শনিবার ৩১শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মুকসুদপুরে হোম কোয়ারেন্টাইনে ১৪০ জন

তারিকুল ইসলাম   |   বুধবার, ২৫ মার্চ ২০২০ | প্রিন্ট  

মুকসুদপুরে হোম কোয়ারেন্টাইনে ১৪০ জন

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে ইতালী, সিঙ্গাপুর, ইরাক, কাতার, সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশ থেকে ১৪০ জন প্রবাসী নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন। মঙ্গলবার পর্যন্ত মুকসুদপুরে প্রবাসী ৭২জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হলেও একদিন পর বুধবার দুপুর পর্যন্ত তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪০ জনে। এদের অনেকেই করোনা আক্রান্ত দেশ থেকে আসলেও নিজ গ্রামে এসে হোম কোয়ারেন্টাইন নির্দেশনা মানছেনা। এলাকার জনসমাগম এলাকাগুলো ছাড়াও আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে ঘোরাফেরা-দাওয়াত খাচ্ছে কোন বাধা ছাড়াই। এছাড়াও মসজিদে নামাজ আদায়, চায়ের দোকানে আড্ডা, জনসমাগম স্থানে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াতে দেখা যাচ্ছে তাদের। এতে করে উপজেলার সর্বত্র এখন করোনা আতঙ্ক বিরাজ করছে।
প্রবাসী এসব ব্যক্তিদের শৃংখলার মধ্যে আনা এবং হোম কোয়ারেন্টাইন মানার বিষয়টি নিশ্চিত করতে মুকসুদপুরের প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ নিরলসভাবে কাজ চালালেও আশানুরুপ ফল হচ্ছে না। এ কারনে উপজেলার সর্বত্র দেখা দিয়েছে প্রবাসী আতঙ্ক। অনেক স্থানে এলাকাবাসী না বুঝে প্রবাসী ব্যক্তির বাড়ি আসছে তাদের দেখতে ও খোজ খবর নিতে এ কারনে এই ভাইরাস আরো ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।
মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দাবি, বুধবার পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে মোট ১৪০ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি রয়েছে মহারাজপুর, ননীক্ষীর, দিগনগর, রাগধী ও ভাবড়াশুর ইউনিয়নে। মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহমুদুর রহমান বলেন, সম্প্রতি দেশে ফেরা প্রবাসীদের নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা নিবিড় পর্যবেক্ষন এবং স্বাস্থ্য কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তারা সবাই সুস্থ আছেন। তাদের মধ্যে করোনার কোন লক্ষণ মেলেনি। তিনি আরো জানান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি, কৃষ্ণাদিয়া এবং গাড়লগাতীতে কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মুকসুদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরিক্ষার কোন পদ্ধতি নেই তবে কোন প্রবাসীর মধ্যে করোনা ভাইরাসের লক্ষন প্রকাশ পেলে তাকে ঢাকা প্রেরণ করা হবে। এছাড়াও মুকসুদপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সকে আইসলুশন হিসাবে প্রস্তুত করা হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত বা কারোর মাঝে করোনা লক্ষন প্রকাশ পেলে তাকে আইসলুশনে রেখে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে।
মুকসুদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসলিমা আলী জানান প্রবাসীরা হোম কোয়ারেন্টাইন এখনো অনেকে মানছে না এজন্য ইউপি চেয়ারম্যান, সরকারী কর্মকর্তা, স্বাস্থ্য বিভাগ এবং আওয়ামীলীগের নেতা কর্মী এবং স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গদের নিয়ে বিকালে এক জরুরী সভা করা হয়েছে। এবং যে নির্দেশনা না মানবে তার বিরুদ্ধে জরিমানাসহ শাস্থিমূলক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Facebook Comments Box


Posted ৭:১০ অপরাহ্ণ | বুধবার, ২৫ মার্চ ২০২০

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