• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    দার্জিলিঙের রাস্তায় যা করলেন মমতা… (ভিডিও)

    অগ্রবাণী ডেস্ক | ০৯ জুন ২০১৭ | ৪:২০ অপরাহ্ণ

    দার্জিলিঙের রাস্তায় যা করলেন মমতা… (ভিডিও)

    বৃহস্পতিবার গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার হিংসাত্মক আন্দোলনে পাহাড়ে আটকে পড়েন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এখন তিনি দার্জিলিঙেই থাকবেন। চিরাচরিত সরু পাড়ের সাদা শাড়ি, পায়ে হাওয়াই, কিন্তু সাদা চাদর ছেড়ে গায়ে চাপিয়ে নিয়েছেন কার্ডিগান। নিরাপত্তারক্ষী-সাংবাদিক বেষ্টিত হয়ে দ্রুত পায়ে হেঁটে চলেছেন ম্যালের দিকে। শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সকালের হাঁটা ছিল অন্যরকম।


    কার্ডিগানের হাতা গুটাতে গুটাতেই ম্যালে জমা হওয়া পর্যটকদের আশ্বস্ত করছেন মুখ্যমন্ত্রী। সরকার তাঁদের পাশে আছে— এই বার্তা তিনি প্রথমেই দিয়েছেন। কোনও জঙ্গি আন্দোলন তিনি বরদাস্ত করবেন না বলে দিয়েছেন। জানিয়ে দিয়েছেন, পরিস্থিতি সামলাতে তিনি এখন দার্জিলিঙেই থাকবেন।

    ajkerograbani.com

    আহত পুলিশ কর্মীদের জন্য ২৫ হাজার টাকা করে বরাদ্দ করেছেন। বলে দিয়েছেন, যে পুলিশকর্মীর চোখে আঘাত লেগেছে তাঁকে আপাতত হেলিকপ্টারে করে দার্জিলিঙ থেকে কলকাতায় শঙ্কর নেত্রালয়ে নিয়ে যাওয়া হবে। দরকার হলে বিদেশেও চিকিৎসার ব্যবস্থা করবে সরকার।

    কিন্তু গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার হিংসাত্মক আন্দোলনের প্রেক্ষিতে সরকার কী ব্যবস্থা নেবেন জিজ্ঞাসা করায় মমতা বলেন, ‘‘দু’চার জন এই গোলমাল করছে। সরকার এটা বরদাস্ত করবে না। আইন আইনের পথে চলবে। কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়।’’

    গরমের সময়ে যখন দার্জিলিঙ ভিড়ে ঠাসা, তখন এই ধরনের আন্দোলনের সমালোচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘পর্যটকরা পাহাড়ের লক্ষ্ণী তাঁদেরকে পায়ে ঠেলছে! এরা পাহাড়বাসীর জন্য কী আন্দোলন করছে?’’

    গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার ডাকা বন্‌ধের দিন এ ছিল অন্য দার্জিলিঙ। এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি কোনওদিন হননি মমতা। ৪৫ বছর পরে পাহাড়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক করে পাহাড়বাসীকে উন্নয়নের বার্তা আরও একবার দিতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার জঙ্গি আন্দোলন সেই বৈঠককে সরিয়ে দিয়েছে শিরোনাম থেকে। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ করে, গাড়িতে আগুন জ্বালিয়ে, বন্‌ধ ডেকে পুরনো দার্জিলিঙের ছবিটিকেই ফিরিয়ে এনেছে মোর্চা। আটকে পড়েছেন মুখ্যমন্ত্রী-সহ সরকারের শীর্ষ আমলারা।

    আসলে এই পরিস্থিতির জন্য মমতাকেই দায়ী করছেন বিরোধীরা। তাঁর দার্জিলিঙ-নীতিই ভুল বলে দাবি করেছেন তাঁরা। গোর্খা জনমুক্তি মোর্চাকে প্রশ্রয় দেওয়া, গোর্খাল্যান্ডের দাবি জিইয়ে রাখা, বিভাজনের রাজনীতি, গায়ের জোর দেখানোর অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা মমতার বিরুদ্ধে।

    খানিকটা অঘোষিতভাবেই সেই দায় মমতা নিজের কাঁধেই তুলে নিয়েছেন। আটকে পড়া পর্যটকদের ফেলে রেখে তিনি পাহাড় ছাড়তে পারেননি। তাই অনেক মন্ত্রীদের কলকাতায় পাঠিয়ে দিলেও অরূপ বিশ্বাসকে সঙ্গে রেখেছেন। পুলিশের ডিজি, মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্র সচিবরাও রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গেই।

    পরে মাইক হাতে নিয়ে গাড়িতে করে ঘুরে পর্যটকদের সুবিধা-অসুবিধার দেখভাল করেছেন তিনি। হাসপাতালে গিয়ে দেখে এসেছেন আহতদের।

    এইরকম ‘দুর্যোগ মোকাবিলায়’ মমতা বরাবরই রাস্তায় নেমেই সামাল দিয়েছেন পরিস্থিতি। মাটি কামড়ে তিনি পড়ে থাকবেন, তা আবার দেখালেন শুক্রবার।

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757