• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    পুলিশের বিরুদ্ধে ফেনসিডিল রেখে ব্যবসায়ীকে আটকের চেষ্টা, রাস্তা অবরোধ

    নিজাম উদ্দিন শিমুল(যশোর ব্যুরো প্রধান) | ১৬ মে ২০১৭ | ৯:৩৬ অপরাহ্ণ

    পুলিশের বিরুদ্ধে ফেনসিডিল রেখে ব্যবসায়ীকে আটকের চেষ্টা, রাস্তা অবরোধ

    যশোরের চৌগাছায় এবার দোকানের পাশে ফেনসিডিল রেখে ব্যবসায়ীকে আটকের চেষ্টার ঘটনায় পুলিশের দুই এএসআইকে ধাওয়া দিয়েছে স্থানীয়রা। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার খড়িঞ্চা বাজারে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার বিচার দাবি করে সড়কে টায়ার পুড়িয়ে অবরোধ করে রাখে এলাকাবাসী। পরে যশোর ‘ক’ সার্কেলের এডিশনাল এসপি নাইমুর রহমানের নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন। এর আগে ইয়াবা ট্যাবলেট রেখে আটকের চেষ্টায় এক পুলিশ কর্মকর্তাকে ধাওয়া দিয়েছিল ব্যবসায়ীরা।


    ভুক্তভোগী খড়িঞ্চা গ্রামের চায়ের দোকানদার আবদুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, ‘প্রতিদিনের মত মঙ্গলবার দুপুরে তিনি দোকান বন্ধ করে তিন কিলোমিটার দুরের পুড়াপাড়া বাজারে যান। সেখান থেকে দুপুর ১টার দিকে দোকানের মালামাল নিয়ে ফিরে দেখতে পান চৌগাছা-পুড়াপাড়া সড়কের পাশে খড়িঞ্চা বাজারে অবস্থিত তার চায়ের দোকানের পাশে একটি সাদা মাইক্রো দাঁড়িয়ে আছে।

    ajkerograbani.com

    চৌগাছা থানার এএসআই সাজ্জাদ এবং এএসআই মাসুদ তার দোকানের পিছনে কিছু রাখছেন। এসময় তিনি কে ওখানে, কি রাখছেন বলে চিৎকার করে ওঠেন। চিৎকার শুনে দুই পুলিশ কর্মকর্তা তাকে বলেন এই ফেনসিডিল তুই দোকানের পিছনে রেখেছিস। তুই এই ফেনসিডিলের মালিক। এ কথা বলে তারা তাকে আটকের চেষ্টা করেন।

    তিনি প্রতিবাদ করলে পাশ থেকে বাজারে থাকা লোকজন এগিয়ে এসে দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে ঘিরে ধরে বিক্ষোভ করতে থাকেন। এসময় গ্রামের মেম্বার আবদুল মান্নান এসে দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে ছাড়িয়ে দেন।

    এঘটনার প্রতিবাদে এবং ওই দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে বিচারের দাবিতে স্থানীয় জনতা চৌগাছা-পুড়াপাড়া সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে এবং যানচলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে চৌগাছা থানার ওসি (তদন্ত) মারুফ আহমেদ এবং সেকেন্ড অফিসার আকিকুল ইসলামের নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেন। এরপর যশোরের এডিশনাল এসপি ‘ক’ সার্কেল নাইমুর রহমান গিয়ে ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে সুষ্ঠ বিচারের আশ্বাস দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

    স্থানীয়রা জানান ব্যবসায়ী আবদুর রহমানের সাথে গ্রামের মেম্বার আবদুল মান্নানের বিরোধ ছিল। এজন্য তিনি দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে দিয়ে চায়ের দোকানদারকে ফাঁসাতে চেয়েছিলেন।

    এ বিষয়ে এডিশনাল এসপি ‘ক’ সার্কেল নাইমুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, ‘অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে এসেছি। ঘটনার তদন্ত করে আমার পুলিশের কেউ যদি কোন প্রকার অপকর্মের সাথে জড়িত থাকে অবশ্যই তার বিচার হবে।’

    উল্লেখ্য, এর আগে চৌগাছা বাজারের এক দোকানে ইয়াবা ট্যাবলেট রেখে আটকের চেষ্টা করার সময় সিসিটিভি ফুটেজ দেখে জনতার ধাওয়া খেয়ে চৌগাছা থানার তৎকালীন এএসআই সিরাজ ও এক কনস্টেবল পালিয়ে রক্ষা পান।

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757