• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    ঝিনাইদহে লেবুতলায় জঙ্গি আস্তানায় সাটল স্পিলিটি শেষ ৮ বোমা নিষ্ক্রিয়

    আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: | ০৮ মে ২০১৭ | ৭:৫২ অপরাহ্ণ

    ঝিনাইদহে লেবুতলায় জঙ্গি আস্তানায় সাটল স্পিলিটি শেষ ৮ বোমা নিষ্ক্রিয়

    ঝিনাইদহের সদর উপজেলার কুমড়োবাড়িয়া ইউনিয়নের লেবুতলায় অপারেশন সাটল স্পিলিটি শেষ হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় অভিযান শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ১০টা ২৪ মিনিটে বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ভেতরে প্রবেশ করে। এরপর থেকে অভিযান চলতে থাকে। অভিযানে একে একে মোট আটটি বোমা নিষ্ক্রিয় করেছে বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট। খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি দিদার আহমেদ। প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, কুমড়াবাড়িয়া ইউনিয়নের লেবুতলা গ্রামে ‘অপারেশন সাটল স্পিলিটি শেষ হয়েছে। সকালে জেলার সদর উপজেলার লেবুতলায় ‘অপারেশন সাটল স্পিলিটি অভিযানের দ্বিতীয় অংশ শুরু হয়।
    গতকালই সেখান থেকে ৭টি গ্রেনেড, ১টি বোমা, ১টি ৯ এমএম পিস্তল ও ছয় রাউন্ড গুলি পাওয়া গিয়েছিল। পরে ঢাকা থেকে আগত কাউন্টার টেরেরিজমের ইউনিটের বোমা নিষ্ক্রিয় কারী একটি দল ৭টি গ্রেনেড ও ১টি বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়।
    তিনি আরও জানায়, এই আস্তানায় বেশ কিছু ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস পাওয়া গেছে যেগুলো দিয়ে শক্তিশালী বোমা তৈরি করা যেতো। সকাল ১০টা ২৪ মিনিট থেকে এই অভিযান শুরু হয়ে বেলা দেড়টার দিকে অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। এর আগে পুলিশ প্রতিবেশীদের বাড়ির গৃহপালিত পশু নিয়ে বাড়ি ত্যাগ করতে বলে। জঙ্গি আস্তানার আশপাশে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ২০০ গজের মধ্যে সর্বসাধারণের প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা জারি করে মাইকিং করা হয়। স¤প্রতি নেবুতলায় মৃত শরাফত হোসেনের বাড়িতে জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পায় পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট।
    এরপর বৃহস্পতিবার সকালে শরাফত হোসেনের দুই ছেলে শামীম (২২), হাসান (৩৫) তাদের কে আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ। লেবুতলা গ্রামের হায়দার আলী জানান, মৃত শরাফত আলী প্রায় ২০ বছর আগে সদর উপজেলার কামারকুন্ডু এলাকা থেকে নেবুতলায় এসে বসবাস শুরু করেন। প্রায় ১০ বছর আগে মারা যান শরাফত হোসেন। শরাফত হোসেনের বড় ছেলে হাসান রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। আর ছোট ছেলে শামীম ঝিনাইদহ পলিটেকনিকে পড়াশোনা করে। তিনি আরো জানান, শরাফত হোসেনের দুই ছেলেকে কখনো কোনো আড্ডা দিতে দেখিনি।
    জসিম উদ্দিন নামের একজন জানান, শরাফত হোসেনের দুই ছেলে যে জঙ্গিবাদে জড়িত এটা পুলিশের অভিযান দেখেই টের পেলাম। এর আগে এমন কোনো কার্যক্রম দেখিনি। শরাফত হোসেনের ছোট ছেলে শামীম অনেক মেধাবী। পড়ালেখায় সে অনেক ভালো। আর বাবা শরাফত মারা যাওয়ার পর বড় ছেলে হাসান রাজমিস্ত্রির কাজ করে সংসারের হাল ধরেন।
    খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি মো. দিদার আহমেদ রোববার দুপুরে মহেশপুরের বজরাপুর গ্রামের জঙ্গি আস্তানা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, বজরাপুরের আস্তানায় আত্মঘাতী হামলায় দুই জঙ্গি নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া আহত পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের এডিসি নাজমুল ইসলাম, এসআই মুজিরুর রহমান ও ডিএসবির এসআই মহসীন। এরপর রাতে ওই আস্তানার অভিযান সমাম্প ঘোষণা করেন তিনি।
    ডিআইজি মো. দিদার আহমেদ আরো জানান, সদর উপজেলার নেবুতলা গ্রামে অভিযান চালিয়ে ৮টি বোমা, ১টি নাইন এমএম পিস্তল ও ৬টি গ্রেনেড পাওয়া গেছে। সোমবার সকাল থেকে সদর উপজেলার নেবুতলায় অভিযান চালানো হবে। এর আগে ২২ এপ্রিল ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পোড়াহাটি গ্রামের ঠনঠনেপাড়ায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা। অভিযানের নাম ছিল ‘অপারেশন সাউথ প’ বা দক্ষিণের থাবা। প্রায় ৪ ঘণ্টা ৪৫ মিনিটের অভিযানে ওই জঙ্গি আস্তানা থেকে বিস্ফোরক তৈরি রাসায়নিক ভর্তি ২০টি ড্রাম, একটি সেভেন পয়েন্ট সিক্স বোরের পিস্তল, একটা ম্যাগাজিন, সাত রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। পাঁচটি বোমা নিষ্ক্রিয় করা হয়।
    অপারেশন ‘সাউথ প’ সমাপ্ত ঘোষণার পর এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি দিদার আহমেদ জানান, বাড়িটিকে জঙ্গিদের বোমা তৈরির কারখানা বলা যেতে পারে। এ বাড়িতে তিন-চার জন জঙ্গি ছিল। তারা আগেই পালিয়ে গেছে। বাড়িটিতে জঙ্গি সংগঠনগুলোর বিভাগীয় পর্যায়ের লোকজন আসা যাওয়া করত বলেও জানান তিনি।


    Facebook Comments Box


    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757