• শিরোনাম

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    রহস্যময়ী সুন্দরীর রহস্যে ঘেরা মৃত্যু

    ডেস্ক | ৩১ আগস্ট ২০১৯ | ৬:৫৮ অপরাহ্ণ

    রহস্যময়ী সুন্দরীর রহস্যে ঘেরা মৃত্যু

    মায়াময় নীলাভ চোখ দু`টি স্বপ্নীল। মুখে স্বর্গীয় ভাবনার প্রচ্ছন্ন অভিব্যক্তি। তার সৌন্দর্যের সামনে সব কিছুই ম্লান হয়ে যেত। তাকে দেখে প্রেমে পড়েননি এমন মানুষ বোধহয় কমই আছে। তার সৌন্দর্যের মাঝে যেমন মাদকতা ছিল, তেমনি ছিল রহস্যময়তা। তিনি প্রিন্সেস ডায়ানা। ছিলেন ইংল্যান্ডের রাজবধূ। কিন্তু মন জয় করেছিলেন সমগ্র বিশ্ববাসীর। তার কোলেই আসে রাজপরিবারের দুই উত্তরাধিকারী প্রিন্স উইলিয়াম ও প্রিন্স হ্যারি। ডায়ানা দেশ থেকে দেশে ছুটে বেড়িয়েছেন বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজে। হাউস অফ উইন্ডসর`-এর চৌকাঠ ডিঙিয়ে তিনি আন্তরিকভাবেই মিশে যেতে চেয়েছিলেন সাধারণ মানুষের মধ্যে। ডায়ানার রহস্যময় সৌন্দর্যের মতো তার মৃত্যুটাও হয়ে আছে রহস্যে ঘেরা। তার এই মৃত্যু রহস্যের সঙ্গে বারবার ঘুরে ফিরে আসে তার প্রাম, বিয়ে এবং উদ্দাম জীবন যাপনের কথা।

    ডায়ানা মারা যান ১৯৯৭ সালের ৩০ অগাস্ট, প্যারিসে, এক গাড়ি দুর্ঘটনায়। পাপারাজ্জিদের এড়াতে একটি টিউবে ঢুকে যায় গাড়িটি। ডায়ানার সঙ্গে ছিলেন তার তৎকালীন প্রেমিক মিসরীয় ব্যবসায়ী ডোডি আল-ফায়াদ। দুর্ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পরে হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সাবেক প্রিন্সেস অব ওয়েলস। গাড়ির চালক ও ডোডি ঘটনাস্থলেই মারা যান, তাদের দেহরক্ষী গুরুতর আহত হন। ময়নাতদন্তে গাড়ির চালকের পেটে অস্বাভাবিক মাত্রার অ্যালকোহলের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়। তা সত্ত্বেও ডায়ানার মৃত্যুকে দুর্ঘটনা হিসেবে মেনে নেননি অনেকেই। এ সম্পর্কে তৈরি হয়েছে নানা অনুমান ও কন্সপিরেসি থিওরি। অনেকেরই ধারণা মার্সিডিজ গাড়িটির চালক হেনরি পল ছিলেন গোয়েন্দা সংস্থার লোক। এমনকি রাজপরিবারের সাবেক বধূ খৃষ্টান নয়, এমন কাউকে বিয়ে করবেন এই সম্ভাবনা মেনে নিতে পারেনি ব্রিটিশ রাজপরিবার। তাই নিজেদের আভিজাত্য বাঁচাতেই ডায়ানাকে হত্যা করার পরিকল্পনা করা হয়। এমনকি অনেকে এমনও মনে করেন প্রিন্স ফিলিপের সঙ্গে এই ষড়যন্ত্রে অংশ নিয়েছিলেন ডায়ানার আপন বোন লেডি সারাহও। তার মৃত্যুর পর কেটে গেছে দুই দশক। কিন্তু এই রহস্য আজও উন্মোচিত হয়নি।


