• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    জয়নগর হাই স্কুল জন্ম দিয়েছে হাজারো মুক্তোর মালা

    মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন আহমেদ | ২৫ এপ্রিল ২০১৭ | ১১:২৮ পূর্বাহ্ণ

    জয়নগর হাই স্কুল জন্ম দিয়েছে হাজারো মুক্তোর মালা

    সৃষ্টির আনন্দ চিরায়ত। সৃষ্টিতো ইচ্ছা শক্তির ফসল। বস্তুত ঐ আনন্দকে ধারন করেই নিরবধি চলমান বহমান আমাদের জীবন ধারা।সৃষ্টির মধ্য দিয়েই আনন্দিত জীবনের সংলাপ শুনতে পাই আমরা । শিক্ষা- শিক্ষা-শিক্ষা । মানুষের জন্মের পর থেকেই শুরু হয় শিক্ষা।চলে আমৃত্যু পর্যন্ত। শিক্ষা আর জ্ঞান ওতপ্রোতভাবে জড়িত।জ্ঞান অর্জন করতে হলে তার আগে অর্জন করতে হবে শিক্ষা।আর শিক্ষার মহান ব্রতকে প্রদীপ্ত করতে ১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় জয়নগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়।
    প্রাকৃতিক সৌন্দর্যর লীলাভূমি, নদী মাতৃক সুজলা-সুফল-শষ্য-শ্যামল ভরা এই বাংলার দক্ষিণ বঙের উদার অঙনে সৌন্দর্য আর গাম্ভিয্য নিয়ে স্বগৌরবে মাথা উঁচু করে করে দাড়িয়ে আছে জয়নগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়।
    শিক্ষা-সাহিত্য-সংস্কৃতি একে অপরের পরিপূরক। শিক্ষা ছাড়া যেমন জাতি উন্নতি লাভ করতে পারেনা; তেমনি সাহিত্য-সংস্কৃতি ছাড়াও দেশ ও জাতির কাজ্ঞিত অগ্রগতি সম্ভব নয়। প্রকৃতি শিক্ষার উদ্দেশ্য হচ্ছে শিক্ষার্থীর মানবিক ও মানষিক গুনাবলির পরির্পূণ সহায়তা। চারত্রিক মানষিক ও আত্মিক গুনাবলির উৎকর্ষ সাধন করা আর সমৃদ্ধ চিন্তা চেতনায় ও মুল্যবোধ উদ্ভাসিত করে তাকে পরিপূর্ন মানুষ হিসাবে গড়ে তোলা। এবং সেই অর্থেই শিক্ষিত সমাজকে বলা হয় মানুষ গড়ার কারিগর। বাস্তবমুখী জ্ঞান অর্জন করাই হলো শিক্ষার প্রকৃত উদ্দেশ্য।বস্তুত জয়নগর মাধ্যমিক বিদ্যালয় সৃষ্টির লগ্ন থেকেই শিক্ষার প্রতিটি ক্ষেত্রে, প্রতিটি স্তরে রেখে যাচ্ছে অসামান্য অবদান। দিক নির্দেশনা দিচ্ছে প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলার জন্য। সারা বিশ্ব যখন সমাজতন্ত্রের পতন দৃশ্যে পুঁজিবাদি শক্তির বেপরোয়া উত্থান প্রত্যক্ষ করছিল।পৃথিবীর প্রতিটি প্রান্তরে সাম্রাজ্যবাদের রক্তাক্ত থাবা। দিকে দিকে নিষ্পেষিত নিপীড়িত মানবতার আত্মচিৎকার। বাতাশ যখন বিসাক্ত-বিশ্ববাসি যখন খুঁজে মরছে সত্য পথের সন্ধান, এমন এক যুগ সন্ধিক্ষনে উৎভাসিত হন জয়নগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পথিকৃত জনাব আকরামুজ্জামান চৌধুরী। অন্ধকার অজ্ঞতার পাতা উল্টিয়ে প্রস্ফটিত করেন এই সূভাসিত-কোমলময়ী বিদ্যাপিটকে। এখন যার সুনাম-সুখ্যাতি এর গৌরব এলাকাজোড়া। সত্য সুন্দরের, মুক্তির হাজারো শ্বেত কবুতর উড়ানো হয়েছে এখান থেকেই। জ্ঞান-বুদ্ধির সুনিপুণ কৌশল এ তাজিওডং এর সাহস নিয়ে অন্ধকারাচ্ছন্ন বধির মানুষদেরকে শান্তির পথ দেখানোর জন্য স্বচেষ্ট এখানে প্রতিটি শিক্ষাগুরু জন। নির্মল বাতাসের প্রসবিত ঝর্ণার অন্বেষায় বিশ্বব্যপি অপেক্ষমান। বিশ্ব এগিয়ে চলছে সময়ের চেয়ে দ্রুত।
    জানার আগ্রহ মানুষকে জ্ঞান সমৃদ্ধ করে তোলে তাই জানার আগ্রহকে জানান দিতে হয় প্রকৃত জ্ঞানে। তাই বর্তমান বিশ্বকে জানান দিতে হবে। বিশ্বের বুকে বাংলার চির সবুজ পতাকাকে সমুজ্জ্বল রাখতে এগিয়ে আসতে হবে।
    শিক্ষাঙ্গনে চলছে আধুনাকানে- আধুনাচলে শিক্ষার বিশ্রী ঢল।মানব সভ্যতা আজ বিপন্ন। বিধ্বস্ত। কিন্তু পৌষ মাসেই বসন্তের অনুরোপন।
    এই বিদ্যাপিঠ থেকে বেরিয়ে আসা শিক্ষার্থীরা সমুজ্জ্বল রাখবে এই দেশকে বিশ্বের বুকে। জনাব শাহ আব্দুল হালিম, সিরাজুল হক খান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা এস এম কামাল তার উজ্বল দৃষ্টান্ত।
    দেশকে নেতৃত্ব দিয়ে নিয়ে যাবে সর্বাধুনিক যুগের এই বিদ্যালয়ে। তাদের যোগ্যতা দিয়ে। মেধার পরিচয় দিয়ে অসংখ্য মানুষের পথচলা করবে নির্বিঘ্ন-নিশ্চিন্ত-নিশ্চিত !!


    Facebook Comments


    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    webnewsdesign.com

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4669