• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    প্রেমিকাকে সেলফি তুলে দেখাতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু

    অগ্রবাণী ডেস্ক: | ১৯ জুন ২০১৭ | ১:১২ অপরাহ্ণ

    প্রেমিকাকে সেলফি তুলে দেখাতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু

    প্রেমিকাকে মুগ্ধ করতে কে না চায়? তাই বলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তো আর করা যায় না। এমনই এক কাণ্ড করতে গিয়ে জীবন দিয়ে খেসারত দিলেন ভারতের লখনৌর এক যুবক।


    প্রেমিকাকে ট্রেনের ছাদে উঠে সেলফি তুলে দেখাতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছেন সন্দীপ মৌর্য্য (২৪) নামের ওই যুবক।

    ajkerograbani.com

    ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার উত্তর প্রদেশের লখনৌর চারবাগ স্টেশনে।

    একটি হিন্দি দৈনিকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার নিজের প্রেমিকা এবং তার পরিবারের সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীরের বৈষ্ণোদেবী মন্দির পরিদর্শনে যাচ্ছিলেন ওই যুবক।

    সব মিলিয়ে সাতজন বেগমপুরা এক্সপ্রেসের জন্য চারবাগ স্টেশনে অপেক্ষা করছিলেন। হঠাৎই স্টেশনের একটি প্ল্যাটফর্মে দাঁড়িয়ে থাকা মালগাড়ির ছাদে উঠে পড়েন সন্দীপ। উদ্দেশ্য প্রেমিকাকে ‘ইমপ্রেস’ করা।

    মালগাড়ির ছাদে উঠেই ক্ষান্ত হননি সন্দীপ। নিজের মোবাইলে একের পর এক সেলফি তুলতে থাকেন। সেলফি তুলতে তুলতে প্রেমিকা এবং তার পরিবারের সদস্যদের হাত নাড়তে থাকেন ওই যুবক। তখনই সন্দীপের একটি হাত আচমকা উপরের উচ্চ ভোল্টেজের বিদ্যুতের তারে লেগে যায়। সঙ্গে সঙ্গে তড়িতাহত হন ওই প্রেমিক। বিশ্রীভাবে পুড়ে যায় সন্দীপের হাত।

    আরপিএফ কর্মীরা এসে আহত সন্দীপকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসকরা ওই প্রেমিককে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

    ওই যুবকের প্রেমিকার মায়ের দাবি, মালগাড়ির ছাদে না ওঠার জন্য সন্দীপকে অনেকবার নিষেধ করেছিলেন তারা। কিন্তু, ওই যুবক তাতে কান দেননি। স্টেশনে বেশ কয়েকজন আরপিএফ কর্মী থাকলেও তারাও সন্দীপকে আটকাননি।

    প্রেমিকার চোখে নিজেকে আরও একটু ‘আকর্ষণীয়’ করে তুলতে গিয়েই নিজের চরম পরিণতি ডেকে আনলেন ওই প্রেমিক!

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757