• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    অফিস কক্ষ ভাঙচুর

    প্রধান শিক্ষকসহ তিনজনকে পেটালেন আওয়ামী লীগ নেতা

    অনলাইন ডেস্ক | ০৫ এপ্রিল ২০১৭ | ৭:০৭ অপরাহ্ণ

    প্রধান শিক্ষকসহ তিনজনকে পেটালেন আওয়ামী লীগ নেতা

    রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার কালীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ ৩ জনকে পিটিয়ে জখম করেছেন উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবদুল মজিদ সরদার ও তার লোকজন।


    বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনার সময় বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়।


    হামলায় আহতরা হলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন (৫৫), সহকারী শিক্ষক (শরীর চর্চা) সাইফুল ইসলাম (৪০) ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতির ছেলে রবিউল ইসলাম (৪২)। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

    পুলিশ ও বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জানান, বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবদুল মজিদ সরদার লোকজন নিয়ে বিদ্যালয়ে প্রবেশ করে অতর্কিতভাবে হামলা চালান। এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ আরও দুইজনকে মারপিট করা হয়।

    প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন জানান, কয়েকদিন আগে বিদ্যালয়ের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের জন্য রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে তালিকা পাঠানো হয়। আবদুল মজিদকে না জানিয়ে ওই তালিকা কেন শিক্ষা বোর্ডে পাঠানো হয়েছে এমন অভিযোগ তুলে লোকজন নিয়ে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে প্রবেশ করে তাকে টেনে হিঁচড়ে বাইরে বের করতে থাকে। এ সময় বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সাইফুল ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবদুল গফুর শাহ’র ছেলে রবিউল ইসলাম বাধা দিলে আবদুল মজিদ পিস্তল বের করে তাদের সরে যেতে বলেন। এক পর্যায়ে লাঠি ও হাতুর দিয়ে তাদের পেটাতে থাকেন।

    বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবদুল গফুর শাহ জানান, বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালীন আবদুল মজিদ লোকজন নিয়ে হামলা চালায় এবং বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষ ভাঙচুর করে। প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেনকে বাঁচাতে গেলে তার ছেলে রবিউল ইসলামকে আঘাত করা হয়। এ সময় রবিউলের বাম হাতের আঙ্গুল কেটে যায়। এছাড়া সহকারী শিক্ষক সাইফুলকেও মাটিতে ফেলে কিলঘুসি ও লাঠি দিয়ে আঘাত করা হয়।

    দুর্গাপুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রের টিএইচও ডা. দেওয়ান নাজমুল আলম জানান, আহতদের মধ্যে প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেনের অবস্থা গুরুতর। তার ডান চোখের নিচে হাতুর দিয়ে আঘাত করার কারণে চোখের নিচে ফুলে রক্ত জমাট বেঁধেছে। এছাড়া ডান কানের পর্দা ফেটে রক্ত বের হচ্ছে। তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। এছাড়া আহত রবিউল ইসলামের বাম হাতের আঙ্গুলে চারটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। রবিউল ও সাইফুলকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

    দুর্গাপুর থানার ওসি রুহুল আলম জানান, এ ঘটনার খবর পেয়ে কালীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে পুলিশ পাঠানো হয়। এ সময় মজিদ ও তার লোকজন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে সে জন্য ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান ওসি।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    webnewsdesign.com

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4669