হলে আমার মান-সম্মান ক্ষুণ্ণ করার পাশাপাশি চাকরি খাওয়ার হুমকিও দেওয়া হয়েছিল। এসব বিষয়ে পাত্তা না দেওয়ায় আমার বিরুদ্ধে সাজানো অভিযোগ আনা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের চিঠি হাতে পাওয়ার পর এ বিষয়ে আমি পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব।’

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4755