• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    নিজস্ব ভবন , বিদ্যুৎ, কোনটি না থাকায় গ্রাহক পাচ্ছেনা ডাক সেবা

    মাগুরায় পোস্ট অফিসগুলোর বেহাল দশা

    আসিফ হাসান কাজল- মাগুরা প্রতিনিধি: | ২৮ এপ্রিল ২০১৭ | ৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ

    মাগুরায় পোস্ট অফিসগুলোর বেহাল দশা

    ভাল আছি ভাল থেকো, আকাশের ঠিকানায় চিঠি লিখ। বাংলা সিনেমার এ গানটির সাথে পরিচয় নেই এমন মানুষ খুজে পাওয়া দ্বায়! আকাশের ঠিকানায় চিঠি পাঠানো যাক বা না যাক বাংলাদেশের অভ্যন্তরে চিঠি বা টেলিগ্রাম এমনকি মানি অর্ডার যদি পাঠাতে হয় আপনাকে যেখানে যেতে হয় তা হল পোষ্ট অফিস।


    আমরা হয়ত এখন আর খাতা কলমে চিঠি লিখতে বসি না! মুঠোফোন বার্তা কিংবা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে অনায়সে ভাবের আদান প্রদান সেরে ফেলি। কিন্তু চাকরির আবেদন এছাড়াও বিভিন্ন সরকারি কাজে পোস্ট অফিসের দারস্থ আমাদের হতেই হয়।
    মাগুরা জেলায় ৪ টি থানা মিলিয়ে ব্রাঞ্ছ পোস্ট অফিসের সংখ্যা ৭১ টি।অনেক যায়গাই ই সার্ভিসের যে সেবার কথা বলা হচ্ছে সরেজমিনে ৫০ টি শাখা অফিসে কোন বিদ্যুঃৎ সংযোগই নাই! তবু চলছে তাদের কার্যক্রম ই সার্ভিস সেবার মাধ্যমে! মো: রাকিব শেখ। বাসা মাগুরা পুলিশ লাইনে। ঢাকা থেকে এক গুরুত্বপূর্ণ কাগজ এসেছে তার নিকটস্থ পাচপাড়া পোস্ট অফিসে। কাগজ আনতে যেয়ে প্রথম দিন অফিস বন্ধ পেয়ে তিনি ফিরে এসেছেন। দ্বিতীয় দিন যেয়ে দেখলেন ভাঙ্গাচোরা ঘরের দরজাটি বন্ধ! আশপাশের মানুষজনকে জানতে চাওয়ায় তারা বলল ১০০ হাত দূরে ঐ বিল্ডিং এর একটি ঘরে পোস্ট অফিসের কার্যক্রম হয়। অত:পর রাকিব যেয়ে কোন ঘর তা চিনতে পারল না। আবার তাকে মানুষের কাছে শুনতেই হলো সেখান থেকে দেখিয়ে দিল বিকাশের একটি দোকান যেখানে মোবইিল রিচার্জ আর বিকাশের লেনদেন করা হয়। অসংখ্য পোস্টার আছে মোবাইল কোম্পানিদেও কিন্তু ডাক সেবার কোন লেখা তার চোখে পড়লো না।
    শাখা অফিসের পোস্ট ম্যানেজার মো: রেজাউল উকিল বলেন সরকার আমাদেরকে এক দেড়লক্ষ টাকার বিভিন্ন মালামাল দিয়েছে যার মধ্যে লাপটপ,প্রিন্টার ইত্যাদি এগুলোর দ্বায়িত্ব আমাদের বহন করতে হয়। মালামাল খোয়া গেলে ভর্তুকি আমাদেরকেই দিতে হবে। তাই ঐ জরাজীর্ণ ভবনে এসব মালামাল আমরা রাখি না। তার দোকানে কোন ডাক সেবার পোস্টার কেন নাই এমন প্রশ্ন করলে চুপ থাকেন তিনি।

    এতো গেল শহুরে পৌরসভার অভ্যন্তরে ডাক শাখা অফিসের সেবার কথা। গ্রামে অধিকাংশ অফিসের কোন ঘর ও নাই অনেক স্কুলের একটি কক্ষ ভাগাভাগি করে দিতে হচ্ছে তাদের গ্রাহক সেবা। অনেকবারই পরিদর্শনে এসে বিভাগীয় পোস্ট মাস্টার জেনারেল আশ্বাস দিয়ে গিয়েছেন কেউ জমি দান করলে ভবন করে দেওয়া হবে। এর প্রেক্ষিতে সাধন রায় বরই চারা শাখা অফিসের জন্য ২০১৩ সালে জমি প্রদান করলেও এখনো জমিটি ফাকা পড়ে আছে। শ্রীপুর মাশালিয়া পোস্ট অফিসের নামেও ব্যক্তি পর্যায়ে জমি দান সম্পন্ন হয়েছে। সেখানেও কোন ভবন এখনো নির্মান করা হয়নাই।
    জেলা শাখা অফিস পরিদর্শন কর্মকর্তা আফিয়া খাতুনের কাছে এ সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান কতৃপক্ষকে অনেকবার জানানো হলেও এতদিনেও কোন ফলাফল তিনি পাননি। এর চেয়ে বেশি তথ্য তার জানা নাই বলে জানান এই কর্মকর্তা।

    ajkerograbani.com

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757