    ‘ডায়ানা, হার ট্রু স্টোরি’ নামে একটি বই প্রকাশিত হয় ১৯৯২ সালের ৭ জুন। ওই বইতে প্রিন্সেস ডায়ানা নিজের অসুখী বৈবাহিক সম্পর্কের বয়ান করেন লেখক অ্যান্দ্রু মরটনের কাছে।

    ডায়ানার বিয়ে হয়েছিলো ১৯৮১ সালের ২৯ জুলাই। সম্ভবত বিংশ শতাব্দীর সবচেয়ে আলোচিত বিবাহ অনুষ্ঠান ছিলো প্রিন্স চার্লস ও লেডি ডায়ানার বিয়ের অনুষ্ঠানটি। বিবাহের মাধ্যমে প্রিন্স ও প্রিন্সেস অব ওয়েলস পদে ভূষিত হন এই দম্পতি। এই রাজকীয় দম্পতির প্রথম সন্তান প্রিন্স উইলিয়াম জন্ম নেন ১৯৮২ সালের ২১ জুন, এর দুই বছর পর জন্ম নেন প্রিন্স হ্যারি, ১৯৮৪ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর। দুই সন্তানের মমতাময়ী মায়ের ভূমিকা নিয়ে নেন তরুণী ডায়ানা, চেষ্টা করেন সুখী একটি পরিবার গড়ে তুলতে। কিন্তু এই রাজকীয় বিয়ে ভেঙে যায় ১৫ বছরের মাথায়, ১৯৯৬ সালে। তার আগেই অ্যান্দ্রু মরটনের কাছে নিজের অসুখী বিবাহ ও রাজপরিবারের সঙ্গে সম্পর্কে তিক্ততার কথা প্রকাশ করে অভূতপূর্ব সাহসের পরিচয় দেন তিনি। ক্যামিলা পার্কারের সঙ্গে তার স্বামী চার্লসের বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কথা অকপটে জানান ডায়ানা, যা রাজপরিবারের ইতিহাসে এর আগে কখনই ঘটেনি।

    ডায়ানা নিজে অভিজাত পরিবারে জন্মাননি।তার জন্ম ১৯৬১ সালের ১ জুলাই, স্পেন্সার পরিবারে। তার কুমারী নাম ছিল ডায়ানা স্পেন্সার।পরিবারটি ছিলো রাজপরিবারের সঙ্গে বেশ ঘনিষ্ঠ।ডায়ানার শৈশব কেটেছে প্রিন্স আন্দ্রু আর প্রিন্স এডওয়ার্ডের সঙ্গে খেলাধুলা করে।

    ডায়ানার পিতামহী ছিলেন রাণী এলিজাবেথের ঘনিষ্ঠ বান্ধবী। সে সময় থেকেই হয়তো তাকে রাজপরিবারের বধূ করার পরিকল্পনা ছিলো রাণীর। সম্ভবত, সে কারণেই ১৯৭৫ সালে স্পেন্সার পরিবারকে আর্ল অব স্পেন্সার পদবিতে ভূষিত করা হয় এবং ১৯৮১ সালে ডায়ানাকে পরিবারের বধূ হিসেবে বরণ করে নেওয়া হয়।

    মাত্র ২০ বছর বয়সে রাজপরিবারের বধূ হয়ে অভিজাত পরিবারের নিয়মকানুন শিখে নেন তিনি। সৌন্দর্য, স্টাইল ও মধুর স্বভাবের জন্যই শুধু নয়, বিশ্বমানবতার জন্য কাজ করেও তিনি জায়গা করে নেন পুরো পৃথিবীর মানুষের মনে। স্থল মাইনের ব্যবহারের বিরুদ্ধে বিশ্বজুড়ে প্রচারণা চালান রাজবধূ প্রিন্সেস ডায়ানা। এইডস নিয়ে সচেতনতা তৈরিতেও তিনি এক অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে আছেন।

    Comments

    comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    বিয়ে করাই তার নেশা!

    ২১ জুলাই ২০১৭

    কে এই নারী, তার বাবা কে?

    ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী