শুক্রবার, এপ্রিল ২৩, ২০২১

নাসার মঙ্গল যাত্রায় যান তৈরিতে বাংলাদেশ ১১তম

  |   শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১ | প্রিন্ট  

নাসার মঙ্গল যাত্রায় যান তৈরিতে বাংলাদেশ ১১তম

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা ২০২৪ সালে চাঁদে নভোচারী পাঠানোর পরিকল্পনা করছে যা পরবর্তীতে ২০৩০ সালের মঙ্গলগ্রহে মানব অভিযানকে ত্বরান্বিত করবে। চাঁদ ও মঙ্গলগ্রহ অভিযান সম্ভব করতে প্রয়োজন মানব-চালিত রোভার।n
সেই লক্ষ্যকে কেন্দ্র করে নাসা প্রত্যেক বছর আন্তর্জাতিকভাবে আয়োজন করে আসছে এমন একটি প্রতিযোগিতা যেখানে শিক্ষার্থীরা তাদের সৃজনশীল মেধা কাজে লাগিয়ে সম্পূর্ণ ভিন্ন এক গ্রহ বা উপগ্রহের জন্য একটি মানব-চালিত রোভারের থ্রি-ডি ডিজাইন, প্রোটো টাইপ তৈরি ও তা সফলভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার সুযোগ পায়।
১৯৯৪ সাল থেকে এই প্রতিযোগিতা ‘গ্রেট মুন বাগিরেস’ নামে যাত্রা শুরু করলেও ২০১৪ সালে এর নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় ‘নাসা হিউম্যান এক্সপ্লোরেশন রোভার চ্যালেঞ্জ’।
এই প্রতিযোগিতার ধারাবাহিকতায়ও আনা হয় আমূল পরিবর্তন, টেস্ট গ্রাউন্ডে যোগ করা হয় মঙ্গল গ্রহের ন্যায় ভূখণ্ড ও ধাপে ধাপে সারা বিশ্ব থেকে বিভিন্ন শিক্ষার্থীদের দল যোগদান করার সুযোগ লাভ করে।
২০২১ সালের এ প্রতিযোগিতায় নাসার বাছাইকৃত বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ২৩টি আন্তর্জাতিক দল ও ৩২টি আমেরিকান দল ৮টি দেশ ও ২২টি আমেরিকান অঙ্গরাজ্যকে প্রতিনিধিত্ব করার গৌরব অর্জন করে।
গবেষণার এ বৃহৎ কর্মযজ্ঞে পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও। বি এ সি ইন্টারন্যাশনাল স্টাডি সেন্টারের দল ‘টেন-ড্রিমার্স’ এ বছর বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরার সুযোগ পায়।
টেন-ড্রিমার্সের ক্যাপ্টেন জাহিদ হাসান শোভন জানায়, ‘আমরা পুরো এক বছর মানব-চালিত রোভার নিয়ে গবেষণার পর নাসাতে ইন্টারন্যাশনাল টিম প্রপোজাল জমা দিয়েছিলাম। রাব্রিক পদ্ধতিতে বিভিন্ন মানদণ্ডে নাসা এই প্রপোজালের মূল্যায়ন করে ২০২০ সালের নভেম্বরে আমাদের রোভারের ডিজাইন এ প্রতিযোগিতার জন্য উপযোগি বলে ঘোষণা করে ও আমরা বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ লাভ করি।’
এটি কোনো সাধারণ অফ-রোড যান নয়। কলাপস্ট অবস্থায় দৈর্ঘ্য, প্রস্থ ও উচ্চতায় সবদিকেই ৫ ফিট আয়তনের মধ্যে তৈরি করতে হয় এ বাহন। শুধু তাই নয়, এ যানটির ৫ ফিট আপহিল উঠার সক্ষমতা সহ সামনে-থেকে-পিছনে ও এক দিক-থেকে-অন্যদিক ৩০ ডিগ্রি ঢাল অতিক্রান্ত করার কার্যক্ষমতা থাকতে হয়। এছাড়া গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স হতে হয় ১২ ইঞ্চির বেশি ও টার্নিং রেডিয়াস ১৫ ফুটের কম।
টিমের নির্বাহী ডিজাইনার তামিম আল মাহিরের বক্তব্য অনুযায়ী এ মানব-চালিত রোভারের থ্রি-ডি ডিজাইনের জন্য ব্যবহার করা হয়েছে ব্লেন্ডার ২.৮ সফটওয়্যার। মঙ্গলগ্রহ ও চাঁদের জন্য উপযোগি এই রোভারের ডিজাইন করতে সময় লেগেছে ১৮০ ঘণ্টা ও পর্যাপ্ত খুঁটিনাটি যোগ করায় ফাইল সাইজ হয়ে দাঁড়িয়েছে ৩.৫ জিবি। ডিজাইন রিভিউ (ডিআর) প্রেজেন্টেশনে নাসার বিজ্ঞানীরা এমন চমক প্রদ ডিজাইনের ভূয়সী প্রশংসা করেছে।
অন্যদিকে, চলমান করোনা মহামারীর কারণে দলের মার্কেটিং বিভাগকে অর্থ যোগানের ব্যবস্থা করতে নানাবিধ প্রতিকূলতার সম্মুখীন হতে হয়েছে। তাই, পিছিয়ে পড়ে কাজের অগ্রগতি।
অবশেষে, বি এ সি ইন্টারন্যাশনাল স্টাডি সেন্টার শিক্ষার্থীদের এমন উদ্যোগের পাশে দাঁড়াতে প্রাথমিক কিছু আর্থিক সহায়তা প্রদান করে। ঠিক তারপর থেকেই ‘বি এ সি ইউনিভার ১.০’ এর ৩ মাসের কাজ ১৫ দিনে করার সিদ্ধান্ত নেয় দলটি।


Posted ৮:৫৭ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০