• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    ঢাকার ২০টি আসনে আওয়ামী লীগের টিকিট পাচ্ছেন যারা

    নিজস্ব প্রতিবেদক: | ১১ জুলাই ২০১৭ | ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ

    ঢাকার ২০টি আসনে আওয়ামী লীগের টিকিট পাচ্ছেন যারা

    একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অনেক বিচার বিশ্লেষণ করেই প্রার্থী মনোনয়ন দেবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। জনবিচ্ছিন্ন ও বিতর্কিত দলীয় এমপি এবং নেতারা আগামী একাদশ নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত হবেন, এটাও নিশ্চিত। বিশেষ করে ঢাকা জেলার আসনগুলোতে দলীয় প্রার্থী মনোনয়নের ক্ষেত্রে খুবই সতর্কতা অবলম্বন করবে দলটি।


    একই সঙ্গে টানা জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রয়োজনে প্রার্থী মনোনয়নের ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনবে আওয়ামী লীগ। এতে প্রায় ৯টি আসনে প্রার্থী পরিবর্তনের সম্ভাবনা রয়েছে দলটির। যার ‘ক্লিন’ ইমেজ এবং নির্বাচনে জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে তাকেই মনোনয়ন দেবে।

    ajkerograbani.com

    একাদশ নির্বাচন আওয়ামী লীগের জন্য চ্যালঞ্জের। বিএনপি নির্বাচনে আসলে আওয়ামী লীগের জন্য কঠিন হবে সরকার গঠন করা। একদিকে রাজধানীর জলাবদ্ধতা অন্যদিকে মশা দমন করতে না পারা আওয়ামী লীগের জন্য বিপদ হেয় দাঁড়াবে। তাই আওয়ামী লীগ চাইবে এমন প্রার্থীকে মনোনয়ন দিতে যে কিনা পারবে বিজয়ী হতে।

    ঢাকা-১ (দোহার ও নবাবগঞ্জ) আসনে প্রার্থী দেবে আওয়ামী লীগ। কারণ, বর্তমান এমপি জাতীয় পার্টির নেতা সালমা ইসলাম। এরশাদের আরেকটি জোট গঠনের কারণে বাদ পড়তে পারেন তিনি। আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় আছেন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ও বেক্সিমকো গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান, দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুল মান্নান খান ও ঢাকা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান।

    ঢাকা-২ (কেরানীগঞ্জ-কামরাঙ্গীরচর) আসনে খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপির পাশাপাশি মনোনয়ন পেতে আটঘাট বেঁধে মাঠে নেমেছে কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহিন আহমেদ।

    ঢাকা-৩ (কেরানীগঞ্জ) আসনে একক প্রার্থী বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

    ঢাকা-৪ (শ্যামপুর-কদমতলী) আসনেও প্রার্থী দেবে আওয়ামী লীগ। বর্তমান এমপি জাতীয় পার্টির নেতা সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা। দলীয় একটি সূত্রে জানা গেছে, জাতীয় পার্টি আরেকটি জোট গঠন করার কারণে, মহাজোট থেকে মনোনয়ন পাবে না বাবলা। এই আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পেতে দৌড়ে আছেন, আওয়ামী লীগ সভাপতির সাবেক ব্যক্তিগত সমন্বয়কারী ড. আওলাদ হোসেন, সংরক্ষিত আসনের এমপি সানজিদা খানম, শ্যামপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন। এ প্রসঙ্গে সানজিদা খানম বলেন, আমি আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে নমিনেশন চাইব। কারণ আমি দুবার নৌকা প্রতীক পেয়েছি। আশা করি এবারও পাব।

    ঢাকা-৫ (ডেমরা-যাত্রাবাড়ী) আসনের বর্তমান এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লা। দলীয় এক সূত্রে জানা গেছে, বয়সের ভারে ন্যুব্জ হওয়ায় একাদশ নির্বাচনে দল থেকে মনোনয়ন নাও পেতে পারেন তিনি। সে ক্ষেত্রে যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ মুন্না এবং হাবিবুর রহমান মোল্লার ছেলে ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান সজলের সম্ভাবনা রয়েছে।

    ঢাকা-৬ (সূত্রাপুর-কোতোয়ালি) আসনে দলীয় প্রার্থী দিতে পারে আওয়ামী লীগ। বর্তমান এমপি জাতীয় পার্টির নেতা ফিরোজ রশিদ। সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় আছেন মহানগরের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু আহমেদ মান্নাফি, সাংগঠনিক সম্পাদক হেদায়েতুল ইসলাম স্বপন, ওয়ারী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী আশিকুর রহমান লাভলু, সূত্রাপুর থানার সভাপতি হাজী মো. শাহিদ।

