• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    যশোরে দালাল বাবরের বিরুদ্ধে জুতা ও ঝাড়ু মিছিল

    যশোর প্রতিনিধি: | ০৩ এপ্রিল ২০১৭ | ১০:২৪ অপরাহ্ণ

    যশোরে দালাল বাবরের বিরুদ্ধে জুতা ও ঝাড়ু মিছিল

    যশোরের সমালোচিত কম্পিউটার সমিতির বহিস্কৃত সভাপতি বাবর ওরফে দালাল বাবর আলীর বিরুদ্ধে যশোরের ঘোপ এলাকায় শান্তি নষ্টের অভিযোগে জুতা ও ঝাড়ু মিছিল করেছে এলাকাবাসী।


    রবিবার সকাল ১০ টায় শহরের ঘোপ এলাকার বিভিন্ন সড়ক ঘুরে বাবর আলীর বাড়ীর সামনে এসে বাড়ী ঘেরাও করে বিক্ষুপ্ত এলাকাবাসী। সেসময় তারা শ্লোগান দিতে থাকে ‘বাবরের দু’গালে জুতা মারো তালে তালে’এলাকার কুলাংগার এই মুহুর্তে এলাকাছাড় বলে। ঘটনাস্থল উত্তপ্ত হয়ে যাওয়ায় তাৎক্ষনিক পুলিশের একটি বিশেষ টিম এলাকায় এসে নিয়ন্ত্রনে আনেন। সে সময় তারা আরো বলেন বাবর নিজেকে সুধরে না নিলে প্রয়োজনে তার বিরুদ্ধে ‘মানব বন্ধন’ সহ জেলা প্রশাসকের নিকট লিখিত অভিযোগ দিতে বাধ্য হবো।
    এসময় বিএড কলেজের পাশের এক মুদি দোকানী শহিদুল বলেন,বাবর এলাকায় প্রবেশের পর থেকে এলাকার মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে পারছেনা। দিন রাত তিনি পুলিশ,মাস্তান দিয়ে এলাকার নিরিহ মানুষদের উপর নানা ধরনের অত্যাচার করে চলেছেন।এখন তিনি নতুন করে মেয়ে অপহরনের মিথ্যা নাটক সাজাতে ব্যাস্ত হয়েপরেছেন। এটা মেনে নেবার নয়।
    এছাড়া যশোর জেলা মহিলালীগ নেত্রী রোকেয়া পারভিন রুকি,লাবনী,হোটেল ব্যবসায়ী জাবেদ, নুরুমিয়া, ছাত্তার, মাসুম, শরিফুল হাসান সহ শতাধিক এলাকাবাসীর এটাই দাবী।
    স্থানীয় সুত্রজানায়, বাবর ঘোপ এলাকার ২৩১ নং নিজ বাড়িতে বসবাস করে আসছে। এদিকে তার স্কুল পড়ুয়া মেয়ে ফাহামিদা ফারজানা লিপির সাথে একই এলাকার খোকন শেখের ছেলে রিপনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক দির্ঘদিন ধরে রয়েছে। লিপি গত ২৮ ফেব্রুয়ারী বিয়ের দাবিতে জেলরোডের পিলুখান সড়কের খোকন শেখের ছেলে রিপনের বাড়িতে ১৫ হাজার টাকা ও স্বর্নালংকর সহ ঠেলে উঠে। পরে রিপনের পরিবার ও এলাকাবাসীর সহযোগীতায় লিপির বাবা মাকে ডেকে টাকা ও স্বর্ণলংকার সহ তাদের হাতে তুলে দেয়।
    এর আগেও তার মেয়েকে নিয়ে প্রেমসংঘটিত বিষয় নিয়ে কয়েক বার এলাকায় সালিশ বিচার ও হয়েছে। দির্ঘদিন থেকে বাবর রিপন সহ সহ তার পরিবারকে নানা ধরনের হুমকি ধামকি দিয়ে আসছেন। সন্ত্রাসীদের দিয়ে কয়েকবার রিপনকে মেরে ফেলা হুমকিউ দিয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ বাবর পুলিশদিয়ে রিপন কে না পেয়ে রিপনের পরিবার ও ওই এলাকায় রিপনের বয়সি ছেলেদের কে হেউও পতিপন্য করছে । তারই পরিপেক্ষিতে গত কয়েকদিনে ওই এলাকায় বাবরের ইন্দনে পুলিশ যেয়ে রাজিব, রমেল, কামাল, শরিফুল, মিলন, টিটো, জাকির সহ বেশ কয়েক জন কে নানা পুলিশ ও মাস্তান দিয়ে নানা ধরনের হয়রানি অব্যহত রেখেছেন। তার কয়েকদিনের মধ্যে আগে রিপনের বন্ধু আলামিন কে ওই এলাকার একটা লন্ডী থেকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ। পরে রিপনের বন্ধু রাসেলকে খুজতে রাসেলের বাড়িতে তান্ডব চালায় পুলিশ । ওই রাতেই রিপনের বাসায় পুলিশ যেয়ে রিপনকে না পেয়ে পুলিশ রিপনের বাবা ড্রাইভার খোকন শেখকে আটক করে থানায় আনেন। রাত ভোর তাদের উপর অত্যাচার করে পরের দিন দুপুরে আলামিন ও রিপনের বাবা খোকন