সোমবার ২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মশার ওষুধ চুরি করে বিক্রি, ঢাকা দক্ষিণের ৪ কর্মী হাতেনাতে ধরা

  |   সোমবার, ২১ জুন ২০২১ | প্রিন্ট  

মশার ওষুধ চুরি করে বিক্রি, ঢাকা দক্ষিণের ৪ কর্মী হাতেনাতে ধরা

মশা নিয়ন্ত্রণ কাজে ব্যবহৃত এডাল্টিসাইড সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের কার্যালয়ে পৌঁছে না দিয়ে তা চুরি করে দোকানে বিক্রি করার দায়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ঢাদসিক) দৈনিক মজুরীভিত্তিক নিয়োজিত চার মশক কর্মীকে হাতেনাতে ধরা পড়েছে। তাদের কর্মচ্যুত করা হয়েছে। এছাড়া চুরি করা সেসব কীটনাশক ক্রয় করা দোকান মালিকের বিরুদ্ধে যাত্রাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
কর্মচ্যুত চারজন হলেন দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের অঞ্চল-৫ এর ৫০ নং ওয়ার্ডের দৈনিক মজুরিভিত্তিক মশক কর্মী উজ্জল সিদ্দিকী, সুজন মিয়া মোঃ হাফিজুল ইসলাম ও জুয়েল মিয়া।
করপোরেশনের সচিব আকরামুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক দপ্তর আদেশে আজ তাদেরকে কর্মচ্যুত করা হয়।
জানা যায়, দক্ষিণ সিটির এ মাসের ৯ তারিখে অঞ্চল-৫ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় হতে সাপ্তাহিক মশক নিয়ন্ত্রণে নিয়মিত কার্যক্রমে ব্যবহারের জন্য ৭, ৪৫, ৪৬, ৫০, ৫২ ও ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডের মশক সুপারভাইজার/তার প্রতিনিধির নিকট ৬ ড্রাম কীটনাশক সরবরাহ করা হয়। প্রতিটি ড্রামের ধারণক্ষমতা ২০০ লিটার। নিয়মানুযায়ী সেসব কীটনাশক কাউন্সিলর দপ্তরে পৌঁছানোর কথা।
কিন্তু এডাল্টিসাইড সরবরাহের পর কাউন্সিলর কার্যালয়ে পৌঁছে না দিয়ে ৪৬, দক্ষিণ সায়েদাবাদের “মেসার্স ভাই ভাই এজেন্সী” নামে খুচরা জ্বালানী তেল বিক্রেতার দোকানে বিক্রি করা হচ্ছিল। এ সময় জনসম্মুখে সেই দোকানের গোডাউন হতে ২০০ লিটারের দুটি ড্রাম, ৩০ লিটারের ৮টি ও ২০ লিটারের ১টি গ্যালনসহ সর্বমোট ৬৬০ লিটার কীটনাশক জব্দ করা হয়।
পরবর্তীতে অঞ্চল-৫ (অ. দা.) এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা অভিযুক্ত দোকান ও গোডাউন সিলগালা করেন। এছাড়া করপোরেশনের মশক সুপারভাইজার মো. মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে চুরি করা অবৈধ কীটনাশক ক্রয় করা দোকান মালিক আব্দুল মজিদ সিকদারের বিরুদ্ধে যাত্রাবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

Facebook Comments Box


Posted ৯:৩২ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২১ জুন ২০২১

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১