    ঢাকা-৭ (লালবাগ-চকবাজার) আসনের বর্তমান এমপি হাজী মোহাম্মদ সেলিম। ২০১৪ সালের জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেন তিনি। এদিকে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হুমায়ুন কবির, ২৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আলহাজ হাসিবুর রহমান মানিক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোহাম্মদ আকতার হোসেন।

    ঢাকা-৮ (রমনা-মতিঝিল) আসনে বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপি আগামী নির্বাচনে পুনরায় মনোনয়ন পেতে পারেন। তবে এই আসনটিতে দলীয় প্রার্থী দেওয়ার সম্ভাবনা আছে আওয়ামী লীগের। সম্ভাব্য প্রার্থী সাবেক কমিশনার কামাল চৌধুরী, মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আশরাফ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাঈল হোসেন সম্রাট এবং সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা কাউসারের নাম শোনা যাচ্ছে।

    ঢাকা-৯ (মুগদা-সবুজবাগ) আসনে একক প্রার্থী সাবের হোসেন চৌধুরী এমপি।

    ঢাকা-১০ (ধানমন্ডি) আসনের একক প্রার্থী ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস এমপি।

    ঢাকা-১১ (বাড্ডা-ভাটারা) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম রহমতউল্লাহ। আগামী জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে একক প্রার্থী তিনি। দলীয় একটি সূত্রে জানা গেছে, একাদশ নির্বাচনে মনোনয়নের ক্ষেত্রে তাকেই বিবেচনা করা হবে। কারণ, এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন তিনি।

    ঢাকা-১২ (তেজগাঁও) আসনে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী থাকলেও আগামী সংসদ নির্বাচনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি দল থেকে মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। নির্বাচনী এলাকায় দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে তার।

    ঢাকা-১৩ (মোহাম্মদপুর-আদাবর) আসনে আগামী নির্বাচনে বর্তমান এমপি, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবীর নানক এবং ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খানের নাম শোনা যাচ্ছে।

    ঢাকা-১৪ (মিরপুর-শাহআলী) আসনের এমপি আসলামুল হক। এ আসনে সংরক্ষিত আসনের এমপি ও ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী মহিলা যুবলীগের সভাপতি সাবিনা আকতার তুহিনের নাম উঠে এসেছে আলোচনায়।

    ঢাকা-১৫ (কাফরুল) আসনে বর্তমান এমপি কামাল আহমেদ মজুমদার মনোনয়ন না পেল সেক্ষেত্রে আলোচনায় রয়েছেন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক গাজী মেজবাউল হক সাচ্ছু, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম জাহিদ, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সভাপতি মাঈনুল হোসেন খান নিখিল, সাংসদ ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লার ভাই এখলাছ উদ্দিন মোল্লা, কাফরুল থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ৪নং ওয়ার্ড কমিশনার আলহাজ জামাল মোস্তফা, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবমহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক লুৎফা খাতুন তাহেরা।

    ঢাকা-১৬ (পল্লবী-রূপনগর) আসনে একাদশ নির্বাচনে বর্তমান এমপি ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লার মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। সম্ভাব্য প্রার্থী মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এম এ মান্নান কচি, সাংগঠনিক সম্পাদক ফকির মহিউদ্দিন।

    ঢাকা-১৭ (গুলশান-ক্যান্টনমেন্ট) আসনে প্রার্থী দেবে আওয়ামী লীগ। সেক্ষেত্রে সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী ও দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কর্নেল (অব.) ফারুক খান এমপির নাম শোনা যাচ্ছে। তবে তিনি গোপালগঞ্জ-১ থেকেই নির্বাচন করবেন। ওখানে পরপর চারবার সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া এ আসনে সম্ভাব্য প্রার্থী রয়েছেন ঢাকা উত্তর আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক গুলশান থানার সভাপতি ওয়াকিল উদ্দিন ও ২০নং ওয়ার্ড কমিশনার নাসির উদ্দিন।

    ঢাকা-১৮ (উত্তরা) আসনে দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন এমপি পুনরায় মনোনয়ন পেতে পারেন বলে দলীয় এক সূত্রে জানা গেছে। এই আসনটিতে সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় আরো ৫জন প্রার্থী রয়েছে।

    ঢাকা-১৯ (সাভার) আসনে দলটির প্রার্থী পরিবর্তন আসতে পারে। ঘুরেফিরে সাবেক এমপি তালুকদার তৌহিদ জং মুরাদের নাম শোনা যাচ্ছে। তবে বর্তমান এমপি এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডা. এনামূর রহমানও আলোচনায় রয়েছেন।

    ঢাকা-২০ (ধামরাই) আসনেও পরিবর্তন আসতে পারে। এই আসনটির বর্তমান এমপি ধামরাই থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল মালেক। এই আসনটিতে সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় একাধিক প্রভাবশালী নেতা রয়েছে।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4755