শুক্রবার, জুলাই ২, ২০২১

দু’বার অন্তঃসত্ত্বা: ভালোবাসার মানুষের বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

  |   শুক্রবার, ০২ জুলাই ২০২১ | প্রিন্ট  

দু’বার অন্তঃসত্ত্বা: ভালোবাসার মানুষের বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

স্ত্রীর অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে ভালোবাসার মানুষের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন এক নারী। অভিযুক্ত ছানাউল হক ওরফে হক মিয়া ময়মনসিংহের গৌরীপুর পৌরসভার গজন্দর গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সানাউলের সঙ্গে তার ভাইয়ের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক থাকার কারণে প্রায়ই ছানাউল তাদের বাড়িতে যেতেন। এ সুবাধে ভালো লাগা থেকে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে উঠে তাদের। এক পর্যায়ে জেলা শহরের একটি আবাসিক হোটেলে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন ছানাউল। এতে ওই কলেজছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। পরে বিয়ে করার আশ্বাসে ওই সন্তান নষ্ট করে কলেজছাত্রী। পরে তাকে পাঁচ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য করে বিয়ে করে কাবিননামা তুলে দেয় ভিক্টিমের হাতে।
পরবর্তীতে তারা গাজীপুরে একটি ভাড়াবাসায় বসবাস শুরু করেন। আবারো ওই কলেজছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। পরে ওই কলেজছাত্রী তার অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি সানাউলকে জানালে এটি তার সন্তান নয় বলে অস্বীকার করেন। এমনকি বিয়ের নিবন্ধনও ভুয়া বলে দাবি করেন সানাউল।
এ ঘটনায় গত ১৬ জুন ওই কলেজছাত্রী ময়মনসিংহ জেলা শিশু ও নারী নির্যাতন দমনের বিশেষ আদালতে নালিশি আবেদন করেন। আদালত তা আমলে নিয়ে ময়মনসিংহ জেলা পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদনের নির্দেশ দেন।
ময়মনসিংহ জেলা পিবিআই পরিদর্শক মো. ফিরোজ হোসেন জানান, এরইমধ্যেই আদালতের প্রয়োজনীয় কাগজ পেয়েছি। এ ছাড়াও ওই কলেজছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার সব কাগজপত্র জমা দিয়েছেন। ওই কলেজছাত্রীকে আগামী রোববার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ফরেনসিক পরীক্ষা করে মামলার তদন্ত কাজ শুরু করা হবে।
এ বিষয়ে ছানাউল হকের মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি।


Posted ১১:১১ পিএম | শুক্রবার, ০২ জুলাই ২০২১

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement