• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    প্রধানমন্ত্রীর নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ড ক্যান্টিনের রান্নাঘরে!

    অগ্রবাণী ডেস্ক: | ১৫ এপ্রিল ২০১৭ | ১০:১৩ অপরাহ্ণ

    প্রধানমন্ত্রীর নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ড ক্যান্টিনের রান্নাঘরে!

    পহেলা বৈশাখে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিসহ বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাঠানো শুভেচ্ছা কার্ড পড়ে আছে মধুর ক্যান্টিনের রান্নাঘরে। ওই কার্ডগুলো রান্নাঘরে পড়ে থাকতে দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সংগঠনটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা। শীর্ষ নেতাদের সদিচ্ছার অভাবেই কার্ডগুলো অযত্নে পড়েছিল বলে অভিযোগ তাদের।


    কার্ড না পাওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ক্ষোভ প্রকাশ করেন কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মেহেদী হাসান রনি। তিনি বলেন, ‘শুক্রবার বিকাল ৫টায় মধুর ক্যান্টিনের রান্নাঘরে গিয়ে দেখি পাঁচটি বান্ডিলে ৭০০-৮০০ কার্ড পড়ে আছে।’

    ajkerograbani.com

    তিনি জানান, পরে শনিবার সকালে কার্ডগুলো ক্যান্টিনের টেবিলে রাখা হয়। এসময় ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ক্যান্টিনের এক কর্মচারীকে কার্ডগুলো সরিয়ে নিতে বলেন।

    রনি বলেন, ‘শনিবার সকাল ১০টার দিকে রান্নাঘরে পড়ে থাকা কার্ডগুলোর ছবি উঠিয়ে ফেসবুকে দিয়ে এর প্রতিবাদ জানাই। কারণ আমি যখন বিশ্ববিদ্যালয়ের হল সভাপতি ছিলাম, তখনও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা কার্ড পেয়েছি। আর এখন কেন্দ্রীয় নেতা হয়েও কার্ড পাচ্ছি না।’

    তিনি জানান, ‘২-৩টি ছাড়া বাকি কার্ডগুলো কাউকেই দেয়া হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা কার্ডগুলোর সঙ্গে আমাদের আবেগ জড়িয়ে থাকে। সেগুলোকে এভাবে অযত্নে রেখে দেয়া মেনে নেয়া যায় না।’

    এ বিষয়ে ছাত্রলীগের দফতর সম্পাদক দেলোয়ার শাহজাদা বলেন, ‘সংগঠনের এ ধরনের কার্ড সাধারণত আমিই বিতরণ করে থাকি। তবে এবারের পহেলা বৈশাখের কার্ডের বিষয়ে কিছু জানি না। বিতরণের জন্য কোনো কার্ড আমাকে দেয়া হয়নি। এমনকি আমার নিজের কার্ডও পাইনি।’

    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান বলেন, ‘কার্ড দেয়া-নেয়ার আমরা কেউ না। এটা কেন্দ্রীয় কমিটির বিষয়। তারাই কার্ড বণ্টন করে।’

    ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন বলেন, ‘নববর্ষের আগের দিন সন্ধ্যায় কার্ডগুলো আসে। আমরা কার্ড পেয়েছি দেড়শ’, অথচ কেন্দ্রীয় কমিটিই ৩০১ সদস্যের।’

    তিনি বলেন, ‘একদিকে কার্ডের সংখ্যা কম, অন্যদিকে হাতেও সময় ছিল না। সেকারণে সবাইকে কার্ডগুলো দেয়া হয়নি। এছাড়া পহেলা বৈশাখের আগে কেন্দ্রীয় সভাপতি ও আমি সাংগঠনিক কাজে অত্যন্ত ব্যস্ত ছিলাম। তবে আমাদের আরও সচেতন থাকা দরকার ছিল।’

    এ বিষয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, ‘ছাত্রলীগকে মাত্র দেড়শ’ কার্ড দেয়া হয়েছে। সেগুলো আমরা পোঁছে দিয়েছি।’

    তাহলে মধুর ক্যান্টিনে কিভাবে কার্ড আসলো- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ওইসব নববর্ষের কার্ড না। আগের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের কার্ড।’ সূত্র: যুগান্তর [LS]

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757