শুক্রবার ৬ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২২শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

যদি মন্ত্রিসভা এমন হতো, সফলতা হতো নিত্য সঙ্গী

সূত্র: বাংলা ইনসাইডার   |   বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০ | প্রিন্ট  

যদি মন্ত্রিসভা এমন হতো, সফলতা হতো নিত্য সঙ্গী

বাংলাদেশে করোনার যতই বিস্তার ঘটছে, ততই সরকারের দক্ষতা এবং দায়িত্বশীলতা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতা, বিচক্ষণতা এবং দুরদৃষ্টিতা নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই। বরং এটাই বলা হচ্ছে যে শেখ হাসিনা একা কতটাই বা সামলাতে পারেন? তার একটি ভালো টিম দরকার। যেকোনো গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় সরকারপ্রধান হলেন দলনেতা। দলনেতার নেতৃত্বে একটি সুদক্ষ টিম সরকারকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। সরকারের আকাঙ্ক্ষা এবং জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করার পথে অনেকদূর এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে।
কথা হচ্ছে, আওয়ামী লীগ এ নিয়ে ৪বার ক্ষমতায় রয়েছে। শেখ হাসিনা ৪ বার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন এবং দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা, ব্যক্তিকে পালাক্রমে মন্ত্রিসভায় এনেছেন। যখন করোনা মহামারীর দাড়প্রান্তে আমরা, তখন অনেকেই মনে করেন যে শেখ হাসিনার হাতে এখনো অনেক ভালো ভালো অপশন রয়েছে। শেখ হাসিনা চাইলেই তার ‘বেস্ট ইলেভেন টিম’ অর্থাৎ, সেরা ১১ জনকে নিয়ে টিম সাজাতে পারেন। এই টিম দিয়ে তিনি করোনা মোকাবেলার ক্ষেত্রে বিশ্বে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পারে। শেখ হাসিনার দলে যত দক্ষ, বিচক্ষণ মানুষ রয়েছে, বাংলাদেশের কোনো রাজনৈতিক দলেই সেটি নেই।
অর্থমন্ত্রী ড. ফরাসউদ্দিন আহমেদ
ড. ফরাসউদ্দিন আহমেদ আওয়ামী লীগের একজন সদস্য মাত্র। কিন্তু অর্থনীতিবিদ হিসেবে তিনি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন। তিনি জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের একান্ত সচিব ছিলেন। তিনি শিক্ষিত এবং মার্জিত। আজকে করোনা পরিস্থিতির জন্য যে বৈশ্বিক অর্থনীতির টানাপোড়েন, সেটাকে ধারণ করে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক বিন্যাস করার ক্ষেত্রে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন বলে বিশ্লেষকরা মনে করেন।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী শেখ ফজলুল করিম সেলিম
আওয়ামী লীগ দীর্ঘ ২১ বছর পর যখন প্রথম ক্ষমতায় আসে, তখন ঐ ক্ষমতার দ্বিতীয় দফায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন শেখ ফজলুল করিম সেলিম। আজ পর্যন্ত আওয়ামী লীগে যতজন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন, তার মধ্যে শেখ ফজলুল করিম সেলিমকেই সেরা বিবেচনা করা হয়। তার নেতৃত্বগুণ রয়েছে এবং সকলকে নিয়ে কাজ করার সক্ষমতা তিনি প্রমাণ করেছেন। সেজন্য আমাদের প্রস্তাবে শেখ হাসিনার বেস্ট ইলেভেনে শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাম আমরা উপস্থাপন করছি।
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ
চার মেয়াদে আওয়ামী লীগের ক্ষমতাকালের দুই মেয়াদেই তোফায়েল আহমেদ বাণিজ্য মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট নেতা তিনি, এবং অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন, ন্যুনতম কোনো ত্রুটি-বিচ্যুতি তিনি হতে দেননি। এ কারণেই বেস্ট ইলেভেনে বাণিজ্য মন্ত্রী হিসেবে আমরা তোফায়েল আহমেদের নাম প্রস্তাব করছি।
শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু
আওয়ামী লীগ সরকারের এই প্রভাবশালী এই নেতাকে আমরা শিল্পমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব দিচ্ছি। কারণ করোনা মোকাবেলায় শিল্পমন্ত্রী এবং শ্রমিকদের সম্পর্ক একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, শিল্পমালিকেরাও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমির হোসেন আমুর মতো একজন হেভিওয়েট নেতা এটা অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে পালন করতে পারবেন বলেই আমাদের ধারণা।
কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী
আওয়ামী লীগের গত চার মেয়াদের মধ্যে তিন মেয়াদেই কৃষিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন বেগম মতিয়া চৌধুরী। কোনোরকম বিতর্ক ছাড়াই সততা এবং নিষ্ঠার সঙ্গে তিনি দায়িত্ব পালন করেছিলেন। আমাদের সেই বিবেচনায় বেস্ট ইলেভেনে কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী।
খাদ্যমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক
২০০৮ সালে আওয়ামী লীগের দায়িত্ব পালনকালে খাদ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন ড. আব্দুর রাজ্জাক। সেসময় তিনি নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। বর্তমানে কৃষিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি এখন খাদ্যমন্ত্রী হিসেবে বেস্ট ইলেভেনে জায়গা পেতে পারেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি
ডা. দীপু মনি এখন শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন। দ্বিতীয় মেয়াদে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকাকালে তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। কিছু ত্রুটি-বিচ্যুতি থাকলেও তার যে অভিজ্ঞতা, সেটা কাজে লাগিয়ে করোনার বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে তিনি দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন বলে আমাদের বিশ্বাস।
ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম
ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে একজন রাজনৈতিক মন্ত্রী প্রয়োজন যিনি সারাদেশের তৃণমূলের সব খবর রাখেন, দলীয় নেতাকর্মীদের চেনেন। ১৪ দলের সমন্বয়ক হিসেবে মোহাম্মদ নাসিম এই বেস্ট ইলেভেনে এ কারণেই জায়গা পেয়েছেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল
বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দুই মেয়াদে দায়িত্ব পালন করছেন। তাকে নিয়ে কোনো বিতর্ক নেই। তিনি একজন পরিচ্ছন্ন মানুষ হিসেবে সমাদৃত বলেই বেস্ট ইলেভেনে তিনিও থাকতে পারেন এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করতে পারেন।
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
ড. হাছান মাহমুদ দ্বিতীয় মেয়াদে বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ছিলেন। এই মেয়াদে তথ্যমন্ত্রী হিসেবে তিনি একটি পরিচ্ছন্ন ইমেজ তৈরি করেছেন। গণমাধ্যমকে আস্থার জায়গায় তিনি কাজ করছেন। এজন্যই আমাদের বেস্ট ইলেভেনে হাসান মাহমুদকে আমরা বিবেচনায় এনেছি।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের
একটি সরকারের ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক স্থানীয় সরকার মন্ত্রী থাকেন। শেখ হাসিনা অবশ্য সেই রীতি ভেঙেছিলেন গত মেয়াদেই। কিন্তু আমরা মনে করি যে এখন এই ক্রান্তিকালে ওবায়দুল কাদেরই স্থানীয় সরকার মন্ত্রী হিসেবে সারাদেশে আওয়ামী লীগের নেটওয়ার্ক সুসংগঠিত করে করোনা মোকাবেলার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন।

Facebook Comments Box


Posted ৮:১৪ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১