• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    জলাবদ্ধতা কমাতে ভাঙতে হচ্ছে সেই মহেশখাল বাঁধ

    অগ্রবাণী ডেস্ক | ১৩ জুন ২০১৭ | ৭:২৮ অপরাহ্ণ

    জলাবদ্ধতা কমাতে ভাঙতে হচ্ছে সেই মহেশখাল বাঁধ

    নগর পরিকল্পনাবিদদের মতামতকে উপেক্ষা করে নির্মাণ করা হয়েছিল মহেশখাল বাঁধ। নির্মাণের দুই বছরের মাথায় তা অপসারণ করতে হচ্ছে। মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রামের মহেশখাল রিপাবলিক ক্লাব সংলগ্ন বাঁধটি জরুরি ভিত্তিতে অপসারণ কাজ শুরু করে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন।


    সূত্র জানায়, চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ ও হালিশহর এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের কারিগরী ও আর্থিক সহায়তায় ২০১৫ সালের অক্টোবরে মহেশখালের ওপর বাঁধটি নির্মাণ করা হয়। এখানে বাঁধ দেওয়া হলে হিতের বিপরীত হতে পারে বলে সে সময় বাঁধ নির্মাণে বিরোধীতা করেছিলেন নগর পরিকল্পনাবিদগণ। কিন্তু তাদের মতামতকে উপেক্ষা করে জোয়ার-ভাটা নির্ভর মহেশখালটির ওপর অপরিকল্পিতভাবে বাঁধ নির্মাণ করা হয়।

    ajkerograbani.com

    বাঁধটি নির্মাণের ফলে মহেশখাল দিয়ে বৃষ্টির পানি কর্ণফুলী নদীতে নেমে যেতে বাধাগ্রস্ত হয়। এ কারণে বর্ষা মৌসুমে বেশ কয়েকবার পানিতে তলিয়ে পুরো নগরীবাসীকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

    বাঁধ নির্মাণের পর থেকেই মহেশখালের উজানের ২৭ নম্বর দক্ষিণ আগ্রাবাদ, ৩৬ নম্বর গোসাইলডাঙ্গা, ৩৭ নম্বর উত্তর মধ্যম হালিশহর এবং ৩৮ নম্বর দক্ষিণ মধ্যম হালিশহরের বাসিন্দারা এর বিরোধিতা শুরু করেন।

    মহেশখালের বাঁধের কারণে খাল ভরাট হওয়া, কচুরিপানায় ভরে যাওয়া, দূষণের কারণে পরিবেশ বিপর্যয়, মশার উপদ্রব বৃদ্ধিসহ নগর জীবন হুমকির মুখে পড়ার আশঙ্কায় শুরু থেকেই বাঁধ নির্মাণের বিপক্ষে সোচ্চার ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। বাঁধটির কারণে সরকারের বিরুদ্ধে জনমনে ক্ষোভ তৈরি হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। গত বছরের ২১ মে বাঁধটি খুলে দিতে গেলে স্থানীয়দের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এরপর থেকে সেখানে পুলিশ প্রহরা বসানো হয়।

    প্রকৌশলী সুভাষ বড়ুয়া বলেন, অপরিকল্পিতভাবে মহেশখালের ওপর বাঁধটি নির্মাণ করা হয়েছিল। সে সময় নগর পরিকল্পনাবিদগণ এর বিরোধীতা করেছিলেন। কিন্তু তাদের মতামতকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বাঁধটি জলাবদ্ধতা নিরসনে কোন কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারেনি। আজ (সোমবার) তা অপসারণ করতে হচ্ছে।

    গত ৩০ মে ঘূর্ণিঝড় মোরার প্রভাবে ভারী বৃষ্টিপাতে নগরীতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হলে বাঁধ অপসারণের দাবি আরও জোরালো হয়। গত ১ জুন নগর ভবনের এক বৈঠকে বাঁধটি অপসারণের ঘোষণা দেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

    গত সোমবার নগরীতে ভারী বৃষ্টিপাতে আবারো জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। নগরীর আগ্রাবাদসহ কয়েকটি এলাকা কোমর পানিতে ডুবে যায়। গাড়ি চলাচল না করায় এবং পায়ে হেঁটে চলতে না পারায় বাধ্য হয়ে নৌকা নিয়ে চলাচল করতে হয় নগরবাসীকে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র সমালোচনা ও ব্যঙ্গ বিদ্রুপ করেন নগরবাসী। সোমবার সকালে নগরীর জলমগ্ন এলাকাগুলো পরিদর্শন করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

    পরিদর্শন শেষে তিনি বলেন, এ বছর পানির পরিমাণটা বৃদ্ধি পেয়েছে। অনেকের ধারণা মহেশখালের মুখে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের অর্থায়নে দেওয়া অস্থায়ী বাঁধের প্রভাবে জলাবদ্ধতা বেশি হচ্ছে। এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ড ও বন্দর কর্তৃপক্ষের সাথে কথা হয়েছে। জনস্বার্থে বাঁধটি নির্মাণ করা হলেও এখন সেভাবে সুফল পাওয়া যাচ্ছে না। এ কারণে বাঁধটি অপসারণের জন্য বন্দর কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হয়েছে। বন্দর কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে বাঁধ অপসারণের ব্যাপারে মত দিয়েছেন। নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিয়ে দ্রুত বাঁধটি অপসারণ করা হবে বলে জানান তিনি।

    বাঁধ অপসারণের খবর পেয়ে সকাল থেকেই মহেশখাল বাঁধের আশেপাশে জড়ো হয় শত শত মানুষ। সকালেই সিটি করপোরেশনের একটি বড় স্কেভেটর ও কয়েকটি যন্ত্র বাঁধের কাছে আনা হয়। বিকালে বৃষ্টিপাত কমে আসলে বাঁধ অপসারণের কাজ শুরু হয়। বাঁধের একপাশ ভেঙ্গে ফেলার পর পানি নামতে শুরু করায় এলাকাবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসে। মহেশখাল বাঁধ ভাঙ্গার সময় সিটি মেয়র, স্থানীয় কাউন্সিলর ও চট্টগ্রাম বন্দরের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

    গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. হাবিবুল হক জানান, অনুমতি পাওয়ার পর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে বিকেল থেকে বাঁধ ভাঙ্গার কাজ শুরু করেছে। ইতিমধ্যে বাঁধের একটি অংশ ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। ঐ অংশ দিয়ে পানি নামতে শুরু করেছে। বাঁধটি পুরোপুরি ভেঙ্গে ফেলতে দুইদিন সময় লাগবে। সূত্র: আমাদের সময়

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757