মঙ্গলবার, জুন ২১, ২০২২

ফের সমুদ্রের বুকে ‘এমভি হাইয়ান সিটি’

ডেস্ক রিপোর্ট   |   মঙ্গলবার, ২১ জুন ২০২২ | প্রিন্ট  

ফের সমুদ্রের বুকে ‘এমভি হাইয়ান সিটি’

দুই মাস আগে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে জাহাজের সঙ্গে সংঘর্ষে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল কনটেইনার বোঝাই জাহাজ ‘এমভি হাইয়ান সিটি’। এরপর জাহাজটিকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে শুরু হয় মেরামত কাজ।

দীর্ঘ সময়ের সফল মেরামত শেষে মঙ্গলবার ফের সমুদ্রের বুকে ছুটে গেছে ‘এমভি হাইয়ান সিটি’। এদিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বন্দরের শক্তিশালী টাগবোট কাণ্ডারি ১ ও কাণ্ডারি ৬ এর সহায়তায় জাহাজটি কর্ণফুলী নদীর বন্দর চ্যানেল অতিক্রম করে। পরে দুপুর দেড়টার দিকে বহির্নোঙরে পৌঁছালে দায়িত্ব বুঝে নেন জাহাজটির পাইলট।


চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান বলেন, একটি বড় জাহাজ দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর সেটিকে মেরামত করে পুনরায় বিদেশ পাঠানো, এটি নিঃসন্দেহে আমাদের সক্ষমতার প্রমাণ। সরকারি-বেসরকারি অনেক সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান এ কাজে আমাদের সহযোগিতা করেছে। আমরা তাদের ধন্যবাদ জানাই। আমাদের সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা ও সাফল্যে মেরিটাইম ওয়ার্ল্ডে বাংলাদেশের সুনাম বাড়বে।

বন্দর ব্যবহারকারীরা বলছেন, দুর্ঘটনায় সময় জাহাজটিতে যে রফতানি কনটেইনারগুলো ছিল, তার মূল্য প্রায় ৮শ’ কোটি টাকা। জাহাজটি উদ্ধার ও মেরামত করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। তাদের সাহসী ও সঠিক সিদ্ধান্তের কারণে ৮শ’ কোটি টাকার রফতানি পণ্য যেমন রক্ষা পেয়েছে, তেমনি জাহাজটি ডুবে গেলে বড় ধরনের আর্থিক লোকসানের পাশাপাশি মেরিটাইম ওয়ার্ল্ডে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হতো।


গত ১৪ এপ্রিল বন্দর ত্যাগ করার সময় কুতুবদিয়ার কাছে ‘এমটি ওরিয়ন এক্সপ্রেস’ নামে একটি জাহাজের সঙ্গে এ জাহাজটির সংঘর্ষ ঘটে। এতে ১৭২ মিটার লম্বা ‘এমভি হাইয়ান সিটি’র পোর্ট সাইডে কার্গো হোল্ডে ছিদ্র হয়ে পানি ঢুকে সাত ডিগ্রি কাত হয়ে যায়। পানি ঢোকায় ড্রাফট বেড়ে দাঁড়ায় ১০ দশমিক ৭ মিটারে। একই সঙ্গে ডুবে যাওয়ার উপক্রম হয়। ওই সময় জাহাজটিকে বিশেষ ব্যবস্থায় কুতুবদিয়া এলাকায় নোঙর করানো হয়।

পরে ৪ মে বন্দরের টাগবোট কাণ্ডারি ১, ৬, ১০, ১১, লুসাই, জরিপ-১১, বর্ষণ, প্রান্তিক সরোয়ার ও মুরিং বোট সন্দ্বীপের সহায়তায় বাংলাদেশ মেরিন একাডেমি সংলগ্ন কর্ণফুলী ড্রাইডক জেটিতে নিরাপদে বার্থিং করানো হয়।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মো. ওমর ফারুক বলেন, দুর্ঘটনার পরপরই শক্তিশালী টাগবোট দিয়ে জাহাজটি বার্থিং করানো হয়েছিল। ফলে জাহাজে থাকা পণ্যগুলো নষ্ট হয়নি। মেরামত শেষে মঙ্গলবার দুপুরে জাহাজটি ১১শ’ ৫৭ টিইইউএস কনটেইনার নিয়ে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করেছে। পণ্য ও জাহাজ দুটিই সফলভাবে রক্ষা করা গেছে। এটিই বন্দরের সক্ষমতা ও সফলতাও বটে।

Posted ৪:২৮ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২১ জুন ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি) মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭।

হেল্প লাইনঃ ০১৭১২১৭০৭৭১

E-mail: [email protected] | [email protected]