• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সূত্র উল্লেখ করে ফারুক খান এমপির নামে অপপ্রচার

    বিশেষ প্রতিবেদক | ১৯ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৮:২৩ অপরাহ্ণ

    মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সূত্র উল্লেখ করে ফারুক খান এমপির নামে অপপ্রচার

    আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও গোপালগঞ্জ-১ আসন থেকে পাঁচবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান এমপিকে নিয়ে একটি কুচক্রী মহল অপপ্রচারে নেমেছে। সাংগঠনিক ও কূটনৈতিক দক্ষতা দিয়ে তিনি যখন সারা বিশ্বে আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি উজ্জল করে চলেছেন ঠিক তখনি ওই মহলটি তাকে বিতর্কিত করতে অপপ্রচার চালাচ্ছে। ওই কুচক্রীরা তাকে নিয়ে একের পর এক ষড়যন্ত্র করছে।


    একটি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সূত্র উল্লেখ করে মুহাম্মদ ফারুক খান এমপিকে রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা চলছে। ‘দিনাজপুরের মক্তিযুদ্ধ’ নামক একটি বইয়ের সূত্র দিয়ে বলা হচ্ছে, “তিনি মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানীদের পক্ষে দিনাজপুরে কর্মরত ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে তিনি পাকিস্তানী সেনাবাহীনীর পক্ষে প্রথম অপারেশন চালান এবং কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা ও নিরীহ বাঙালিকে নির্মমভাবে হত্যা করেন।”


    অথচ এই বই আমাদের সংগ্রহে আছে যেখানে কোথাও তার প্রসঙ্গে কিছু বলা হয়নি। তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানে মিলিটারিতে প্রশিক্ষণে ছিলেন এবং ১৯৭২ সালের এপ্রিলে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে যোগদান করেন। যে ব্যক্তি মুক্তিযুদ্ধের সময়ে বাংলাদেশেই ছিলেন না তিনি কিভাবে মুক্তিযোদ্ধা ও বাঙালিদের হত্যা করেছেন? এটি পাগলের প্রলাপ ছাড়া আর কিছু নয়।

    লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান এমপিকে নিয়ে অপপ্রচারের কারণ হচ্ছে তার সততা, সাংগঠনিক ও কূটনৈতিক দক্ষতা এবং তার উপর প্রধানমন্ত্রীর আস্থা। ফারুক খান এমপি কখনো অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেন না। এবং তার কাছ থেকে অন্যায় সুবিধা নেওয়া যায় না। ওই ব্যক্তিরাই ফারুক খানের বদনাম করেন যারা তাকে ব্যবহার করতে পারেন না।

    মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি বর্তমান মন্ত্রিসভায় না থাকলেও দলের ও সরকারের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে তাকে। ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ঢাকা উত্তর সিটি করর্পোরেশনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে প্রধান সমন্বয়কের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। এরপর ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠনের সমন্বয়কের দায়িত্ব দেওয়া হয় ফারুক খানকে। মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে তিনি জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোর দিকে সর্বদা নজর রাখেন। তার কর্মতৎপরতার দ্বারা ওই অঞ্চলে সরকারের ভাবমূর্তি উজ্বল হয়েছে। তিনি প্রতিশ্রুতি পূরণে সফল।

    কাশিয়ানী মুকসুদপুরের উন্নয়নের অগ্রসৈনিক মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি। তার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রয়েছে গোপালগঞ্জ-১ আসন তথা মুকসুদপুর-কাশিয়ানীতে। জননেতা ফারুক খান তার ঢাকা-মাওয়া-খুলনা রাস্তার মুকসুদপুর কাশিয়ানীর অংশসহ প্রতিটি ইউনিয়নের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করেছেন। মুকসুদপুর কলেজ সরকারীকরণ, এসজে হাই স্কুলকে মডেল প্রকল্পে নেয়া, সর্বশেষে জাতীয়করণসহ অসংখ্য শিক্ষা- প্রতিষ্ঠানে নতুন নতুন ভবন নির্মাণ, মেরামত ও সংস্কার কাজ করেছেন। নির্বাচনী এলাকার প্রায় ৯৫ ভাগ এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ স্থাপন করেছেন।
    তিনি ইতেমধ্যে মুকসদপুর উপজেলার টেংরাখোলা, বনগ্রাম বাজার, কাশিয়ানী উপজেলার ভাটিয়াপাড়া নদী ভাঙ্গন রোধে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। মুকসুদপুর হাসপাতালকে ৩৯ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণসহ কমিউনিটি ক্লিনিক ও স্যানিটেশন কার্যক্রমের উন্নয়ন ঘটিয়েছেন। মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে সুনামের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করায় প্রধানমন্ত্রী তার কাজে সন্তুষ্ট হয়ে বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণলয়ের মন্ত্রী হিসেবেও তাকে দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের সুযোগ দেন। মুহাম্মদ ফারুক খান ছিলেন একজন সফল মন্ত্রী। এলাকার উন্নয়নে মুহাম্মদ ফারুক খান একজন রূপকার। তার নেতৃত্বেই এলাকার সকল জনপ্রতিনিধি নেতাকর্মী একযোগে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রতিমাসেই তিনি উন্নয়ন সমন্বয় সভায় যোগদান, সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি এবং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সাথে দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন। উন্নয়ন কাজের সরাসরি তদারকি করছেন। সরকারি উচ্চ পর্যায়ে চিঠিপত্রসহ সার্বিক যোগাযোগ রাখছেন। উন্নয়নের এমন কোন সেক্টর নেই যেখানে তার নজর নেই।
    তৃণমূলের রাজনীতিতে মুকসুদপুর ও কাশিয়ানি এলাকার ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা জেলার রাজনীতিকদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করছেন। তিনিই নেতৃত্বের বিকাশ ও উন্মেষ করেছেন। তার নিজের এবং জাতীয় সংসদ এবং সরকারি বরাদ্দের সকল সুযোগ সুবিধা, টিআর, কাবিখা, ঐচ্ছিক তহবিলের টাকা বিতরণ সবই স্থানীয় নেতৃবৃন্দর প্রণীত তালিকা মোতাবেক করে থাকেন।

    গত ২৫ বছর ধরে তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থেকে নিরবচ্ছিন্ন রাজনীতি করায় জননেত্রী শেখ হাসিনা তাকে প্রেসিডিয়াম সদস্য পদে স্থান দিয়েছেন। আশাকরি আগামীতেও তিনি আরো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পাবেন।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4673