মঙ্গলবার, জুলাই ৬, ২০২১

বাড়ছে রোগীর চাপ

ডেস্ক রিপোর্ট   |   মঙ্গলবার, ০৬ জুলাই ২০২১ | প্রিন্ট  

বাড়ছে রোগীর চাপ

বিভাগের করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার ভরসাস্থল ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিট। এ হাসপাতালে প্রতিদিনই রোগীর চাপ বাড়ছে। এতে বেগ পেতে হচ্ছে কর্তৃপক্ষকে। তবে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে ৭৪ জনের চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা থাকলেও রোগী ভর্তির নজির কম। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগী ভর্তি হলে মেডিকেলের করোনা ওয়ার্ডে চাপ কিছুটা কমতে পারে বলে জানিয়েছেন সংশ্নিষ্টরা।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে রোগীদের ঠাঁই দেওয়া যাচ্ছে না। ২১০ শয্যার সাধারণ ওয়ার্ড ও ১৩টি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র নিয়ে গঠিত করোনা ইউনিটে সোমবার ভর্তি ছিলেন ২৯৬ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন ২০ জন। সাধারণ ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন ২৭৬ জন। করোনা ইউনিটে হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা রয়েছে মাত্র ৪০টি। হাসপাতালটিতে ১০ কিলোলিটার ক্ষমতাসম্পন্ন কেন্দ্রীয় অক্সিজেন প্লান্ট রয়েছে। আপাতত সংকটের শঙ্কা না থাকলেও রোগীর চাপ বাড়ায় সংকট দেখা দিতে পারে। তাই কেন্দ্রীয় অক্সিজেন প্লান্টে চাপ কমাতে অক্সিজেন সিলিন্ডার, অক্সিজেন কনসেনট্রেটর মেশিনের মাধ্যমে সেবা চালু রয়েছে। এতে করোনা ইউনিটে সেবা দিতেও হিমশিম খেতে হচ্ছে। প্রতিদিন রোগীর চাপ বাড়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সক্ষমতাও বাড়ানোর চেষ্টা করছে।


করোনা ইউনিটে রোববার সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত আক্রান্ত ছয়জন মারা যান। উপসর্গ নিয়ে মারা যান আরও ৯ জন। গত ২৭ জুন থেকে গতকাল পর্যন্ত করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ৮৭ জন। তাদের মধ্যে ৩৩ জন করোনা শনাক্ত হয়ে এবং ৫৪ জন মারা গেছেন উপসর্গ নিয়ে। তাদের মধ্যে বয়স্ক বেশি ছিল।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলায় (ময়মনসিংহ, জামালপুর, নেত্রকোনা ও শেরপুর) নমুনা পরীক্ষা হয় এক হাজার ২২৩টি। এর মধ্যে ৩৮৯ জনের সংক্রমণ ধরা পড়ে। বিভাগে সংক্রমণ ৩১ দশমিক ৮০ শতাংশ। বিভাগের মধ্যে সংক্রমণের পরিসংখ্যানে নেত্রকোনায় সবচেয়ে বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় এখানে ১৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৭০ জন শনাক্ত হন, যা ৪১ দশমিক ৬০ শতাংশ। এ ছাড়া ময়মনসিংহে ৭০৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২১০ জন, জামালপুরে ২০০ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬০ জন ও শেরপুরে ১৪৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়। ময়মনসিংহে সংক্রমণ ২৯ দশমিক ৭০ শতাংশ, জামালপুরে ৩০ শতাংশ ও শেরপুরে ৩৩ দশমিক ১০ শতাংশ। বর্তমানে বিভাগে করোনা সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা ১৫ হাজার ২২৯ জন।


ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোগীদের অব্যাহত চাপ বাড়ায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোর ডেডিকেটেড করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন সংশ্নিষ্টরা। জেলার ১১টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য ৭৪টি আসন রয়েছে। এতে মাত্র ১৩ জন ভর্তি রয়েছেন বলে জানিয়েছে সিভিল সার্জন কার্যালয়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে ২৮৭টি অক্সিজেন সিলিন্ডার ও সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ১০টি রিজার্ভ থাকায় আপাতত সংকট নেই।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান বলেন, চাপ সামলাতে হাসপাতালের চিকিৎসকদের চক্রাকারে করোনা ইউনিটে কাজে লাগানো হচ্ছে। বিভাগের সব রোগীর চাপ এখানে হওয়ায় বেগ বেশি পেতে হচ্ছে।

ময়মনসিংহের সিভিল সার্জন নজরুল ইসলাম বলেন, সাধারণ অবস্থার রোগীদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতেই চিকিৎসা দেওয়ার সক্ষমতা রয়েছে। জরুরি অবস্থা ও অক্সিজেন লেভেল ৯০-এর নিচে নেমে পড়া রোগীদের শুধু ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে রেফার করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. জাকিউল ইসলাম বলেন, নানা চাপ ও সংকটের মধ্য দিয়েই সেবা চালু রাখার চেষ্টা চলছে।

Posted ৬:০১ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৬ জুলাই ২০২১

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি) মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭।

হেল্প লাইনঃ ০১৭১২১৭০৭৭১

E-mail: [email protected] | [email protected]