• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    শিকল ভাঙ্গার গান

    হাবিব মোস্তফা | ২৫ মার্চ ২০১৯ | ২:২৭ অপরাহ্ণ

    শিকল ভাঙ্গার গান

    একাত্তরের মুক্তিকামী মানুষের মাঝে সঙ্গীতের মাধ্যমেই প্রতিবাদের দাবানল জ্বলে উঠেছিল। ওই সময়ে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পীদের অগ্রগণ্য ভূমিকার কারণেই শত শত মুক্তিসেনা ঝাঁপিয়ে পড়েছিল স্বাধীনতা ছিনিয়ে আনার যুদ্ধে। সেসময়ে শিল্পীদের সংগ্রামী কণ্ঠের গান সাড়া জাগিয়ে তোলে বাংলার পথে প্রান্তরে।
    স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী অজিত রায়, আবদুল জব্বার, আপেল মাহমুদ, ফকির আলমগীর, প্রবাল চৌধুরী, রথীন্দ্রনাথ রায়, ইন্দ্রমোহন রাজবংশী, শাহীন সামাদ, সুজিত রায়, বানী কুমার চৌধুরী, কল্যাণী ঘোষ, মিহির কুমার নন্দী, জয়ন্তী লালা, মৃণাল ভট্টাচার্য, শীলা মোমেন, উমা ইসলাম, নমিতা ঘোষ, শেফালী ঘোষসহ আরও অনেকে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সঙ্গীত পরিবেশন করে উৎসাহিত করেছেন পুরো বাঙালি জাতিকে।
    স্বাধীনবাংলা বেতার কেন্দ্রের মধ্য দিয়ে চলত সাংস্কৃতিক লড়াই। এখানে বসেই গান লিখে, সুর করে গাওয়ার মধ্য দিয়ে চলত সংগ্রামের আরেক অধ্যায়। তবে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র প্রথম গঠনের পর নিজস্ব গান ছিল না। তখন বাজানো হতো দেশপ্রেমের অমূল্য সব সঙ্গীত। দ্বিজেন্দ্রলাল রায়, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, নজরুল ইসলাম, সুকান্ত ভট্টাচার্যের লেখা দেশপ্রেম ও দ্রোহের গানের সঙ্গে গণনাট্যসংঘের গানগুলো গাওয়া হতো। পরবর্তীতে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের গান প্রাপ্তি স্বীকার স্বাক্ষর রাখে। এ সময় গোবিন্দ হালদার, আবদুল লতিফ, গৌরিপ্রসন্ন মজুমদার, অপরেশ লাহিড়ী, সিকান্দার আবু জাফর, ফজল এ খোদা, আপেল মাহমুদসহ বিভিন্ন গীতিকারের লেখা গান গাওয়া হতো।


    এক একটি গান এক একটি যুদ্ধ বোমার মতন কাজ করেছে।পৃথিবীর আর কোনো দেশে নিজ দেশের স্বাধীনতা নিয়ে এত গান আছে বলে মনে হয় না। বিশেষ করে “কারার ঐ লৌহ কপাট, জয় বাংলার জয়,বিচারপতি তোমার বিচার, নোঙর তোল তোল, পূর্ব দিগন্তে সূর্য উঠেছে, তীর হারা এ ঢেউয়ের সাগর পাড়ি দেব রে, চল চল চল, ও আমার দেশের মাটি, এই পদ্মা এই মেঘনা, বাংলা আমার মা, বাংলা মাগো, আমি জন্মেছি এই দেশে, ধনে ধন্য পুষ্পে ভরা, সেই রেললাইনের ধারে, মোরা বাংলার গান গাই, যায় যদি প্রাণ, বিজয় নিশান উড়ছে, শিকল পরা পায়, ঢাকা শহর রক্তে রাঙানো, আমার এই দেশ সব মানুষের, জগৎবাসী একবার বাংলাদেশকে যাও দেখিয়ারে, রুখে দাঁড়াও হেই হেই,আমার সোনার বাংলা, সালাম সালাম হাজার সালাম, সবক’টা জানালা খুলে দাওনা, এক সাগর রক্তের বিনিময়ে, মোরা একটি ফুলকে বাঁচাবো বলে, একবার যেতে দে না আমায়, এক নদী রক্ত পেরিয়ে, সোনা সোনা সোনা লোকে বলে সোনা, ও মাঝি নাও বাইয়া যাওরে, এক তারা তুই দেশের কথা, প্রথম বাংলাদেশ আমার, জন্ম আমার ধন্য হল, আমায় গেঁথে দেও না মাগো, প্রতিদিন তোমায় দেখি, ও আমার বাংলাদেশের মাঝি ভাই, সাড়ে সাত কোটি মানুষ আজ একটি নাম-মুজিবর, শোন ঐ শোন বাংলাদেশের শিকল ভাঙার গান, সাত কোটি মোরা করেছি অঙ্গীকার, ওরে আমার মুক্তিযোদ্ধা ভাইয়েরারে, আমরা অগণিত মুক্তিসেনা, বাংলার নামে আজ শপথ নিলাম, সত্য যুগের সত্য রাজা, দিনের শোভা সুরুজ রে, বাংলার স্বাধীনতা আনলো কে, আমরা মুক্তিসেনা আমরা ভয় করি না” ইত্যাদি শিরোনামের বিভিন্ন শিল্পীর কণ্ঠে গাওয়া এসব গান যুদ্ধচলাকালীন ও পরবর্তী সময়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাঙালি জাতিকে সংস্কৃতি অঙ্গনসহ বহির্বিশ্বে পরিচয় ঘটিয়েছে।


    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4673