শুক্রবার, ডিসেম্বর ২৫, ২০২০

ম্যারাডোনার দেহে অ্যালকোহল পাওয়া যায়নি

  |   শুক্রবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২০ | প্রিন্ট  

ম্যারাডোনার দেহে অ্যালকোহল পাওয়া যায়নি

প্রয়াত ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার শরীরে মাত্রাতিরিক্ত অ্যালকোহল পাওয়া যায়নি। নিষিদ্ধ মাদকেরও কোনো অস্তিত্ব ছিলোনা। ময়নতদন্তের রিপোর্টে উঠে এসেছে এ তথ্য। তার শরীরে এমন ধরনের ওষুধ পাওয়া গেছে, যা তার শারীরিক ও মানসিক চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়েছে। তবে, মৃত্যুর আগে তীব্র যন্ত্রণায় ভুগতে হয়েছে ম্যারাডোনাকে।
কি আছে দিয়েগো ম্যারাডোনার ময়নাতদন্তের রিপোর্টে! জানতে তর সইছিল না কারও।
অনিয়ম ছিল আর্জেন্টাইন সুপারস্টারের নিত্যসঙ্গী। মৃত্যুর পেছনে নিষিদ্ধ ড্রাগের ব্যবহার দায়ী কিনা, সন্দেহও ছিল অনেকের।
দিয়েগোর সাবেক এক চিকিৎসক তো ক’দিন আগে বলেই বসলেন, তার মৃত্যু আত্মহত্যার মতোই। তিনি বলেন, মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর থেকে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন ম্যারাডোনা। কারও সঙ্গে দেখা করতে চাইতেন না। ঠিকমতো ওষুধও খেতেন না।
আলফ্রেডো কাহের মন্তব্য নতুন আলোচনার জন্ম দিয়েছিলো। নানা প্রশ্ন নিয়ে পোস্টমর্টেম রিপোর্টের অপেক্ষায় দিন গুনছিলো সবাই। অবশেষে তা প্রকাশ পেলো। অ্যালকোহল বা নিষিদ্ধ ড্রাগের কোনো অস্তিত্ব মেলেনি ম্যারাডোনার শরীরে।
বেঁচে থাকার প্রেষণা হারিয়ে ফেলার অসহ্য যন্ত্রণা বয়ে বেড়িয়েছেন। শরণাপন্ন হয়েছেন মনোবিদের। কি ধরনের চিকিৎসা দেয়া হয়েছিলো তাকে? কি ওষুধ সেবন করেছিলেন? চিকিৎসায় কি কোনো অবহেলা হয়েছিল? এসবের জবাব দিয়েছেন ঐ মনোবিদের আইনজীবী।
ম্যারাডোনার মনোবিদের আইনজীবী ভাদিম মিশানচুক বলেন, তার শরীরে কোন নিষিদ্ধ উপাদান পাওয়া যায়নি। তবে, ডাক্তারের দেয়া ওষুধের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। যেটা তার চিকিৎসার অংশ ছিলো। অন্য কিছু ছিলনা।
আইনজীবীর ভাষ্যমতে, বিষন্নতা কাটাতে ৭টি ভিন্ন রকমের ওষুধ সেবন করেছিলেন ম্যারাডোনা। তবে, মৃত্যুর আগের দিন অতিমাত্রায় অ্যালকোহল কিংবা নিষিদ্ধ মাদক নেয়ার বিষয়টি স্রেফ গুজব।
ভাদিম মিশানচুক বলেন, তদন্ত কর্মকর্তাদের সঙ্গে আমি আবারও বসবো। প্রসিকিউটর অফিসের প্রতিনিধিরাও তাদের সঙ্গে দেখা করবে। মেডিকেল টিমের পর্যবেক্ষণ বলছে, অন্তিম মুহূর্তে খুব খারাপ অবস্থার মধ্য দিয়ে গেছেন ম্যারাডোনা।
প্রাথমিক তদন্তে পাওয়া গিয়েছিল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ম্যারাডোনা। এবার ময়নাতদন্তে উঠে এসেছে বিস্তারিত তথ্য। রক্তকণিকার নমুনা পরীক্ষা করে রিপোর্ট দিয়েছে বুয়েন্স আয়ার্স পুলিশের তদন্ত কর্মকর্তারা। রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, কিডনি-হার্ট ও লাংসের জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি।
দিয়েগো ম্যারাডোনা পৃথিবীর রত্ন। তার মৃত্যু নিয়ে আলোচনা তাই থামার নয়। এক মাস অতিবাহিত হওয়ায়, শোকের তীব্রতা হয়তো কিছুটা কম। কিন্তু মনে পড়লেই ডুকরে কেঁদে ওঠে পাঁড় ভক্তরা।


Posted ৯:২৯ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২০

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি) মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭।

হেল্প লাইনঃ ০১৭১২১৭০৭৭১

E-mail: [email protected] | [email protected]