• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    বাপের বাড়ি থেকে গেল সুস্থ মেয়ে, দু’ঘণ্টা পরেই মৃত্যু

    অনলাইন ডেস্ক | ২০ আগস্ট ২০১৭ | ১০:২৪ পূর্বাহ্ণ

    বাপের বাড়ি থেকে গেল সুস্থ মেয়ে, দু’ঘণ্টা পরেই মৃত্যু

    স্বামীর ঘর করবে না বলে বাপের বাড়ি চলে এসেছিল নাবালিকা রূপালি দাস। কিন্তু, শ্বশুরবাড়ির কথায় রাজি হয়ে তাকে বাপের বাড়ি ফিরে যেতে বলেন রূপালির বাবা কিশোর সাউ। এর দু’ঘণ্টার মধ্যেই আসে তাঁর মেয়ের মৃত্যুর খবর।


    শুক্রবার রাতের সেই অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন কিশোর। বলেন, ‘‘মেয়েটা বলেছিল, ওখানে ওকে মারধর করা হয়, রোজ মত্ত অবস্থায় বাড়ি ফেরে জামাই। ওকে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য যে এত বড় খেসারত দিতে হবে, বুঝিনি।’’

    ajkerograbani.com

    গত সরস্বতী পুজোর দিন মণীশ দাস নামে প্রতিবেশী যুবকের সঙ্গে প্রেম করে বিয়ে করে রূপালি। মণীশ একটি অনলাইন বিপণন সংস্থায় ‘ডেলিভারি ম্যানে’র কাজ করেন। শিবকৃষ্ণ দাঁ লেনে রূপালিদের বাড়ির দু’টি বাড়ি পরেই থাকেন মণীশেরা। কিশোর জানালেন, শ্বশুরবাড়িতে ঝগড়া হওয়ায় শুক্রবার বাপের বাড়িতে চলে আসে রূপালি। রাত ৯টা নাগাদ তাকে নিতে আসেন শাশু়ড়ি শিপ্রা দাস। এরপর রাত ১১টা নাগাদ খবর আসে, রূপালি অসুস্থ। কিশোরের কথায়, ‘‘প্রতিবেশীদের সঙ্গে গিয়ে দেখি, খাটের উপর পড়ে রয়েছে ওর নিথর দেহ। নাক, মুখ দিয়ে ফেনা বার হচ্ছে। জমাট বেঁধে রয়েছে রক্ত। কখন মেয়ে মারা গেছে জানি না।’’ এরপর কাঁদতে কাঁদতে কিশোরের অভিযোগ, ‘‘মেয়ের শ্বশুরবাড়ির লোকজন তো ওকে হাসপাতালেও পাঠাতে চাইছিল না। পুলিশের সঙ্গে সব মিটিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছিল ওরা।’’

    রূপালির মৃত্যুতে রহস্য দেখছেন প্রতিবেশীদের একাংশ। প্রতিবেশী শ্যামল মল্লিক বলেন, ‘‘সুস্থ অবস্থায় বাপের বাড়ি থেকে গেল, আর দু’ঘণ্টার মধ্যেই মারা গেল সে! অপরাধ না থাকলে মণীশের বাড়ির লোক এত ভয় পাচ্ছে কেন?’’ মৃতার শাশুড়ি শিপ্রা দাস অবশ্য দাবি করলেন, ‘‘বাইরের ঘরে আমরা থাকি। ভিতরে রূপালিরা। ১১টা নাগাদ ছেলে চিৎকার শুরু করে। জল খেতে গিয়ে ওর (রূপালি) শ্বাসকষ্ট শুরু হয়েছিল। সেইসময়ই মৃত্যু হয় ওঁর।’’- এবেলা

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4755