• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গেও ‘ট্রাফিক জ্যাম’

    অনলাইন ডেস্ক | ১৮ এপ্রিল ২০১৭ | ৮:৪৩ পূর্বাহ্ণ

    পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গেও ‘ট্রাফিক জ্যাম’

    ট্রাফিক জ্যাম মানে যানজট। কিন্তু যেখানে যান নেই, সেখানে জট হলে কী হবে? নেপালের এভারেস্ট পর্বতমালায় পর্বতারোহীদের ভিড়ে তেমনই অবস্থা হয়েছে। পর্বতারোহী ও শেরপাদের ভিড়ে এবার পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গেও ‘ট্রাফিক জ্যাম’ দেখা দিতে পারে!
    বছরের এই সময়টাতে আকাশ পরিষ্কার থাকে। তাই পর্বতারোহীরাও নিরাপদে চূড়ায় উঠতে এই সময়টাকেই বেছে নেন। ধারণা করা হচ্ছে, চলতি বছর প্রায় ৪০০ জন পর্বতারোহী এভারেস্টের চূড়ায় ওঠার চেষ্টা করবেন। প্রত্যেক পর্বতারোহীকে পথ দেখিয়ে নেওয়ার জন্য সঙ্গে থাকবেন কয়েকজন করে শেরপা। সেই হিসাবে এবার এভারেস্টে উঠবেন ১ হাজারের বেশি মানুষ। এরই মধ্যে এভারেস্টে ওঠার বেস ক্যাম্পে দলে দলে পর্বতারোহীরা পৌঁছাতে শুরু করেছেন।
    চূড়ায় উঠতে সাহায্য করা শেরপাদের মধ্যে সোনাম শেরপা বেশ বিখ্যাত। পর্বতারোহীদের সহকারী হিসেবে মোট পাঁচবার পৃথিবীর সর্বোচ্চ চূড়ায় পা রেখেছেন তিনি। সোনাম বলেন, ‘আবহাওয়া ভালো থাকতে থাকতেই সবাই চূড়ায় উঠতে চায়। সবারই তাড়া থাকে। কিন্তু পর্বতারোহীদের অভিযানের ক্ষেত্রে কোনো সঠিক ব্যবস্থাপনা নেই। তাই এ বছর সেখানে ‘ট্রাফিক জ্যাম’ হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এভারেস্ট জয় করে ফেরার সময় প্রায় সময়ই অক্সিজেনের অভাব থাকে। তখন যদি লম্বা লাইনের মধ্যে পড়তে হয়, তাহলে অনেকের জীবন ঝুঁকিতে পড়বে।’
    দ্য কাঠমান্ডু পোস্ট-এর বরাতে জানা গেছে, ভালো আবহাওয়ায় সাধারণত ২, ৩ ও ৪ নম্বর ক্যাম্প থেকে একযোগে পর্বতারোহীরা এভারেস্টের পথে রওনা দেন। এতে করেই জট দেখা দিতে পারে। এভারেস্টের দূষণ নিয়ন্ত্রণ কমিটি জানিয়েছে, এরই মধ্যে ২৬৭ জন পর্বতারোহী বেস ক্যাম্পের দিকে রওনা হয়েছেন।
    কিন্তু কেন এ বছরই পর্বতারোহীদের ভিড় বেশি? নেপালের পর্যটন বিভাগের তথ্য কর্মকর্তা দুর্গাদত্ত ধাকাল বলেন, ২০১৫ সালে সরকার একটি আইন করেছিল, যার আওতায় ২০১৪ সালে এভারেস্টে ওঠার অনুমতি নেওয়া পর্বতারোহীরা তিন বছরের মধ্যে তাঁদের অভিযান শেষ করার সুযোগ পেয়েছিলেন। এবারই সেই সুযোগ কাজে লাগানোর শেষ বছর। তাই ২০১৪ সালে অনুমতি নিয়ে রাখা অনেক পর্বতারোহীই এবার ভিড় জমিয়েছেন বেস ক্যাম্পে।
    গত দুই বছরে এভারেস্ট অভিযানে বেশ কয়েকজন পর্বতারোহীর মৃত্যু হয়েছিল। ২০১৫ সালে ভূমিকম্পের কারণে সৃষ্ট এক তুষারধসে নিহত হয়েছিলেন ১৯ জন পর্বতারোহী। আর ২০১৪ সালে সংখ্যাটি ছিল ১৬। ১৯৫৩ সালের পর থেকে এভারেস্টে উঠতে গিয়ে এখন পর্যন্ত ২৮০ জনের বেশি পর্বতারোহী প্রাণ হারিয়েছেন।


    Facebook Comments


    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    webnewsdesign.com

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    বিয়ে করাই তার নেশা!

    ২১ জুলাই ২০১৭

    কে এই নারী, তার বাবা কে?

    ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4669