কে ১৫১ ধারায় কোর্টে চালান করে দেয় পুলিশ। সাম্প্রতি গত ১ মার্চ বাবর আলী রিপনকে আসামী করে কোতয়ালী মডেল থানায় রিপনকে মুল আসামীও অঙ্গাত ২/৩ জনকে আসামী করে কোতয়ালী মডেল থানায় মেয়েকে অপহরনের দায়ে একটি মামলা করেন যার মামলা নং ৫/৫২৬। তারই পরিপেক্ষিতে ওইদিন পুলিশ যেয়ে রিপনের বাবা ড্রাইভার খোকন ও পাশের বাড়ির লালচান(১৩) নামের হতদরিদ্র এক কিশোরকে আটক করে আনেন । এতে করে ব্যাপক ক্ষেপে যান এলাকার শান্তপ্রিয় মানুষ। ঝাটা আর জুতা নিয়ে আটক করে ফেলে তাকে।
    এদিকে এ বিষয় নিয়ে এলাকার সাধারন মানুষের মনে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। বাবর তার মেয়ের বিচার না করে পুলিশ দিয়ে ছেলের পরিবার সহ এলাকার যুবকদের উপর অত্যাচার করা টাকে ঘৃনার চোখে দেখছেন তারা।
    এতে করে এলাকার ভাবমূর্তি ক্ষুন্য হচ্ছে বলে এলাকাবাসীর দাবী।
    অপর এটি সুত্রের মাধ্যমে যানা যায়,রিথির পিতা বাবর যশোর কম্পিউটার সমিতির সাবেক আলোচিত সভাপতি। জেস টাওয়ার মার্কেটে কম্পিটার সহ বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা করে। তাকে অনেকে সোর্স বাবর বলে চেনেন। তার সাথে চোরাই সিন্ডিকেটের সাথে গভীর আতাত থাকায় বেচাবিক্রি তার যতেষ্ঠ ভালো হয় বলে সুত্রের দাবী।এদিকে পুলিশের সাথে তোহরম মোহরম থাকায় পুলিশ ও তাকে কিছুই বলেনা বলে সুত্র জানায়।
    সুত্র আরো জানায়,মাগুরা জেলার আন্দলবাড়িয়া গ্রাম থেকে যশোরের উপশহরের একটি একটি ভাড়া বাড়িতে বসবাস করতেন তিনি। পরে লালদিঘির পাড়ের একটি দোকান দেন। এরপর অল্পকয়েকদিনের মধ্যে তিনি আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে জেলরোডে একটি জমি সহ বাড়ির মালিক হন। এখন তিনি যশোরের বৃহত একটি মার্কেটে দোকান দিয়ে নামীদামী ব্রান্ডের ডিলার হয়ে অবৈধ টাকার মালিক বনে যান। এছাড়াও তিনি যে মার্কেটে ব্যবসা করেন সে মার্কেটে তার বিরুদ্ধে নানা ধরনের জালিয়াতি ও ব্যবসায়ীদের মারধর সহ বিভিন্ন ভয়ভিতী দেওয়ার অভিযোগে কম্পিউটার ব্যবসায়ীর সভাপতির পদথেকে বহিস্কার করা হয়।
    এ বিষয়ে যশোরের ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলার মোকশিমুল বারী অপু অগ্রবাণীকে জানান,এটা দির্ঘদিনের ঘটনা। তিনি আরো বলেন,বাবরের মেয়ে ৩/৪ বার বিয়ের দাবীতে ছেলে রিপনের বাড়িতে চলে গেছে। আমি নিজে উপস্থিত থেকে বাবরের মেয়েকে বাবরের হাতে পৌছে দিয়ে এসেছে । সেখানে বাবর নিজের মেয়েকে শাসন না করে এলাকার নিরিহ মানুষদের উপর পুলিশ দিয়ে যে হয়রানি করছে তা কখনোই মেনে ওেয়া হবেনা। তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
    এবিষয়ে কোতয়ালী থানার ওসি একে এম আজমল হুদা জানায়,এ সংক্রান্ত বিষয়ে সকালে একটা মামলা হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই এইচ এম শহিদুল ভালো বলতে পারবেন।
    মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বলেন,মামলায় ছেলের পিতা ও তার এক বন্ধু কে ধরে এনেছিলাম। পরবর্তিতে তাদের ২ জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।
    এবিষয়ে বাবরের সাথে যোগাযোগ করতে গেলে তার ব্যবহিত ০১৯২৩৬৪৪৫৬২ নম্বরে যোগাযো করতে যেয়ে নাম্বার বন্ধ পাই।


    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    webnewsdesign.com

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4669